ভালোবাসা পাওয়া ও দেওয়ার জন্যই জন্মেছি: ধর্মেন্দ্র



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ধর্মেন্দ্র

ধর্মেন্দ্র

  • Font increase
  • Font Decrease

বলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেতা ধর্মেন্দ্রর বয়সের ক্যালেন্ডারে যোগ হলো আরও একটা বছর। আজ (৮ ডিসেম্বর) তার জন্মদিন। ৮৬ বছর আগে আজকের দিনে পৃথিবীতে প্রথম কেঁদেছিলেন তিনি।

বিশেষ এই দিনটি উপলক্ষে এ বছর তেমন কোন জমকালো আয়োজন ছিল না। পরিবারের সদস্যদের নিয়েই ৮৬তম জন্মদিনের কেক কেটেছেন বর্ষীয়ান এই তারকা। এ প্রসঙ্গে ধর্মেন্দ্র বলেন, “সম্প্রতি আমি শুটিং শেষ করে দিল্লি থেকে ফিরেছি। তাই জন্মদিন নিয়ে তেমন কোন পরিকল্পনাও নেই। আর তাছাড়া জন্মদিন নিয়ে আমি কখনও তেমন পরিকল্পনাও করি না। আমার মা চলে যাওয়ার পর থেকে আমি আর এই দিনটি পালন করি না।”

যোগ করে তিনি আরও বলেন, “আমার মা ছিলেন এমন একজন যিনি অনেক ভালোবাসা ও সহানুভূতি নিয়ে আমার জন্মদিন পালন করতেন। জন্মদাত্রী যখন নেই তখন আবার কিসের জন্মদিন।”

এ বছরের জন্মদিন পরিকল্পনা প্রসঙ্গে বর্ষীয়ান এই অভিনেতা বলেন, “মাঝে মধ্যে আমার সঙ্গে অনেকেই দেখা করতে আসে এবং আমিও তাদের সঙ্গে দেখা করি। কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারির জন্য আমি এবার দেখা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তাই আমার খামার বাড়িতে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেই দিনটি কাটবো।”

বর্ষীয়ান এই অভিনেতা তার জন্মদিন পালন করছেন না ঠিকই কিন্তু সারা বিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা তার অসংখ্য ভক্ত দিনটি ঠিকই পালন করছেন। আর এ বিষয়টি নিয়ে ধর্মেন্দ্র বলেন, “যখনই এমন কিছু শুনি মনের ভেতরে আনন্দ হয়।”

৮৬ বছরে পা দিয়ে ধর্মেন্দ্র বলেন, “জানি আমার বয়স ৮৬ হলো। কিন্তু বসে বসে বয়স নিয়ে ভাবতে চাই না। আমার কাজগুলো সৎভাবে করতে চাই। আর এটি ভেবে খুশি হই যে মানুষ এখনও আমাকে ভালোবাসে। তাদের কাছে আমি এখনও একই ধর্মেন্দ্র রয়েছি। আমার মনে হয় আমি ভালোবাসা পাওয়া ও দেওয়ার জন্যই জন্মগ্রহণ করেছি।

শোবিজ অঙ্গনে ধর্মেন্দ্রর অভিষেক হয় ১৯৬০ সালে। এরপর থেকেই নিজের অভিনয়ের সুবাদে দর্শকদের মাতিয়ে রেখেছেন তিনি। উপহার দিয়েছেন ‘বন্দিনি’, ‘শোলে’, ‘চুপকে চুপকে’র মত অসংখ্য ছবি।

বর্তমানে করণ জোহর প্রযোজিত ‘রকি অউর রানি কি প্রেম কাহানি’ ছবির কাজ নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন ধর্মেন্দ্র। ছবিটিতে আরও রয়েছেন জয়া বচ্চন, শাবানা আজমি, রণবীর সিং ও আলিয়া ভাট।

শিল্পী সমিতির সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চন, সম্পাদক জায়েদ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২২-২৪ মেয়াদের দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছেন ইলিয়াস কাঞ্চন। আর সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন জায়েদ খান। এবার ভোট দিয়েছেন ৩৬৫ জন শিল্পী।

