উপ-নির্বাচনে পোস্টার-মাইকবিহীন প্রচার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন ইসির সিনিয়র সচিব/ছবি: বার্তা২৪.কম

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন ইসির সিনিয়র সচিব/ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করে আসন্ন ঢাকা-১০ আসনের উপ-নির্বাচনে পোস্টার ও মাইকবিহীন প্রচার ব্যবস্থার উদ্যোগটির পরীক্ষামূলকভাবে বাস্তবায়ন করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) ইসির সিনিয়র সচিব মো.আলমগীর ৬০ তম কমিশন বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

মো. আলমগীর বলেন, নির্বাচনের আচরণবিধি এই মুহূর্তে পরিবর্তন করা সম্ভব নয় বিধায় ঢাকা ১০ আসনের উপ নির্বাচনের ক্ষেত্রে যারা প্রার্থী থাকবেন তাদের সাথে বৈঠক করব। সেই আলোচনা সভায় যদি সকল প্রার্থীরা রাজি থাকেন, তাহলে ভ্রাম্যমাণ যে মাইক ব্যবহার করা হয় এবং রাস্তাঘাটে যে পোস্টার টানানো হয়, এতে পরিবেশের যে ক্ষতি হয় এইটা না করে অন্য কোনো উপায়ে নির্বাচনের প্রচার চালানো যায় কিনা বিধিমালার মধ্যে থেকে সেটা উনাদের সঙ্গে আলোচনা করে একটা পাইলট সিদ্ধান্ত নেয়ার ইচ্ছা আছে নির্বাচন কমিশনের।

তিনি বলেন, সব ক্যান্ডিডেটের সঙ্গে আলোচনা করে মাইক ব্যবহার, রাস্তাঘাটে যাতে পোস্টার টানানো না হয়, অন্য কোনো ভাবে প্রচার চালানো যায় কিনা তা প্রার্থীদের সঙ্গে কথা বলে সবার সঙ্গে সমঝোতার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেয়া যায় তাহলে কমিশন করবে। শুধুমাত্র ঢাকার ১০ আসনেই এটা হবে বাকিগুলোতে আগের মতোই হবে।

পোস্টার, মাইকিংয়ের বাইরে ইসি কিছু বিকল্প আইডিয়া দেবে আবার প্রার্থীদের কোনো আইডিয়া থাকলে তাও নেয়া হবে। কমিশন প্রার্থী এক মত হলে সমঝোতার ভিত্তিতে বিকল্প প্রচারের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া।

ইসি সচি বলেন, বিকল্প হিসেবে পথসভা করা যেতে পারে। জনসভার অনুমতি আছে। ডিজিটাল প্রচারণার বিষয় থাকতে পারে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার হতে পারে।

প্রসঙ্গত আগামী ২১ মার্চ ঢাকা-১০, গাইবান্ধা-৩ ও বাগেরহাট-৪ আসনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

আপনার মতামত লিখুন :