পহেলা মে থেকে মার্কেট-দোকান খুলতে চায় মালিক সমিতি

  বাংলাদেশে করোনাভাইরাস

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সংগৃহীত ছবি

সংগৃহীত ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

আগামী পহলো মে থেকে ক্ষুদ্র, খুচরা ও পাইকারি মার্কেটসহ সারাদেশের সব দোকান খুলতে চায় বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি।

সোমবার (২৭ এপ্রিল) বাণিজ্যমন্ত্রীর কাছে চিঠি দিয়ে এ প্রস্তাব দিয়েছে সংগঠনটি।

চিঠিতে বলা হয়, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগ বাঁচিয়ে রাখার স্বার্থে আগামী মাস থেকে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত স্বস্থ্যবিধি মেনে সব ধরনের দোকান খোলা রাখতে চায় দোকান মালিক সমিতি।

প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক এলাহী চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ও এফবিসিসিআই সভাপতিকেও এ চিঠি দেওয়া হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়, করোনাভাইরাস মহামারি প্রতিরোধে গত ২৫ মার্চ থেকে বাংলাদেশের সব দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সরকারি ছুটির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে বন্ধ রাখা হয়। তবে প্রধানমন্ত্রীর এক লাখ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজের সুবিধা দোকানিদের পাওয়ার সুযোগ নেই। তাই তাদের আয়ের পথ সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে গেছে। এর ফলে দোকান মালিক ও তাদের কর্মচারীরা অর্ধাহারে ও অনাহারে দিনযাপন করছেন। তাদের এখন পথে বসার উপক্রম।

দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন বলেন, পহেলা বৈশাখে মার্কেট ও দোকান বন্ধ থাকায় ৬ থেকে ৭ হাজার কোটি টাকার পুঁজি নষ্ট হয়েছে। একই সঙ্গে রমজান ও ঈদে ২০ থেকে ২২ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ করা হয়। তা বিনষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। তা সত্ত্বেও বর্তমান করোনাভাইরাস মহামারির কারণে পাইকারি, ক্ষুদ্র ও খুচরা মার্কেট ও দোকান বন্ধ রাখার মানসিক প্রস্তুতি ছিল আমাদের।

এফবিসিসিআই'র উদ্যোগে আলোচনা সভায় বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত হয়। ইতোমধ্যে নরসিংদীর বাবুর হাট খুলে দেওয়া হয়েছে। এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে দোকান খোলার সুযোগ দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন দোকান মালিক সমিতির সভাপতি।

আপনার মতামত লিখুন :

  বাংলাদেশে করোনাভাইরাস