শনিবার (২৯ জানুয়ারি) ভোর পৌনে ৬টার দিকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার পীরজাদা শহীদুল হারুন ফল ঘোষণা করেন।

ভোটে আগামী দুই বছরের জন্য ১৯১টি ভোট পেয়ে সভাপতি হিসেবে ইলিয়াস কাঞ্চন, এবং ১৭৬টি ভোট পেয়ে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে জায়েদ খান নির্বাচিত হয়েছেন।

তাদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সভাপতি পদে মিশা সওদাগর পেয়েছেন ১৪৮ ভোট আর সাধারণ সম্পাদক পদে নিপুণ পেয়েছেন ১৬৩।

একনজরে বিজয়ীরা:

সভাপতি- ইলিয়াস কাঞ্চন (১৯১)
সহ-সভাপতি- ডিপজল (২১৯) ও রুবেল (১৯১)

সাধারণ সম্পাদক- জায়েদ খান (১৯৬)
সহ-সাধারণ সম্পাদক- সাইমন সাদিক (২১২)

সাংগঠনিক সম্পাদক- শাহানূর (১৮৪)
আন্তর্জাতিক সম্পাদক- জয় চৌধুরী (২০৫)
দফতর ও প্রচার সম্পাদক- আরমান (২৩২)
সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক- ইমন (২০৩)
কোষাধ্যক্ষ- আজাদ খান (১৯৩)

কার্যকরী পরিষদ- রোজিনা (১৮৫), মৌসুমী (২২৫), কেয়া (২১২), জেসমিন (২০৮), অঞ্জনা (২২৫), অমিত হাসান (২২৭), চুন্নু (২২০), আলিরাজ (২০৩), সুচরিতা (২০১), ফেরদৌস (২৪০) ও অরুণা বিশ্বাস (১৯২)।

এর আগে শুক্রবার সকাল ৯টা ১২মিনিটে শিল্পী সমিতির কার্যালয়ে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। ভোট গ্রহণ চলে সন্ধ্যা ৬টা ১০মিনিট পর্যন্ত।

এবার সমিতির ভোটার ছিল ৪২৮ জন। কিন্তু ভোট দিয়েছেন ৩৬৫ জন।

;

ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবে মুণ্ডা জনগোষ্ঠির জন্য চলচ্চিত্র নির্মাণ কর্মশালা



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের সুন্দরবনঘেঁষা উপকূলবর্তী সাতক্ষীরা জেলাধীন শ্যামনগরবাসী ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠি মুণ্ডা জনগোষ্ঠির জন্য ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসব (ডিআইএমএফএফ)-এর আয়োজনে অনুষ্ঠিত হল ৬-দিনব্যাপী সিডিএসটি মোবাইল ফিল্মমেকিং ওয়ার্কশপ উইথ মুন্ডা কমিউনিটি শীর্ষক চলচ্চিত্র নির্মাণ কর্মশালা।

২৩ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এই কর্মশালাটি জলবায়ু পরিবর্তন ও মুণ্ডা জনগোষ্ঠির দৈনন্দিন জীবনে এর নানা প্রভাবকে মূল উপজীব্য করে আয়োজন করা যেখানে ১০ জন স্থানীয় মুণ্ডা তরুণ-তরুণী অংশগ্রহণ করেন।

কর্মশালার মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীরা মোবাইল চলচ্চিত্রের ক্যানভাসে জলবায়ূ পরিবর্তনের প্রত্যক্ষ প্রভাব বৈশ্বিক উষ্ণায়ণ এবং মুণ্ডা জনগোষ্ঠীর দৈনন্দিন জীবনে এর দীর্ঘমেয়াদী নানা প্রভাবকে কেন্দ্র করে তাদের নিজ নিজ চিন্তাধারার ভিত্তিতে চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন। তাদের নির্মীত মোবাইল চলচ্চিত্রের মাধ্যমে উঠে আসে বাঘ-বিধবা, বাল্যবিবাহ, সংস্কৃতি ও ভাষা, জীবিকার অভাব ও এর প্রতিকার থেকে শুরু করে স্থানচ্যুতির জীবনযন্ত্রনার গল্প।

