বার্লিন ওয়ার্ল্ড সিনেমা ফান্ডের অধিবেশনে তহবিল জিতলেন রুবাইয়াত



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা ২৪.কম
ছবি: হাবিবা নওরোজ

ছবি: হাবিবা নওরোজ

  • Font increase
  • Font Decrease

‘মেহেরজান’ ও ‘আন্ডারকনস্ট্রাকশন’ নামে দুটি ছবি বানিয়ে প্রশংসা পান রুবাইয়াত হোসেন। এবার প্রকাশ করা হয়েছে বার্লিন ওয়ার্ল্ড সিনেমা ফান্ডের ৩৭তম অধিবেশনের অনুদান পাওয়া ছবির তালিকা। আগামী ছবি ‘দ্য ডিফিকাল্ট ব্রাইড’ নির্মাণের জন্য ৫০ হাজার ইউরো সহায়তা পাবেন বাংলাদেশের স্বাধীন ধারার নির্মাতা রুবাইয়াত হোসেন। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৫৩ লাখ টাকা।

প্রতিক্রিয়ায় পরিচালক রুবাইয়াত হোসেন জানান, এটা আমার জন্য অনেক আনন্দের সংবাদ। আমার সিনেমাটিকে বেছে নেওয়ায় কৃতজ্ঞ। প্রোডাকশন ফান্ডিং শাখায় বাংলাদেশের সিনেমা ছাড়াও ভেনেজুয়েলার সিনেমা ‘আই উইল মিউটেট লাইক আ জঙ্গল অ্যানিমেল’ জিতেছে ৫০ হাজার ইউরো, ৩০ হাজার করে জিতেছে ইরানের ‘লেটারস ফ্রম মিস ইরান’, আর্জেন্টিনার ‘লাভারস ইন দ্য স্কাই’ ও সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকের তথ্যচিত্র ‘লা ফাদ্যু’। ওয়ার্ল্ড সিনেমা ফান্ডে প্রোডাকশন ফান্ডিং বিভাগ ছাড়াও ওয়ার্ল্ড সিনেমা ফান্ড ইউরোপ, ওয়ার্ল্ড সিনেমা ফান্ড আফ্রিকা ও ওয়ার্ল্ড সিনেমা ফান্ড ডিস্ট্রিবিউশন বিভাগ থেকে তহবিল দেওয়া হয়ে থাকে।

এ পরিচালকের সর্বশেষ সিনেমা শিমু ( ‘Shimu’)। ফ্রান্স, ডেনমার্ক, জাপান, পর্তুগালসহ ১০টি দেশে এটি বাণিজ্যিকভাবে মুক্তি পেয়েছিল। ২০১৯ সালের টরন্টো ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ‘সমকালীন বিশ্ব চলচ্চিত্র’ শাখায়ও প্রদর্শিত হয়েছিল শিমু। স্টকহোম, এশিয়া প্যাসিফিক ছাড়াও বেশ কিছু উৎসবে বাংলাদেশ থেকে প্রতিনিধিত্ব করে প্রশংসা পেয়েছিল। চলতি বছর সিনেমাটি হলে মুক্তি পায়।

বার্লিন ওয়ার্ল্ড ফান্ডের জন্য চলতি বছর ৫১টি দেশ থেকে ১৭৬টি সিনেমা জমা পড়ে। সেগুলোর মধ্য থেকে ১১টিকে মনোনীত করেছেন বিচারকেরা। এই তালিকায় বাংলাদেশ ছাড়াও আছে আর্জেন্টিনা, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক, চাদ, কলম্বিয়া, ইরান, পেরু, তিউনিসিয়া ও ভেনেজুয়েলার সিনেমা। চূড়ান্ত নির্বাচনে প্রোডাকশন ফান্ডিং বিভাগে জায়গা করে নেয় ‘দ্য ডিফিকাল্ট ব্রাইড’।

 

গাঁটছড়া বাঁধলেন সিদ্ধার্থ-কিয়ারা



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
গাঁটছড়া বাঁধলেন সিদ্ধার্থ-কিয়ারা

