স্পেনে প্রবাসীদের ‘ঈদ আনন্দ উৎসব’



কবির আল মাহমুদ, স্পেন থেকে
স্পেনে প্রবাসীদের ‘ঈদ আনন্দ উৎসব’

স্পেনে প্রবাসীদের ‘ঈদ আনন্দ উৎসব’

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদের আনন্দ সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে ঈদের দুই দিন মঙ্গলবার (১২ জুলাই) স্পেনের মাদ্রিদের একটি পার্কে প্রবাসী বাংলাদেশিরা একত্রিত হয়ে ঈদ আনন্দ উৎসব উদযাপন করেছেন।

মঙ্গলবার (১২ জুলাই) দুপুরে রাজধানী মাদ্রিদের ঐতিহ্যবাহী পিরামিডস পার্কে দেশটিতে বসবাসকারী প্রবাসী বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয় এই ‘ঈদ আনন্দ’ উৎসব।

মাদ্রিদের অন্যতম আঞ্চলিক সংগঠন ঢাকা জেলা অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের উদ্যোগে ঈদের পরের দিনে অনুষ্ঠিত এ ঈদ উৎসব এবং মিলন মেলায় শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাবেক সভাপতি জামাল উদ্দিন মনির, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আলামীন মিয়া, ঢাকা জেলা অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের উপদেষ্টা এস এম আহমেদ মনির, ইনসাফ সুমন ভূঁইয়া সুমন, ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মো. ফজলে এলাহী, খুলনা বিভাগীয় কল্যাণ সমিতি স্পেনের সভাপতি সৈয়দ মাসুদুর রহমান নাসিম, ব্যবসায়ী ও কমিউনিটি নেতা সাইফুল মুন্সী ইকবাল, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও ধর্ম সম্পাদক মো. জহির উদ্দিন প্রমুখ।

রাজধানী মাদ্রিদ ও এর আশেপাশে বসবাসরত বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশি ‘ঈদ আনন্দ’ উৎসবে অংশগ্রহণ করেন। ফলে অনুষ্ঠানটি পরিণত হয়েছিল প্রবাসী বাংলাদেশিদের মিলনমেলায়।

ঢাকা জেলা অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাধারণ সম্পাদক এস এম মাসুদুর রহমান ও সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. রুবেল সামাদের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই ঈদ আনন্দ উৎসবে বাংলাদেশে অবস্তানরত সংগঠনের সভাপতি মো. শাহ আলম টেলিকনফারেন্সে সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানান। এসময় তিনি বলেন, এ ধরনের অনুষ্ঠান প্রবাসী বাংলাদেশিদের ঐক্যবদ্ধ করতে এবং নতুন প্রজন্মকে বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি শেখাতে সহায়তা করবে। তিনি প্রবাসে বাংলাদেশের সুনাম বৃদ্ধি করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাবেক সভাপতি জামাল উদ্দিন মনির তার বক্তব্যে সকলকে এক ও অভিন্ন এবং নিজ নিজ অবস্থান থেকে দেশ ও নিজেদের উন্নয়নে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান। এমন একটি মিলনমেলা আয়োজন করায় তিনি ঢাকা জেলা অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এ ঈদ পুনর্মিলন যেন আমাদের প্রবাসীদের ভ্রাতৃত্ববোধ বৃদ্ধি করে। আমরা যেন প্রবাসে থেকেও দেশের জন্য ভালো কিছু করতে পারি, দেশকে আরও ভালোবাসতে পারি।

ঢাকা জেলা অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের মহিলা সম্পাদিকা সাবান রহমানের সার্বিক সহযোগিতায় এই ঈদ আনন্দ উৎসবে ঢাকা জেলা এসোসিয়েশন ইন স্পেনের নেত্রবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য দেন সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবু বাক্কার, সহ সভাপতি নাফিজ মামুন, আব্দুস সাত্তার,আরজু মিয়া, সদস্য হাবিবুর রহমান, আলামিনসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে ছিল বাংলাদেশি খাবারের ব্যাপক আয়োজন। শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণ অনুষ্ঠানকে করে তুলেছিল আনন্দময়। সবকিছু মিলিয়ে অনুষ্ঠানটি হয়ে উঠেছিল প্রবাসের বুকে এক টুকরো বাংলাদেশ। সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক সংগঠন হিসেবে বাঙালি কমিউনিটির অনেকেই সপরিবারে এ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। ফলে ঈদ পুনর্মিলনীটি পরিণত হয়েছিল প্রবাসী বাংলাদেশিদের মিলন মেলায়। দুপুরের খাওয়া দাওয়ার পর্ব শেষে প্রবাসী শিশু-কিশোরদের খেলাধুলা ও অভিভাবকদের ঈদের শুভেচ্ছা বক্তব্য আগত অতিথিদেরকে বাঙালিয়ানায় ঈদের আনন্দ উৎসবে মাতিয়ে রাখে।