তাদের গল্পে দেখা মেলে মুণ্ডাদের জীবনযুদ্ধের নানান দিক, বাল্যবিবাহের দরূন সৃষ্ট যন্ত্রণাকাতর দাম্পত্যের গাঁথা। পাশাপাশি নিজস্ব ঐতিহ্যকে রক্ষার আহ্বানও ফুটে ওঠে এসব চলচ্চিত্রের নানান প্রেক্ষাপটে।

এই প্রথমবারের মতো শ্যামনগরে বসবাসকারী মুণ্ডা জনগোষ্ঠির জন্য মোবাইল ফোন দ্বারা চিত্রধানের মাধ্যমে নিজের গল্প নিজেই উপস্থাপনের এই কর্মশালাটি আয়োজন করা হয়। এর পাশাপাটি কর্মশালাটিতে অংশগ্রহনকারীদের চলচ্চিত্র নির্মাণের মৌলিক খুঁটিনাটি বিষয়গুলোর বিষয়েও ধারনা দেয়া হয়। এই উদ্যোগটি ভবিষ্যতে সুবিধাবঞ্চিত এই জনগোষ্ঠিকে বৃহৎ পরিমণ্ডলে তাদের বক্তব্য তুলে ধরার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

আয়োজনের সমাপনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের নির্মীত চলচ্চিত্র আমন্ত্রিত দর্শকদের সামনে প্রদর্শণ করা হয় যেখানে তাদের দৈনন্দিন জীবনযুদ্ধ থেকে শুরু করে প্রকৃতির বৈরীরূপের সঙ্গে যুদ্ধ করে টিকে থাকার লড়াইকে উপস্থাপন করেন কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীরা।

গত ২৮ জানুয়ারি,শুক্রবার বিকেলে সিডিএসটি মোবাইল ফিল্মমেকিং ওয়ার্কশপ উইথ মুন্ডা কমিউনিটি, শ্যামনগর ২০২২ শীর্ষক এই আয়োজনের সমাপনী অনুষ্ঠানে অন্যতম আয়োজক প্রতিষ্ঠান ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব) এর গণমাধ্যম শিক্ষণ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডক্টর জুড উইলিয়াম হেনিলো তার প্রেরিত বার্তায় অংশগ্রহনকারীদের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন।

অন্যতম আয়োজক প্রতিষ্ঠান ডারহাম ইউনিভার্সিটির প্রকল্প গবেষক আনহেলো থিওক্যারিস তার প্রেরিত বক্তব্যে কমিউনিটি ডিজিটাল স্টোরিটেলিং অ্যান্ড ডেল্টা ফিউচার্স ইন ইন্ডিয়া, বাংলাদেশ এন্ড ভিয়েতনাম (সিডিএসটি) প্রকল্পটির নান দিক নিয়ে আলোচনা করেন। অতিথিদের আলোচনাপর্ব শেষে অংশগ্রহণকারীদের নির্মীত চলচ্চিত্রগুলো প্রদর্শন করা হয়।

সমাপনী এই অনুষ্ঠানে বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব ভবতোষ কুমার মণ্ডল, ইনিশিয়েটিভ ফর কোস্টাল ডেভলোপমেন্ট (আইডিসি) এর প্রতিষ্ঠাতা জনাব আশিকুজ্জামান আশিক ও শ্যামনগর এর আঞ্চলিক উন্নয়ন সংস্থা পিপলস রিসার্চ অন গ্রাসরুট ওনারশীপ অ্যান্ড ট্রেডিশনাল ইনিশিয়েটিভ (প্রগতি)-এর প্রতিষ্ঠাতা আশেক-ই-এলাহী উপস্থিত ছিলেন।