গাঁটছড়া বাঁধলেন সিদ্ধার্থ-কিয়ারা

  • Font increase
  • Font Decrease

দীর্ঘ দিন চুটিয়ে প্রেম করার পর সাতপাকে বাঁধা পড়লেন বলিউডের তারকা জুটি সিদ্ধার্থ মালহোত্রা ও কিয়ারা আদভানি।মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) বিকালে রাজস্থানের জয়সালমীরের সূর্যগড় হোটেলে জাঁকজমক আয়োজনের মধ্য দিয়ে মালা বদল করেন তারা। এসময় দুই পরিবারের সদস্য ও ঘনিষ্ঠ বন্ধুরা উপস্থিত ছিলেন। ইন্ডিয়া টুডে এ খবর প্রকাশ করেছে।


নিউজ১৮ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গতকাল সন্ধ্যায় কিয়ারা-সিদ্ধার্থের সংগীত অনুষ্ঠান ছিল। এতে উপস্থিত ছিলেন শহিদ কাপুর, মরিা রাজপুত, করন জোহর, মনীশ মালহোত্রা প্রমুখ। বিয়ে রাজস্থানে হলেও বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে মুম্বাইয়ে। আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের দিন চূড়ান্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।


বিয়েতে অতিথিরা কোনো মুঠোফোন ব্যবহার করতে পারবেন না— হোটেল স্টাফরা এ ঘোষণা আগেই দিয়েছিলেন। এমনকী বিয়ের কোনো ছবিও অতিথিরা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করতে পারবেন না বলেও এ প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

শেরশাহ’ সিনেমার শুটিং সেট থেকেই প্রেমের সম্পর্কে জড়ান সিদ্ধার্থ-কিয়ারা। তারপর এ জুটির প্রেম-বিয়ে নিয়ে আলোচনা কম হয়নি। অবশেষে চার হাত এক হলো এই যুগলের।

;

‘ভাগ্য’ দেখতে পাবনার সিনেমা হলে নায়ক মুন্না



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
‘ভাগ্য’ দেখতে পাবনার সিনেমা হলে নায়ক মুন্না

‘ভাগ্য’ দেখতে পাবনার সিনেমা হলে নায়ক মুন্না

  • Font increase
  • Font Decrease

বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় নায়ক মাহবুবুর রশিদ মুন্না নিজ জেলা পাবনা শহরের ঐতিহ্যবাহী রূপকথা সিনেমা হল পরিদর্শন করেছেন। নতুন মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ভাগ্য’ সিনেমায় জনপ্রিয় নায়িকা নিপুণ নায়ক মুন্নার বিপরীতে অভিনয় করেছেন।

রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে স্থানীয় ওই প্রেক্ষাগৃহে প্রবেশ করেন তিনি । পরে দর্শক সারিতে বসে নিজের অভিনীত সিনেমা দেখেন ওই নায়ক। তার আগমনের খবরে প্রেক্ষাগৃহ প্রাঙ্গণে উপস্থিত ভক্ত ও দর্শক তাকে ফুলের শুভেচ্ছা জানান। এ সময় দর্শকদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ভাগ্য’ ছায়াছবির নায়ক।

দেশের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে একযোগে এই বাংলা ছায়াছবি প্রর্দশন চলছে। দর্শক বিমুখ দেশের বাংলা চলচ্চিত্রের নতুন দীগন্ত উন্মোচন করতে সব শ্রেণী-পেশার মানুষের জন্য এই সামাজিক বাংলা সিনেমা দর্শকদের আবারও হলমুখী করবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

প্রেক্ষাগৃহ পরিদর্শন সময়ে নায়ক মুন্না বলেন, দীর্ঘদিন পরে আবারও বাংলা চলচ্চিত্রের জাগরণ ঘটেছে। দেশের বেশিরভাগ প্রেক্ষাগৃহ ভালো সিনেমা মুক্তি না হওয়ার কারণে দর্শক ধরে রাখতে পারছে না। আমরা চেষ্টা করছি ভালো গল্প নিয়ে সামাজিক সিনেমা নির্মাণের। সব শ্রেণী-পেশার মানুষের জন্য দর্শকদের জন্য সিনেমা তৈরি করছি আমরা।

