করোনাকালে চট্টগ্রামে আশাবাদী আল মানাহিল হাসপাতাল



মায়াবতী মৃন্ময়ী, কন্ট্রিবিউটিং করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
চট্টগ্রামে আল মানাহিল হাসপাতাল আশার আলো ছড়াচ্ছে। বার্তা২৪.কম

চট্টগ্রামে আল মানাহিল হাসপাতাল আশার আলো ছড়াচ্ছে। বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

পুরো নাম আল মানাহিল নার্চার জেনারেল হাসপাতাল। স্থানীয় এলাকাবাসী এতো বড় নাম সচরাচর বলতে পারেন না। এলাকাবাসীর কাছে প্রতিষ্ঠানটি পঙ্গু হাসপাতাল নামে পরিচিত। চট্টগ্রামের উত্তর হালিশহরে ফুল চৌধুরী পাড়া, বি-ব্লকের পর রেললাইনের পাশে হাসপাতালটি অবস্থিত। ( ফোন: ০১৮৪২২৭৩২৮০, গুগল ম্যাপ লিংক: https://g.co/kgs/pzDMtKm) করোনাকালে স্বাস্থ্যসেবা ও চিকিৎসায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে এই সেবামূলক হাসপাতাল।

করোনা মহামারিকালীন সময়ে আল মানাহিল ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবকেরা মানাহিলের অ্যাম্বুলেন্সে করে হাসপাতালে পৌঁছে দিতে থাকে রোগীদের। হাসপাতালে পৌঁছে দিতে গিয়ে রোগীদের নানা দুর্ভোগ দেখতে পান ফাউন্ডেশনের সদস্যরা। কোনো হাসপাতাল রোগীদের ভর্তি করাচ্ছে না তো অন্য কোথাও ভর্তি জটিলতার জন্য রোগীকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা এ্যাম্বুলেন্সে অপেক্ষা করতে হয়েছে। অনেক সময় হাসপাতালে ধারণক্ষমতার বেশি রোগী থাকায় রোগী নিয়ে স্বেচ্ছাসেবকদের রাস্তায় রাস্তায় ঘুরতে হয়েছে ঘন্টার পর ঘন্টা। সে সময়, এ্যাম্বুলেন্সে রোগীর ধুঁকে ধুঁকে মৃত্যুর দিকে ধাবিত হওয়ার করুণ সব দৃশ্য অবলোকন করতে হয়েছিল। রোগীদের এসব কষ্ট দেখেই করোনা ডেডিকেটেড একটি হাসপাতাল চালুর পরিকল্পনা মাথায় আসে আল মানাহিলের নীতি-নির্ধারকদের। যা এখন চট্টগ্রামে আশার আলো ছড়াচ্ছে।

মানুষও নানাভাবে সাহায্য করছে এই জনমুখী হাসপাতালকে। সামর্থ্যের অতীত রোগী নিয়ে যখন হিমশিম খাওয়ার অবস্থা তখন জানতে পেরেই প্রাক্তন রোগীর পরিবারের পক্ষে ২ হাজার মাস্ক নিয়ে হাজির শিপন সাহেব। উল্লেখ্য, শিপন সাহেবের ৯৫ বছর বয়েসী আব্বা এবং ৮৫ বছর বয়েসী আম্মা Al Manahil Nurture General Hospital-এ দীর্ঘ চিকিৎসা নেবার পর মাশাআল্লাহ্ দু'জনই সম্পূর্ণ সুস্থ। তাঁর আব্বা এখন নিজে হেঁটে হেঁটে প্রতিওয়াক্ত নামাজ মসজিদে আদায় করেন।

মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর একনিষ্ঠ অনুসারী, কিশোরগঞ্জের ভাটী অঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী পরিবারের সন্তান এবং কর্মজীবনে চট্টগ্রামের উজ্জ্বল নক্ষত্র মরহুম ব্যারিস্টার সলিমুল হক খান মিল্কির কন্যা নাসরিন বাকী’র দানকৃত হাসপাতালের অবকাঠামোর মধ্যে করোনা রোগীদের জন্য একটি উন্নতমানের আইসলেশন সেন্টার গড়া হয়েছে, যেখানে হাই-ফ্লো ন্যাসাল ক্যানুলাসহ রোগীদের জন্য নিরবিচ্ছিন্নভাবে অক্সিজেন দেওয়ার জন্য সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন স্থাপন করতে সক্ষম হয়েছে ফাউন্ডেশন। ২০২০ এর জুলাই মাস হতে আল মানাহিল নার্চার জেনারেল হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হয়।

এর আগে, একটি মানবিক হাসপাতাল গড়ে তোলার প্রত্যয়ে কুতুবুল আজম আল্লামা শাহ জমির উদ্দিন নানুপুরী রাহিমাহুমুল্লাহ ১৯৯৮ সালে ফটিকছড়িতে প্রতিষ্ঠা করেন আল মানাহিল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ (Al Manahil Foundation - আল মানাহিল), যা স্বাস্থ্যসেবায় জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে প্রত্যেক সন্তানসম্ভবা মা-বোনের স্বপ্ন তথা নিরাপদ মাতৃত্ব ও প্রসবকালীন সময়ে সুন্দর এবং আন্তরিক পরিবেশ নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর। সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দেয়ার লক্ষ্যে স্বল্প খরচে ও আন্তরিক ব্যবহার দ্বারা একদল বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, মানবিক ও প্রশিক্ষিত মহিলা স্বাস্থ্যকর্মীর মাধ্যমে ইসলামী শর’য়ী পর্দা রক্ষা করে সর্বোৎকৃষ্ট মেটারনিটি চিকিৎসা তথা বিশেষ করে ‘নরমাল ডেলিভারি’ ব্যবস্থাপনার উপর প্রাধান্য দিয়ে কার্যক্রমমূলক চিন্তাধারার প্রতিফলনই হল আল মানাহিল নার্চার জেনারেল হাসপাতাল, যা এখন অনেক প্রসারিত ও করোনা সঙ্কট মোকাবেলায় অগ্রণী প্রতিষ্ঠান।

বর্তমানে এর চেয়ারম্যান মাওলানা হেলাল উদ্দিন জমিরউদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ এস এন কিবরিয়া ও মাওলানা শিহাবউদ্দিন জমিরউদ্দিন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ ফরিদউদ্দিন জমিরউদ্দিন, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডাঃ মোসলেহ উদ্দিন চৌধুরী ও আবুল কালাম আজাদ এবং জেনারেল ম্যানেজার ইসমাইল চৌধুরী। নিখাদ সততা, একনিষ্ঠ উদ্যোগ আর বিশুদ্ধ উদ্দেশ্য চট্টগ্রামে আল মানাহিল হাসপাতালকে স্বল্পদিনেই সকলের আস্থা, বিশ্বাস ও ভালোবাসার প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছে।

হাসপাতাল সংশ্লিষ্টরা বার্তা২৪.কমকে জানান, আল্লাহর রহমতে করোনার কঠিন শ্বাস বন্ধ হয়ে যাওয়া দিনগুলোতে প্রতিদিন অসংখ্য রোগীর ফুসফুসে অক্সিজেন পৌঁছে দেয়ার সৌভাগ্য আল্লাহ্ আমাদের দিয়েছেন। গভীর ক্লান্তিকর রাতে যখন অক্সিজেন মাস্কটি কোনো বনি আদমের মুখে পরিয়ে দিই তখনই উজ্জ্বল হয়ে ওঠে দমবন্ধপ্রায় মানুষটির চেহারা মোবারক। আপন মনেই খোদার দরবারে শুকরিয়া জানান তাঁর প্রিয়জন। এরচেয়ে ভালো মুহুর্ত আর হতে পারে? হে আল্লাহ্, ভুলত্রুটি মাফ করে আমাদের খেদমতগুলো কবুল করে নিন। ধৈর্যশীল ও মানবিক থাকার পরীক্ষায় পাস করিয়ে দিন। দিনরাত ২৪ ঘন্টা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করুন ০১৮৪২২৭৩২৮০ নম্বরে।