ভ্রমণ স্বর্গরাজ্যে ‘সস্তায় খাটছেন’ বাংলাদেশিরা!



মানসুরা চামেলী, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

মালদ্বীপ ঘুরে: হুলুমালে দ্বীপ, হোয়াইট বিচে একা দাঁড়িয়ে সেলফি তুলছিলাম। পাশ দিয়ে একজন যেতেই ‘এক্সকিউস মি, প্লিজ টেক এ পিকচার....’। সঙ্গে সঙ্গে দাঁড়িয়ে গেলেন; ছবি তোলা শেষে জানা গেল যার কাছে ছবি তুলে নিলাম তিনি আমার স্বদেশি বাংলাদেশি।

মালদ্বীপের কোনো একটা আইল্যান্ডে গেলেন, মুদি দোকানে যাবেন, সুপার শপে, কাঁচা বাজার- যেখানেই যাবেন বাংলাদেশি কর্মীর দেখা পাবেন। মালেতে রাস্তায় দাঁড়িয়ে যে ডাব কাটছেন বা সড়কে হাঁটতে গিয়ে কারো সঙ্গে টক্কর খেলেন- একটু আলাপ হলে বুঝবেন তিনিও বাংলাদেশি।

মালদ্বীপে বাংলাদেশি অভিবাসীর সংখ্যা প্রায় এক লাখ।

মালদ্বীপের ১২’শ দ্বীপের বসবাসযোগ্য ২০০ দ্বীপেই ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে বৈধ এবং অবৈধ বা অনিয়মিত বাংলাদেশি কর্মীরা। মালদ্বীপ সরকারের সবশেষ জরিপের তথ্যানুসারে- দেশটিতে সাড়ে পাঁচ লাখের কিছু বেশি জনসংখ্যা। ওদিকে বাংলাদেশ হাইকমিশন, মালদ্বীপের তথ্যে জানা যায়- মালদ্বীপে বাংলাদেশি অভিবাসীর সংখ্যা প্রায় এক লাখ। তবে এর মধ্যে ৫০ হাজারই অবৈধ বা অনিয়মিত। আর এই অনিয়মিত শ্রমিকরাই দিন-রাত সস্তায় খাটছেন ভ্রমণ স্বর্গরাজ্য মালদ্বীপে। নানা প্রতিকূলতার মধ্যেই টিকে থাকার লড়াই করে যাচ্ছেন তারা। বেতন-ভাতা নিয়ে অভিযোগ রয়েছে নিয়মিত কর্মীদেরও।

আরও পড়ুন: জল ডুবুডুবু নীল দেশ মালদ্বীপ!

মালদ্বীপে অবস্থানরত বাংলাদেশি কর্মীরা জানান, মালদ্বীপে নিয়মিত-অনিয়মিত সব বাংলাদেশি শ্রমিকদের মজুরি কম দেওয়া হয়। বিশেষ করে করোনাকালে এখানে বঞ্ছনার সীমা ছিল না। প্রচুর কর্মী ছাঁটাই করা হয়েছে। অনেকেই ফিরে গেছেন দেশে। কেউ কেউ মুখ বুজে টিকে থাকার লড়াই এখনও চালিয়ে যাচ্ছেন।

এখন সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত কাজ করে মাসে বাংলাদেশি ২০ হাজার টাকা পান।

এমন একজন শ্রমিক ফায়েজুল ইসলাম (ছদ্মনাম)। অস্বচ্ছল পরিবারের সন্তান ফায়েজুল পরিবারের স্বচ্ছল জীবনের আশায় প্রায় ২ লাখ ৭০ হাজার টাকা খরচ করে মালদ্বীপে আসেন। আইল্যান্ড এক্সপার্ট নামে একটা কোম্পানিতে ৪০ হাজার টাকায় (বাংলাদেশি) কাজ শুরু করেন। কিন্তু কয়েক মাস ভালো যাওয়ার পর হঠাৎ করেই বেতন বন্ধ করে দেয় কোম্পানিটি। করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়ালে থাই কোম্পানিটি বাংলাদেশি ১০০ শ্রমিকসহ ৭০০ কর্মীর বেতন না দিয়ে বন্ধ করে দেয়।

আরও পড়ুন: নীলাকাশ থেকে নেমেই নীল জলের অভ্যর্থনা!