দেশপ্রেম ও সামাজিক গল্প নিয়ে নির্মিত সিনেমাটিতে আরও অভিনয় করেছেন মাসুম আজিজ, গুলশান আরা, সাংকো পাঞ্জা, জেসমিন, আফসানা নূপুর, গাঙ্গুয়া, সাবিহা জামানসহ আরও অনেকে।

এর আগে উত্তম আকাশ পরিচালিত ‘ধূসর কুয়াশা’ সিনেমায় জুটিবদ্ধ হয়েছিলেন নিপুণ ও মুন্না। সিনেমাটি ২০১৮ সালেমুক্তি পায়।

;

প্রশংসায় ভাসছেন সজল



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
প্রশংসায় ভাসছেন সজল

প্রশংসায় ভাসছেন সজল

  • Font increase
  • Font Decrease

এ যেন বার বার নতুন করে ফিরে আসা। বলা হচ্ছে ছোটপর্দার বড় তারকা আব্দুন নূর সজল-এর কথা। গত ২০ বছরে নিজেকে বারবার ভেঙেছেন, গড়েছেন। ভিউ আর ট্রেন্ডিংয়ের যে বাজার, সেখানে অভিনয় দিয়ে বার বার প্রমাণ করছেন এই তারকা।

৩০ জানুয়ারি মুক্তি পেয়েছে তার অভিনীত নতুন ওয়েব সিরিজ ‘দ্য সাইলেন্স’। সময়ের অন্যতম আলোচিত তরুণ নির্মাতা ভিকি জাহেদ এটি নির্মাণ করেছেন। প্রকাশের পর আবার আলোচনায় এসেছেন সজল। সহকর্মীসহ অনেকেই তাঁর অভিনয় নিয়ে প্রশংসা করেছেন । তাঁর মধ্যে অন্যতম গুণী অভিনেত্রী ডলি জহুর। তিনি ফেসবুকে দীর্ঘ স্ট্যাটাসে জানিয়েছেন সজল কতটা সাবলীল ছিলেন সিরিজটিতে। সেই সঙ্গে অভিনেতার চরিত্রটি দেখে ভয় পেয়েছেন তিনি, তা-ও জানালেন।

‘দ্য সাইলেন্স’ সিরিজে নিজের চরিত্রটি নিয়ে সজল বলেন, সিরিজটি প্রচারের পর থেকে দারুণ রেসপন্স পাচ্ছি। সবাই আমার চরিত্রটি দেখে অবাক হয়েছেন বলে জানাচ্ছেন। অনেকে বলছেন ভয় পাওয়ার কথা। কেউ কেউ ইবলিশ বলে ডাকছেন মজা করে। আমি কিন্তু উপভোগ করছি সবার মন্তব্য। কারণ এগুলোই কাজের ফিডব্যাক, প্রেরণা। তিনি যোগ করে আরও বলেন, অনেকের ফোন কল পেয়েছি । সিনিয়র অভিনয়শিল্পীর ফোন কল পাওয়ার বিষয়টি সত্যি একটা সারপ্রাইজ ছিল। পরিচালক ভিকি জাহেদকে ধন্যবাদ চমৎকার গল্প ও চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ করে দেওয়ায়।

থ্রিলারধর্মী নির্মাণে তিনি নজর কেড়েছেন। তার ‘দ্য সাইলেন্স’ সিরিজে শিবলী চরিত্রে অভিনয় করেছেন সজল। এ চরিত্রের জন্য সিরিজটি মুক্তি পেতেই দর্শকের প্রশংসায় ভাসছেন অভিনেতা।