কমিউনিটি ডিজিটাল স্টোরিটেলিং অ্যান্ড ডেল্টা ফিউচার্স ইন ইন্ডিয়া, বাংলাদেশ অ্যান্ড ভিয়েতনাম (সিডিএসটি) শীর্ষক এই প্রকল্পটির যৌধ অর্থায়নে রয়েছে ইউকেআরআই জিসিআরএফ লিভিং ডেল্টাস হাব এবং ডারহাম ইউনিভার্সিটির ইনস্টিটিউট অব হ্যাজার্ড, রিস্ক অ্যান্ড রেজিলিয়েন্স (আইএইচআরআর)।

প্রকল্পের অধীনে এই কর্মশালাটির যৌথ আয়োজনে ছিলো ইউল্যাব এবং শ্যামনগর এর আঞ্চলিক উন্নয়ন সংস্থা প্রগতি। ডিআইএমএফএফ-এর পক্ষ থেকে এর উপদেষ্ঠা ডক্টর আব্দুল কাবিল খান ও নির্বাহী উপদেষ্টা সৈয়দা সাদিয়া মেহজাবিন কর্মশালাটি পরিচালনা করেন। আয়োজনটির সমন্বয়ে ইউল্যাব এর পক্ষ থেকে ছিলেন সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ আব্দুল কাদের, জেষ্ঠ্য প্রভাষক মুহাম্মদ আমিনুজ্জামান এবং প্রগতির পক্ষ থেকে ছিলেন জনাব আশেক-ই-এলাহী।

;

মধ্যরাতে আসছে ফলাফল



বিনোদন রিপোর্ট, বার্তা ২৪.কম
নির্বাচনে আনন্দনঘন সেলফিতে দুই প্যানেলের শিল্পীরা

নির্বাচনে আনন্দনঘন সেলফিতে দুই প্যানেলের শিল্পীরা

  • Font increase
  • Font Decrease

দিনভর আনন্দঘন পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে বহুল আলোচিত চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন।

এবার মোট ভোটার ছিলেন ৪২৮ জন। এর মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৩৬৫ জন। কাঞ্চন-নিপুণ এবং মিশা-জায়েদ প্যানেলের প্রার্থীদের উপস্থিতিতে ভোটাররাও দিনভর আনন্দ-উত্তেজনাকে সঙ্গী করে স্বতঃস্ফুর্তভাবে দিয়েছেন ভোট। দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবেই অনুষ্ঠিত হয়েছে নির্বাচন।

সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী নিপূন ও জায়েদ দু’পক্ষকেই অভিযুক্ত করেছেন টাকা দিয়ে ভোট কেনার।

সকাল ৯টা ১২ মিনিটে ভোট শুরু হয়ে শেষ হয় সন্ধ্যা ছয়টার পর। প্রধান নির্বাচন কমিশনার পীরজাদা হারুন জানিয়েছেন, যথাযথ গণনার পর মধ্যরাতে ঘোষিত হবে ফলাফল।

নির্বাচন কমিশনার হিসেবে আরও দায়িত্ব পালন করছেন- বি এইচ নিশান ও বজলুর রাশীদ চৌধুরী। আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন পরিচালক সোহানুর রহমান সোহান। সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মোহাম্মদ হোসেন জেমি ও মোহাম্মদ হোসেন।

নির্বাচনে ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেল থেকে নির্বাচন করেছেন ইলিয়াস কাঞ্চন (সভাপতি), নিপুণ (সাধারণ সম্পাদক), রিয়াজ আহমেদ ও ডি. এ তায়েব (সহসভাপতি), সাইমন সাদিক (সহসাধারণ সম্পাদক), শাহনুর (সাংগঠনিক সম্পাদক), নিরব হোসেন (আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক), আরমান (দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক), মামনুন ইমন (সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক) ও আজাদ খান (কোষাধ্যক্ষ)। কার্যকরী পরিষদের সদস্যপদে প্রার্থী হয়েছেন অমিত হাসান, ফেরদৌস, শাকিল খান, নানা শাহ, আফজাল শরীফ, সাংকো পাঞ্জা, জেসমিন, কেয়া, পরীমনি, গাঙ্গুয়া ও সীমান্ত।

