‘মা নিতে এসেছেন’-মৃত্যুর আগ মুহূর্তে ইরফান

বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মা সাইদা বেগমের সঙ্গে ইরফান খান

মা সাইদা বেগমের সঙ্গে ইরফান খান

  • Font increase
  • Font Decrease

না ফেরার দেশে পারি জমিয়েছেন বলিউড অভিনেতা ইরফান খান। বুধবার (২৯ এপ্রিল) দিনগত রাত ১টার দিকে মুম্বাইয়ের কোকিলাবেন ধিরুবাই আম্বানি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৫৩ বছর।

এদিকে, গত ২৫ এপ্রিল ইরফানের মা সাইদা বেগম জয়পুরে মারা গেছেন। সারা ভারত লকডাউন কারণে তাকে সামনে থেকে শেষবারের মতো দেখা হয়নি তার। ভিডিও কলের মাধ্যমে মাকে শেষ শ্রদ্ধা জানান তিনি।

মায়ের কাছে যাওয়ার একটু বেশিই তাড়া হয়তো ছিলো ইরফান খানের। তাইতো মৃত্যুর শেষ সময় পর্যন্ত মায়ের কথা স্মরণ করে গিয়েছেন বলিউডের এই অভিনেতা।

ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা গেছে- ইরফান খানের মৃত্যুর আগে তার সঙ্গে আইসিইউতে ছিলেন তার স্ত্রী সুতপা, ছেলে বাবিল, সাবেক ম্যানেজার আসিফ এবং ড্রাইভার।

এসময় নাকি ৫৩ বছর বয়সী এই তারকা স্ত্রীকে বলেছিলেন- “এখন আমার বিশ্বাস হয়ে গেছে যে আমি একেবারেই হেরে গিয়েছি। এই ঘরের মধ্যে রয়েছেন মা। তিনি আমাকে নিতে এসেছেন। দেখো আমার পাশে বসে রয়েছেন।”

এ বছর ‘অ্যাংরেজি মিডিয়াম’ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় ফিরেছেন ইরফান। তবে এর প্রচারণা করতে পারেননি তিনি। কিন্তু সেসময় একটি অডিওবার্তা শেয়ার করেছিলেন বলিউডের এই অভিনেতা। যেখানে তিনি বলেছিলেন- “হ্যালো ভাই ও বোনেরা নমস্কার আমি ইরফান। আমি আজ আপনাদের সঙ্গে আছি আবার নেই। বাদ দিন সেসব। ‘অ্যাংরেজি মিডিয়াম’ ছবিটি আমার জন্য অনেক বিশেষ। বিশ্বাস করুন আমার খুব ইচ্ছে ছিলো যে ভালোবাসা দিয়ে ছবিটি তৈরি করা হয়েছে সে ভালোবাসা দিয়ে এটি প্রচারণা করার। কিন্তু আমার শরীরের মধ্যে কিছু অনাকাঙ্খিত মেহমান বসে রয়েছে। তাদের সঙ্গে কথাবার্তা চলছে। যখনই তাদের সঙ্গে আলোচনা শেষ হবে আপনাদের জানিয়ে দেওয়া হবে।”

যোগ করে এই অভিনেতা আরও বলেছিলেন- “কথায় আছে যখন জীবন তোমাকে লেবু দিবে তখন সেটি দিয়ে লেমোনেট বানিয়ে ফেলো। বলতে ভালোই লাগে। কিন্তু সত্যি সত্যি যখন জীবন আপনার হাতে একটি লেবু ধরিয়ে দেবে সেটি দিয়ে সিকাঞ্জি (শরবত) বানানো অনেক মুশকিল হয়ে যায়। তবে পজিটিভ থাকা ছাড়া আমাদের কাছে আর কী আছে বলুন। এই অবস্থায় লেবুর সিকাঞ্জি বানাতে পারেন কি পারেন না সেটি আপনার উপর নির্ভর করে। আর আমরা সকলে এই ছবিটিকে ওই পজিটিভিটির সঙ্গেই নির্মাণ করেছি। আমার বিশ্বাস এটি আপনাকে শেখাবে, হাসাবে, কাঁদাবে আবার হাসাবে হয়তো। হ্যাঁ আমার জন্য অপেক্ষা করবেন।”

আপনার মতামত লিখুন :