সজল ছাড়াও দ্য সাইলেন্স সিরিজে অভিনয় করেছেন মেহজাবীন চৌধুরী, শ্যামল মাওলা, আজিজুল হাকিম, বিজরী বরকত উল্লাহ প্রমুখ।

;

চার হাত এক হচ্ছে সিদ্ধার্থ-কিয়ারার



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাকি আর মাত্র দুই দিন। আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি চার হাত এক হতে চলেছে বলিউড বর্তমান সময়ের অত্যন্ত জনপ্রিয় জুটি সিদ্ধার্থ মালহোত্রা ও কিয়ারা আদভানির। সেই ‘শেরশাহ’র সময় থেকে চর্চায় এই জুটি। তাই তাদের বিয়ের খবরে মুখে হাসি ফুটেছে সবার।

আর এই বিয়েকে ঘিরে আমন্ত্রিত অতিথিদের জন্য জবরদস্ত বন্দোবস্ত করেছেন সিদ্ধার্থ-কিয়ারা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, তারকা জুটির বিয়ে হবে রাজস্থানের জয়সলমেরের জনপ্রিয় প্রাসাদ সূর্যগড়ে। অল্প কয়েকজন অতিথি নিমন্ত্রিত থাকলেও সবকিছুই হবে ধামাকার সঙ্গে। অতিথি তালিকায় নাম আছে করণ জোহর, ইশা আম্বানিদের।

বিয়ে উপলক্ষ্যে সূর্যগড় প্যালেসের প্রায় ৮০টি ঘর বুক করা হয়েছে ১০০ অতিথির জন্য। হাই প্রোফাইল অতিথিদের কথা মাথায় রেখে বুকিং করা হয়েছে ৭০টি বিলাসবহুল গাড়িও। যার মধ্যে রয়েছে মার্সিডিজ, জাগুয়ার থেকে বিএমডব্লিউর মতো নামিদামি ব্র্যান্ডের গাড়ি।

ইশা আম্বানির ছোট বেলার বন্ধু অভিনেত্রী কিয়ারা। যদিও তখন তার নাম ছিল আলিয়া। বলিউডে আসার আগে নিজের নাম বদলে কিয়ারা রাখেন। আর সিদ্ধার্থের সঙ্গে সম্পর্কে অনুঘটকের কাজ করেছেন পরিচালক-প্রযোজক করণ জোহর। তাই হাজার হোক তাকেও বাদ দেওয়া যায় না!

যদিও বিয়ে নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন বর-কনে। প্রেম নিয়েও খুল্লামখুল্লা কথা বলেননি সেভাবে। একাধিক সাক্ষাৎকারে একে-অপরের প্রতি ভালোলাগা হয়তো জাহির হয়েছে, তবে তার থেকে প্রেমের কথা আসেনি। এদিকে বেশিরভাগ সময় সিদ্ধার্থের নাম উঠলেই কিয়ারার চেহারারা লাল আভা বুঝিয়ে দিয়েছে একে-অপরকে চোখে হারাচ্ছেন।

সোশ্যাল মিডিয়াতেও বর্তমানে ট্রেন্ড করছেন এই জুটি। ‘শেরশাহ’র রিল লাইফের প্রেম রিয়েল লাইফে বিয়ে করছে এই খবর পেয়ে অনেকেই আনন্দে আত্মহারা। কেউ মনে করছেন, ক্যাপ্টেন বিক্রম বাত্রার (শেরশাহতে যে বাস্তব চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন সিদ্ধার্থ) আশীর্বাদও রয়েছে তাদের মাথার উপর।

বলিউডের অন্দরের খবর, ‘শেরশাহ’ ছবিতে কাজ করার সময়ই একে-অপরের কাছাকাছি আসেন সিদ্ধার্থ-কিয়ারা। মাঝে দুজনের আলাদা হয়ে যাওয়ার খবরও শোনা গিয়েছিল। সেই ঝামেলাও মিটিয়েছিলেন সিদ্ধার্থের প্রথম ছবির প্রযোজক করণ জোহর। বছর দুই প্রেমের পর এবার বিয়ে।

;