রাজশাহীতে অক্ষয়কুমার মৈত্রেয় নাট্যোৎসব



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজশাহী
রাজশাহীতে অক্ষয়কুমার মৈত্রেয় নাট্যোৎসব

রাজশাহীতে অক্ষয়কুমার মৈত্রেয় নাট্যোৎসব

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রখ্যাত নাট্যকার, আইনজীবী, সমাজকর্মী, ইতিহাসবিদ ও প্রত্মতত্ত্ববিদ অক্ষয়কুমার মৈত্রেয় এর জন্মদিন উপলক্ষে রাজশাহীতে শুরু হলো ছয় দিনের নাট্যোৎসব। রাজশাহী থিয়েটার পঞ্চমবারের মতো এর আয়োজন করেছে।

সোমবার সন্ধ্যায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে নাট্যোৎসবের উদ্বোধন করেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। শুরুতেই প্রধান অতিথি ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করেন। এ সময় পরিবেশিত হয় মনমুগ্ধকর নৃত্য।

অনুষ্ঠানে মেয়র লিটন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলেই দেশে মুক্তবুদ্ধির চর্চা হয়, গুনীজণদের গুনকীর্তন করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও আমরা সেটি ধারণ করেই চলি।

উদ্বোধনের পর আলোচনা সভা ও বিশেষ সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উৎসবের আহ্বায়ক ও রাজশাহী থিয়েটারের সভাপতি নিতাই কুমার সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নাট্যজন অধ্যাপক মলয় কুমার ভৌমিক ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, রাজশাহীর সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার ঘোষ। স্বাগত বক্তব্য দেন রাজশাহী ফিল্ম সোসাইটির সভাপতি আহসান কবির লিটন। অনুষ্ঠানে নাট্যজন অধ্যাপক মলয় কুমার ভৌমিককে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

এ সময় উৎসবের সদস্য সচিব ও রাজশাহী থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক কামার উল্লাহ সরকার, বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য কাজী সাঈদ হোসেন দুলাল, রাজশাহী থিয়েটারের আজীবন সদস্য নাট্যজন তাজুল ইসলাম, সেক্টর কমান্ডার ফোরামের রাজশাহী জেলার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাসান খন্দকার, রাজশাহী থিয়েটারে নির্বাহী সদস্য আব্দুস সাত্তার ডলার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আগামী ৬ মার্চ পর্যন্ত নাট্যোৎসব চলবে। প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টায় ভারত ও বাংলাদেশের একটি করে বিখ্যাত নাটক মঞ্চায়িত হবে। উদ্বোধনী দিনে রাজশাহী থিয়েটারের ‘পুত্রহীন’ নাটক মঞ্চস্থ হয়। ২ মার্চ রাজশাহী সাংস্কৃতিক সংঘের ‘গিরগিটি’, ৩ মার্চ রাজশাহী জেলা শিল্পকলা একাডেমির ‘বাতিঘর’, ৪ মার্চ বগুড়া থিয়েটারের ‘দ্রোহ’, ৫ মার্চ বিবর্তন যশোরের ‘পেজগী’ এবং ৬ মার্চ শব্দ নাট্যচর্চা কেন্দ্র ঢাকার ‘চম্পাবতী’ নাটক মঞ্চস্থ হবে।