এরপর থেকে ফায়েজুলের জীবনে নেমে আসে ঘোর অন্ধকার। বহু কষ্টে স্টেশনারির দোকানে কর্মচারী হিসেবে কাজ করেন। এখন সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত কাজ করে মাসে বাংলাদেশি ২০ হাজার টাকা পান।

শুধু আমি একা নই, এখানে অনেক বাংলাদেশি কষ্টে আছেন।

ফায়েজুল বার্তা২৪.কমকে বলেন, বহু কষ্টে ছিলাম। যারা নিয়ে এসেছিলো তারা প্রতারণা করেছে। বাংলাদেশে থাকতে যে বেতনের প্রতিশ্রুতি দেয় এখানে এসে অনেক কম সেটা। শুধু আমি একা নই, এখানে অনেক বাংলাদেশি কষ্টে আছেন।

জুয়েল (ছদ্মনাম) নামে এক কর্মী জানান, এখানে বাংলাদেশিরা অনিয়মিত হওয়ার কারণে সবচেয়ে সস্তা শ্রমিক বাংলাদেশিরা। এখানে অনিয়মিত শ্রমিকরা অনেক ছোট ছোট কাজও করছেন। কেউ কেউ দৈনিক লেবার হিসেবেও কাজ করছেন। এতে যারা মাসিক বেতনে চাকরি করেন তাদের থেকেও ভালো উপার্জন করতে পারেন।

এদিকে বাংলাদেশ হাইকমিশন মনে করেন মালদ্বীপের পর্যটনের বিকাশে বাংলাদেশি শ্রমিকদের অনেক অবদান। দেশটিতে মোট প্রবাসী কর্মীর ৭০ ভাগই বাংলাদেশি। এত কম বেতনে অন্য কোনো দেশের শ্রমিক পাওয়া যায় না। এ কারণে কোম্পানিগুলো চায় বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিতে। কিন্তু মালদ্বীপ সরকারের নীতির কারণে এটা হচ্ছে না।

এক বছর আগে দ্বীপরাষ্ট্রটির সরকার অবৈধ নাগরিকদের বৈধ হওয়ার সুযোগ দিয়েছে।

সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিয় এক সভায় মালদ্বীপে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রিয়ার এডমিরাল নাজমুল হাসান বলেন, ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে এক বছরের জন্য বাংলাদেশ থেকে অদক্ষ শ্রমিক নেওয়া সাময়িকভাবে বন্ধ করেছিল মালদ্বীপ সরকার। তবে সময়সীমা পার হলেও এখনও বাংলাদেশিদের ওয়ার্ক পারমিট দেওয়া হচ্ছে না। তবে যেমন নার্স, ডাক্তারসহ কিছু দক্ষ শ্রমিক মালদ্বীপ নিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এক বছর আগে দ্বীপরাষ্ট্রটির সরকার অবৈধ নাগরিকদের বৈধ হওয়ার সুযোগ দিয়েছে। ওই সময় প্রায় ৪০ হাজার অনিয়মিত বাংলাদেশি কর্মী নিবন্ধিত হয়েছেন। তবে প্রক্রিয়া এখনও শেষ না হওয়ায় তারা বৈধতা পাননি। আমরা এই কার্যক্রম এগিয়ে নেওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছি। আশা করছি খুব দ্রুত আবারও নিবন্ধনের এই প্রক্রিয়া শুরু হবে।

মালদ্বীপে হতে পারে বাংলাদেশের জন্য বড় শ্রম বাজার- বলে জানান প্রবাসী বাংলাদেশিদের সংগঠন বাংলাদেশ কমিউনিটি ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মীর সাইফুল ইসলাম।

তিনি বার্তা২৪.কম বলেন, সরকারের আন্তরিক চেষ্টা থাকলে মালদ্বীপ হবে বাংলাদেশের বড় শ্রম বাজার। এখানে বাংলাদেশিদের অনেক চাহিদা। বৈধভাবে নিলেও বাংলাদেশি কর্মীদের তারা কম বেতন পাবেন। মালদ্বীপ সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে বাংলাদেশ সরকারের উচিত মালদ্বীপে অনিয়মিত বাংলাদেশি কর্মীদের পাশে দাঁড়ানো।

প্রধানমন্ত্রীর সফর, বাংলাদেশিদের প্রত্যাশা

সম্প্রতি মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফয়সাল নাসিম বাংলাদেশ সফর করে গেছেন। শোনা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মালদ্বীপ সফরকে কেন্দ্র করে ভাইস প্রেসিডেন্টের বাংলাদেশ ঘুরে যাওয়া। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর মালদ্বীপ সফরের গুঞ্জন শুরু হতে আশায় বুক বাঁধছেন বাংলাদেশি কর্মীরা। এই সফরের মাধ্যমে নতুন করে ওয়ার্ক পারমিট চালু হবে।

প্রধানমন্ত্রীর সফরের চূড়ান্ত দিন-তারিখ এখনও ঠিক হয়নি বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রদূত রিয়ার এডমিরাল নাজমুল হাসান। তবে প্রধানমন্ত্রীর সফরে ওয়ার্ক পারমিটের বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন সফরে প্রাধান্য পাবে বলে জানান রাষ্ট্রদূতও।

