ক্রাইম ইন্টেলিজেন্স ইউনিট দফরতে হাজির হৃত্বিক রোশন



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
হৃত্বিক রোশন হৃত্বিক রোশন

হৃত্বিক রোশন হৃত্বিক রোশন

  • Font increase
  • Font Decrease

ঘটনার সূত্রপাত্র ২০১৬ সালে। সেই সময় এক সাক্ষাৎকারে হৃত্বিককে ‘সিলি এক্স’ বলে খোঁচা দিয়েছিলেন কঙ্গনা রনৌত। এরপরই ই-মেইল চালাচালির ঘটনায় পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন হৃত্বিক জানান, ২০১৩ থেকে ২০১৪ সালের মধ্যে কঙ্গনার ই-মেইল অ্যাকাউন্ট থেকে হৃত্বিককে ১৪৩৯টি মেইল পাঠানো হয়েছিলো। যা বলিউডের এই অভিনেতার উপর মানসিক চাপ সৃষ্টি করেছে। এর ভিত্তিতে অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪১৯-এর ৬৬ (সি এবং ডি) ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছিলো।

তবে গত বছরের শেষে ‘কঙ্গনা-হৃত্বিক ই-মেইল বিতর্ক’ মামলা সাইবার সেল থেকে চলে যায় ক্রাইম ব্রাঞ্চের ইন্টালিজেন্স ইউনিটের হাতে। আর তদন্তভার হাতে নেওয়ার প্রায় দু-মাস পর হৃত্বিককে সমন পাঠানো হয়েছিল মহারাষ্ট্রের ক্রাইম ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের তরফে।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় মুম্বাইয়ের ক্রাইম ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের দফরতে হাজির হয়েছিলেন হৃত্বিক রোশন। বয়ান রেকর্ড শেষে দুপুর আড়াইটার দিকে সেখান থেকে বের হন বলিউডের এই সুপারস্টার।

২০১৩ সালে ‘কৃষ থ্রি’তে অভিনয়ের সময় ঘনিষ্ঠতা বাড়ে হৃত্বিক-কঙ্গনার। ২০১৪ সালে করণ জোহরের পার্টিতে অন্তরঙ্গ অবস্থায় কঙ্গনা-হৃত্বিকের একটি ছবিও ভাইরাল হয়। কঙ্গনা বারবার হৃত্বিকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক থাকার কথা দাবি করলেও সেটি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছেন হৃত্বিক রোশন।