মিশা-জায়েদ প্যানেলে নির্বাচন করছেন মিশা সওদাগর (সভাপতি), জায়েদ খান (সাধারণ সম্পাদক), ডিপজল ও রুবেল (সহসভাপতি), সুব্রত (সহসাধারণ সম্পাদক), আলেকজান্ডার বো (সাংগঠনিক সম্পাদক), জয় চৌধুরী (আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক), জে কে আলমগীর (দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক), জাকির হোসেন (সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক) এবং ফরহাদ (কোষাধ্যক্ষ)। এ প্যানেলের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য পদে প্রার্থী হয়েছেন রোজিনা, অঞ্জনা, সুচরিতা, অরুণা বিশ্বাস, মৌসুমী, আসিফ ইকবাল, বাপ্পারাজ, আলীরাজ, নাদের খান ও হাসান জাহাঙ্গীর।

কার্যকরী পরিষদের সদস্য হিসেবে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন অভিনেতা ডন ও হরবোলা।

চলচ্চিত্র শিল্পিদের পেশাগত স্বার্থ রক্ষার্থে গঠিত হয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। ভারত উপমহাদেশে এর যাত্রা শুরু হয় ১৯৩২ সালে প্রতিষ্ঠিত ভারত চলচ্চিত্র সমিতির মাধ্যমে। ১৯৩৮ সালে কলকাতায় প্রতিষ্ঠিত হয় চিত্র ব্যবসায়ীদের সংগঠন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সমিতি। এরপর ১৯৩৯ সালে কলকাতায় নিখিল বঙ্গ চলচ্চিত্র সংঘ নামে আরএকটি সংগঠন প্রতিষ্ঠিত হয়। দেশ বিভাগের পর পূর্ববঙ্গের রাজধানী ঢাকায় ১৯৫২ সালে পূর্ববঙ্গ চলচ্চিত্র সমিতি নামে আরেকটি সংগঠন গঠিত হয়।

এভাবেই পর্যায়ক্রমে ১৯৮৪ সালে গঠিত হয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি।

;

অভিনয়শিল্পী সংঘের নেতৃত্ব যাদের হাতে



বিনোদন রিপোর্ট, বার্তা ২৪.কম
নাসিম ও রওনক

নাসিম ও রওনক

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত অভিনয় শিল্পী সংঘের সভাপতি পদে জয়ী হয়েছেন আহসান হাবিব নাসিম আর সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন রওনক হাসান।

শুক্রবার রাত ১০টার দিকে এই ফলাফল ঘোষণা করেন শিল্পী সংঘের নির্বাচন কমিশনার অভিনেতা খায়রুল আলম সবুজ। এবারের নির্বাচনে তিন সহসভাপতি পদে জয়ী হয়েছেন আনিসুর রহমান মিলন, ইকবাল বাবু, সেলিম মাহবুব। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে জয়ী হয়েছেন নাজনীন হাসান চুমকী, জামিল হোসেন।

সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন সাজু খাদেম। অর্থ সম্পাদক পদে মুহাম্মদ নূর এ আলম (নয়ন), দপ্তর সম্পাদক শেখ মেরাজুল ইসলাম, অনুষ্ঠান সম্পাদক রাশেদ মামুন অপু, আইন ও কল্যাণ সম্পাদক পদে জয়ী হয়েছেন ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর।

প্রচার ও প্রকাশনা পদে প্রাণ রায়, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক হয়েছেন সুজাত শিমুল। সাত কার্যনির্বাহী সদস্য পদে জয়ী হয়েছেন শামস সুমন, আইনুন নাহার পুতুল, তানভীর মাসুদ, মাজনুন মিজান, আশরাফুল আশীষ, সূচনা সিকদার ও হিমে হাফিজ।

নির্বাচনে ৭৫২ জন ভোটারের মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৬৪৪ জন। নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে ২১ পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ৪৮ অভিনয়শিল্পী।

দিনভর অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন অভিনয়শিল্পী খায়রুল আলম সবুজ। কমিশনের সদস্য হিসেবে রয়েছেন নরেশ ভূঁইয়া ও মাসুম আজিজ।

;