রিয়ার এডমিরাল নাজমুল হাসান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সফরে যেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে বলে আশা করছি, তার মধ্যে প্রথমত হল দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যিক সম্পর্কের উন্নয়ন। বাংলাদেশ থেকে অদক্ষ কর্মী আনার নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী আলোচনা করবেন। নতুন শ্রমিক আনার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার ও অনিয়মিত শ্রমিকদের নিয়মিতকরণের জন্য সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে একাধিকবার বলা হয়েছে। আমাদের বিশ্বাস, প্রধানমন্ত্রী যখন সরাসরি এদেশের রাষ্ট্রপতিকে অনুরোধ করবেন, তখন তারা নিশ্চয়ই বিষয়টিও গুরুত্বের সঙ্গে দেখবে।

এদিকে রাষ্ট্রদূত জানান, খুব শিগগিরই মালদ্বীপে থাকা বাংলাদেশি কর্মীদের টাকা পাঠানোর বিষয়টি সুরাহ করতে বাংলাদেশের একটি পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে। এখানে আমাদের নিজস্ব একটা ব্যাংক থাকলে কর্মীদের অনেক সুবিধা হবে। তারা লাভবান হবে। অর্থ পাঠানোর খরচও কমে যাবে।

গোলাপগঞ্জে ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সংবর্ধনা 



কবির আল মাহমুদ, স্পেন
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

গোলাপগঞ্জ সাংবাদিক কল্যাণ সমিতির প্রতিষ্ঠাকালীন সহ সভাপতি ও ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কবির আল মাহমুদের স্বদেশ আগমন উপলক্ষে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) রাত ৯টায় গোলাপগঞ্জ সাংবাদিক কল্যাণ সমিতির কার্যালয়ে এ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সমিতির সভাপতি ও গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি অজামিল চন্দ্র নাথের সভাপতিত্বে এবং সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সদস্য সাকিব আল মামুনের সঞ্চালনায় সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্য রাখেন গোলাপগঞ্জ সাংবাদিক কল্যাণ সমিতির প্রতিষ্ঠাকালীন সহ সভাপতি ও ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কবির আল মাহমুদ।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি রতন মনী চন্দ, নির্বাহী সদস্য দীনেশ দেবনাথ, সমিতির সহ সভাপতি ইমরান আহমদ, নির্বাহী সদস্য এম এ রাজ্জাক, সদস্য শান্ত দাস প্রমুখ।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমিতির যুগ্ম সম্পাদক জয় রায় হিমেল। এসময় উপস্থিত ছিলেন স্পেন প্রবাসী তানিম আহমেদ, শাহ আলম, আরিফিন নাবিল প্রমুখ।

প্রধান অতিথি ও সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে তিনি সাংবাদিক কল্যাণ সমিতির ভূয়সী প্রশংসা করে প্রবাসী সাংবাদিকদের বিভিন্ন দিক ও সাংবাদিকতার মানউন্নয়নে দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য উপস্থাপন করেন। এছাড়াও সাংবাদিক কল্যাণ সমিতি আয়োজিত মাস সেরা প্রতিবেদকের পুরস্কারের জন্য প্রতিমাসে পুরষ্কারের টাকা প্রদানের ঘোষণা দেন।

গত অক্টোবর মাস থেকে গোলাপগঞ্জ সাংবাদিক কল্যাণ সমিতি উপজেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের মধ্যে প্রতিযোগিতা ও মেধাবী সাংবাদিক গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রনোদনা হিসেবে মাস সেরা প্রতিবেদক নির্বাচন করে পুরস্কার প্রদান করে থাকে। তিনি সমিতির ব্যতিক্রমী এ উদ্যোগ জানতে পেরে এ কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে ও সমিতির কার্যক্রম গতিশীল করতে পৃষ্টপোষকতার ঘোষণা দেন।

;

স্পেন প্রবাসীদের মতবিনিময় সভা



কবির আল মাহমুদ, স্পেন
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার পরিতোশ ঘোষের সাথে স্পেন প্রবাসীদের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ এর অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার পরিতোশ ঘোষের সাথে ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কবির আল মাহমুদের নেতৃত্বে স্পেন প্রবাসীদের একটি প্রতিনিধি দল প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যা এবং ভোগান্তি নিরসন বিষয়ে বাংলাদেশ পুলিশের সহযোগিতা চেয়ে একটি মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

স্পেনসহ ইউরোপ তথা সকল প্রবাসী বাংলাদেশীদের পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট প্রাপ্তিসহ বিভিন্ন সমস্যা সংক্রান্ত বিষয়ে এবং তা থেকে উত্তরণের উপায় নিয়ে উপস্থিত প্রত্যেকেই তাদের নিজ নিজ বক্তব্য উপস্থাপন করেন।


