শুভ জন্মদিন বুম্বাদা

বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়

  • Font increase
  • Font Decrease

শৈশবেই টলিউডের সঙ্গে পরিচয় ঘটেছিল তার। বাবা বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের হাত ধরেই প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান তিনি। সেই যাত্রা আজও সগৌরবে চলছে। গত ৩৫ বছর ধরে তিনি ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্রকে নেতৃত্ব দিয়ে চলেছেন।

তার সমসাময়িক অনেক অভিনেতা যেখানে বয়সের কাছে হার মেনে পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করছেন, সেখানে এখনো নায়কের চরিত্রে দেখা মেলে তার। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে সাফল্যের দৌঁড়ে তিনি এখনও সবার থেকে এগিয়ে। কথা হচ্ছে- টলিউডের অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের।

১৯৬২ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর জন্মগ্রহণ করেছেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। আজ ৫৮ বছরে পা রাখলেন সবার প্রিয় বুম্বাদা। জনপ্রিয় এই তারকার জন্মদিন উপলক্ষ্যে চলুন জেনে নেওয়া যাক তার সম্পর্কে জানা-অজানা কিছু তথ্য।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়

ড্রাম বাজাতে জানেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। তার বয়স যখন ১২ বছর ছিলো তখন তিনি ‘তুফান মেলোডি’ নামে একটি ব্যান্ডের সদস্য ছিলেন।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের প্রিয় পারফিউম পোলো।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে সকলে ভালোবেসে বুম্বাদা বলে ডাকেন।

৫৮ বছর বয়সী এই তারকা গ্রিন টি ও ব্ল্যাক কফি পান করতে পছন্দ করেন।

এই অভিনেতা ঘোড়ায় চড়ার প্রশিক্ষণ নিয়েছেন।

গত ২০ বছর ধরে সুভাষ বেরা নামে একজন মেকআপ আর্টিস্ট তার সঙ্গে কাজ করছেন।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ও অর্পিতার বিয়ের দিন এই অভিনেতার মেকআপ করে দিয়েছিলেন নির্মাতা ঋতুপর্ণ সেনগুপ্ত।

অর্পিতার আগে তিনি দেবশ্রী রায় ও অর্পনা গুহাথাকুরতার সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন।

‘সাজান’ ও ‘ম্যায়নে পেয়ার কিয়া’র মতো ব্লকবাস্টার ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছেন প্রসেনজিৎ।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় যখন তার বাবার হাত ধরে ‘ছোট্ট জিজ্ঞাসা’ ছবির মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্র দুনিয়ায় পা রাখেন সেসময় তার বয়স ছিলো চার বছর।

থাই খাবার খেতে পছন্দ করে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়

অমিতাভ বচ্চন, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও রবার্ট ডে নিওর এর বড় ভক্ত তিনি।

পিয়ুশ বোসের নির্মিত ‘দুই পৃথিবী’তে (১৯৭০) তরুণ উত্তম কুমারের চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রসেনজিৎ।

১৯৮৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘দুটি পাতা’ ছবির মধ্য দিয়ে নায়ক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন প্রসেনজিৎ।

প্রসেনজিৎ অভিনীত ‘অমর সঙ্গী’ ছবিটি টানা ৭৫ সপ্তাহ চলে রেকর্ড গড়েছিলো।

প্রসেনজিৎ ঋতুপর্ণা ও শতাব্দীর সঙ্গে জুটি বেঁধে ৫০টির বেশি ছবিতে অভিনয় করেছেন। এছাড়া ইন্দ্রানী হালাদারের সঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে ১৬টি এবং রচনা ব্যানার্জীর সঙ্গে ৩৫টি ছবিতে কাজ করেছেন।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়

২০০১ সালে ঋতুপর্ণার সঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে ‘জামাইবাবু জিন্দাবাদ’-এ কাজ করার পর ১৫ বছর আর কোন ছবিতে একসঙ্গে দেখা যায়নি তাদের। এরপর ২০১৬ সালে শীবপ্রসাদ-নন্দিতার ‘প্রাক্তন’-এ অভিনয় করেন তারা।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের পরিচালিত প্রথম ছবি ‘পুরুষোত্তম’ (১৯৯২)। এতে অভিনয় করেছিলেন তার প্রাক্তন স্ত্রী দেবশ্রী রয়।

‘গানের ওপারে’, ‘আদিত্য’ ও ‘তৃতীয় পুরুষ’-এর মতো টেলিভিশন সিরিজ প্রযোজনা করেছেন তিনি।

৯০ দশকের দিকে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় এক বছরে ২৫টি সিনেমার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়

২০০৪ সালে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের ২২টি ছবি মুক্তি পেয়েছিলো। এর মধ্য দিয়ে রেকর্ড গড়েন তিনি।

‘আন্ধিয়া’ ছবির মধ্য দিয়ে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে পা রাখেন প্রসেনজিৎ।

অভিনয়ের পাশাপাশি গানেও কণ্ঠ দিয়েছেন প্রসেনজিৎ। ‘গান পাড়ার পূজো’ নামক একটি অ্যালবামের ‘আজ আড্ডার তালে তালে’ গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছিলেন তিনি।

প্রসেনজিতের পছন্দের গাড়ি বেন্টলে।