ইতালির মূলধারার রাজনীতিতে প্রবাসী মুক্তার হোসেন



ইসমাইল হোসেন স্বপন, ইতালি প্রতিনিধি, বার্তা২৪.কম, ইতালি
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

পৃথিবীর অন্যতম সুন্দর ও উন্নত দেশ ইউরোপের ইতালি। ইউরোপের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও শিল্প-সংস্কৃতির এক অনন্য তীর্থভূমিও এটি। ইউরোপের অত্যন্ত রক্ষণশীল রাজনৈতিক কাঠামোর দেশের নামও ইতালি।

ইতালির বিভিন্ন শহরে প্রায় দুই লাখেরও বেশি প্রবাসী বাংলাদেশী বাস করে। এইসব প্রবাসীদের মাঝে রাজনৈতিক আগ্রহের কারণে ইতালির প্রতিটা শহরে রয়েছে বাংলাদেশী মূলধারার রাজনৈতিক সংগঠন। বাংলাদেশের প্রধান রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ, বিএনপির মতো দলগুলোর কমিটি বেশ সরব রয়েছে ইতালিতে। কিন্তু ইতালিতে বাংলাদেশী কমিউনিটির অবস্থান দীর্ঘদিন হলেও ইতালির মূলধারার বা স্থানীয় রাজনীতিতে বাংলা কমিউনিটির অবস্থান খুব নাজুক।

তবে ইতিমধ্যে ইতালির মূলধারার রাজনীতিতে কাজ করে যাচ্ছে বাংলা কমিউনিটির বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গরা। ইতালিয় পাসপোর্টধারী রয়েছেন যারা দেশটির মূলধারার রাজনীতির সঙ্গে তাদের সম্পৃক্ততা লাভের সক্ষমতা রয়েছে। ইতালির মূলধারার রাজনীতিতে কাজ করে যাচ্ছে বাংলা কমিউনিটির অনেকেই। তাদের মধ্যে অন্যতম একজন ডঃ মোঃ মুক্তার হোসেন। যিনি বেশ কয়েক বছর ধরে দেশটির নানা গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় বিভিন্ন পর্যায়ে কাজ করে আসছেন।

বাংলাদেশ এবং কমিউনিটিকে স্থানীয় রাজনীতির সাথে সম্পর্কিত করতে তার নিজস্ব কার্যালয় ভিয়া ম্যাকিয়াভেলি ১৩-এ তে কমুনে দি রোমার অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ খেলাধুলা ও সংস্কৃতি বিষয়ক ভারপ্রাপ্ত কমিশনার যাকে ইতালি ভাষায় আস্সেস্সরে বলা হয় তিনি এবং লাঝিও রিজিয়নের প্রেসিডেন্টের অন্যতম রাজনৈতিক সমন্বয়ক এডভোকেট গুস্তাভো পাভনে ও রেনঝি সরকারের সাবেক মন্ত্রী এবং ইউরোপীয়ান পার্লামেন্টের বর্তমান সদস্য কালেন্দা কার্লোর বিশেষ প্রতিনিধি রেজিওনে দি লাঝিওর প্রকৌশলী জুসেপ্পে সার্দোনে, ফেদেরাঝিওনে দেইলি আগ্রিকলতোরি ইতালিয়ানা (ইতালিয়ান আগ্রিকালচারাল ফেডারেশন) প্রেসিডেন্ট ড. আন্তনিও গ্রিয়েচি একটি বিশেষ সাক্ষাৎকারে মিলিত হন।

এ সময়ে আমন্ত্রিত অতিথিরা ইতালির রাজধানী রোম শহরে বিশেষ করে কমুনে দি রোমার এলাকায় বসবাসরত বিদেশিদের মধ্যে তৃতীয় বৃহত্তম কমিউনিটি বাংলাদেশ কমিউনিটির বিভিন্ন স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে বিশদভাবে আলোচনা করেন। তার মধ্যে বিভিন্ন শ্রেণীর চাকুরীজীবী এবং বিভিন্ন শ্রেণীর ক্ষুদ্র মাঝারি ও বৃহৎ ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা সমূহ এর সম্ভাব্য সমাধান নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এছাড়াও কমিউনিটির বসবাসরত বাংলাদেশীদের পরিবারগুলো তাদের বিভিন্ন ধরনের সামাজিক সেবা সমূহ তাদের সন্তানদের স্কুলে পড়াশোনা ও বিভিন্ন বিনোদন মূলক কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ ইত্যাদি বিষয়েও আলোচনা করা হয়।

উল্লেখ্য, আসন্ন ২০২১ কমুনে দি রোমার নির্বাচনকে সামনে রেখে আলোচকরা স্থানীয় রাজনীতিতে বাংলাদেশ কমিউনিটির সরাসরি অংশগ্রহণ এবং এর মাধ্যমে বাংলাদেশ কমিউনিটির বিভিন্ন স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোকে প্রশাসনের একেবারে গভীরে পৌঁছানো ও এর সমাধানে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়ে ঐক্যমত পোষণ করেন।