এ সময় তারা সিলেট সহ বাংলাদেশের সকল প্রবাসীর স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি ও বসতবাড়ির নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এমনকি যাতে দেশে এসে প্রবাসীরা যেন কোন প্রকার হয়রানির শিকার না হতে হয় এ ব্যাপারে পুলিশের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মতবিনিময়কালে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার পরিতোশ ঘোষ বলেন, প্রবাসীরা দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। তাদের জান মাল এবং সম্পত্তি রক্ষার বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। এ সংক্রান্ত কোন অভিযোগ পেলেই পুলিশ বাহিনী দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছে। রেমিটেন্সযোদ্ধা খ্যাত প্রবাসীদের সরকার সর্বোচ্চ গুরুত্ব ও অগ্রাধিকার দিচ্ছে উল্লেখ করে পুলিশ কমিশনার বলেন বর্তমান বৈশ্বিক মন্দা অর্থনৈতিক এই পরিস্থিতিতে, প্রবাসীরা দেশের অর্থনীতিকে টিকিয়ে রেখেছে।

এমনকি দেশের বিভিন্ন ক্রান্তিকালে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্স এর মাধ্যমে দেশের অর্থনীতি সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই তারা দেশে এসে কোন ধরণের দুর্ভোগের শিকার যাতে না হন, সেদিকে পুলিশ সর্বদা সতর্ক রয়েছে।


সভায় স্পেন প্রবাসীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্য কবির আল মাহমুদ, স্পেন প্রবাসী ইমরান আহমদ খান, পাবেল বকশী, তানিম আহমদ, নিজাম উদ্দিন আহমদ। এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক সমকালের গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি রতন মনি চন্দ, সিলেট জেলা যুবলীগ নেতা ফরিদ আহমদ, মহানগর ছাত্রলীগ নেতা আশরাফুল ইসলাম বাপ্পী, আমাল মালিক ফাহিম, তানভীর আহমদ সহ সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ।

;

মালদ্বীপে বাংলাদেশ দূতাবাসে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস পালিত



মো. মাহামুদুল, মালদ্বীপ
ছবি: বার্তা ২৪.কম

ছবি: বার্তা ২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

‘শতবর্ষে জাতির পিতা সুবর্ণে স্বাধীনতা/ অভিবাসনে আনবো মর্যাদা ও নৈতিকতা’, প্রতিপাদ্যে - এ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে মালদ্বীপে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস পালিত হয়েছে।

৮ জানুয়ারী মালদ্বীপের বাংলাদেশ দূতাবাসের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রিয়ার অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ নাজমুল হাসান।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু যে সোনার বাংলার স্বপ্ন দেখেছিলেন তা বাস্তবায়ন করার জন্য প্রধানমন্ত্রী চেষ্টা করে যাচ্ছেন। কিন্তু শুধুমাত্র সরকারের একার চেষ্টা দেশের উন্নতি ও অগ্রগতির জন্য যথেষ্ট নয়। আমাকে-আপনাকে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। তাহলে সোনার বাংলা গড়া সম্ভব হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দূতাবাসের প্রথম সচিব মো. সোহেল পারভেজ

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মালদ্বীপের সুনামধন্য ব্যবসায়ী ও গ্লোবাল রিচ প্রা. লিমিটেডের সিইও, ২০১৮ ও ২০১৯ সালে বিদেশে বাংলাদেশি পণ্যের আমদানিকারক ক্যাটাগরিতে মালদ্বীপ হতে সিআইপি নির্বাচিত মো. সোহেল রানা ও এনবিএল মানি ট্রান্সফারের (মালদ্বীপ) লোকাল ডিরেক্টর হান্নান খান কবির।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন , রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, শ্রমিক, পেশাজীবী সংগঠনের নেতা ও মালদ্বীপে কর্মরত বাংলাদেশি প্রবাসীরা।

;

আরব আমিরাতে প্রবাসীদের জন্য ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম শুরু



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

 দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর সুখবর পেলো সংযুক্ত আরব আমিরাত বাংলাদেশী প্রবাসীরা। বর্তমান বিশ্বের সর্বাধুনিক ই-পাসপোর্ট পাওয়ার পথ খুলেছে বাংলাদেশী দূতাবাস।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাংলাদেশী দূতাবাস সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়। বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টায় আমিরাতের রাজধানী আবুধাবিতে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে।

ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মুহাম্মদ আবু জাফর ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের (নিরাপত্তা ও বহিরাগমন অনুবিভাগ) সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মুহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাসুদ চৌধুরী।

এসময় দূতাবাসের বিভিন্ন সেক্টরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

;