অনুষ্ঠানে অতিথিরা একে অন্যের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। পুনর্মিলনীকে কেন্দ্র করে স্বদেশে স্বজনদের ছেড়ে দূর দেশে আসা প্রবাসীদের মধ্যে ছিল ব্যাপক উচ্ছ্বাস। অনেক স্বদেশিকে একসঙ্গে পাওয়ায় তাদের কাছে এ মিলনমেলা পরিণত হয়েছিল যেন এক টুকরো বাংলাদেশ। প্রবাসের শত ব্যস্ততার মাঝে এই উৎসব সবার জীবনে নিয়ে আসে নতুন করে পথচলার উদ্দীপনা। নতুন করে ভালোবাসতে শেখায় দেশ ও দেশীয় সংস্কৃতিকে। এমনটাই বলছিলেন অংশগ্রহণকারীদের অনেকে।

কাতার বিশ্বকাপে রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর থাকছেন চট্রগ্রামের শিয়াকত



তাইফুর রহমান, বার্তা২৪.কম, কাতার
কাতার বিশ্বকাপে রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর থাকছেন চট্রগ্রামের শিয়াকত

কাতার বিশ্বকাপে রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর থাকছেন চট্রগ্রামের শিয়াকত

  • Font increase
  • Font Decrease

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতার বিশ্বকাপে ম্যাচ পরিচালনায় নিযুক্ত রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর হিসেবে কাজ করবেন কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনে সহকারী রেফারি হিসেবে কাজ করা বাংলাদেশের শিয়াকত আলী। বিগত ৯ বছর ধরে কাতারে সহকারী রেফারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন বাংলাদেশের চট্টগ্রামের ছেলে শিয়াকত।

প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পেয়ে গর্বিত এই রেফারি। নিজের মেধা ও শ্রম দিয়ে বিশ্বকাপে সেরাটা দিয়ে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করতে চান শিয়াকত।

কাতার বিশ্বকাপে ম্যাচ পরিচালনায় নিয়োজিত থাকবেন সারা বিশ্বের ৩৬ জন রেফারি, ৬৯ জন সহকারী রেফারি ও ২৪ জন ভিডিও ম্যাচ অফিসিয়াল। সেই সুবাদে আগামী ২০ নভেম্বর থেকে মরুর বুকের এই ফুটবল বিশ্বকাপে মাঠের খেলায় না থেকেও যেন জড়িয়ে আছে বাংলাদেশের নাম।

২০১৩ সালে কাজের সূত্রে কাতারে পাড়ি জমান চট্টগ্রামের ছেলে শিয়াকত আলী। সেখানে বার্সেলোনার একটি রেফারি অন্বেষণ কার্যক্রমে অংশ নিয়েই কপাল খুলে যায় তার। এরপর কাতার ফুটবলে ১৬ দিনের রেফারি প্রশিক্ষণ শেষ করেন। পরে কাতারের স্পায়ার একাডেমি থেকে রেফারিং অ্যান্ড স্পোর্টস সাইকোলজিতে স্নাতক সম্পন্ন করেন। এরইমধ্যে রেফারিংয়ের ওপর সি ও ডি ডিপ্লোমা কোর্স শেষ করেছেন। কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনে কাজ করছেন সহকারী রেফারি হিসেবে।

কাতার বিশ্বকাপের মঞ্চে দক্ষিণ এশিয়া থেকে একমাত্র রেফারি কো-অর্ডিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ পেয়ে তিনি উচ্ছ্বাসিত।

বার্তা২৪.কমের মুখোমুখি হয়ে শিয়াকত আলী বলেন, কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন এবং ফিফা কর্তৃপক্ষ রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর হিসেবে ১০ জনকে নিয়োগ দিয়েছে। এর মধ্যে দক্ষিণ এশিয়া থেকে আমি যোগ হয়েছি। বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পেয়ে আমি গর্বিত। সকলের কাছে দোয়া চাই। কঠোর পরিশ্রম দিয়ে নিজেকে আরও এগিয়ে নিতে চান শিয়াকত।

;

কাতার বিশ্বকাপ: দর্শকদের জন্য চালু থাকবে ফ্রি যানবাহনের ব্যবস্থা!



তাইফুর রহমান, বার্তা২৪.কম, কাতার
কাতার বিশ্বকাপ:

কাতার বিশ্বকাপ:

  • Font increase
  • Font Decrease

কাতারে ফুটবল বিশ্বকাপ চলাকালীন বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আগত দর্শকদের জন্য কাতারের বিভিন্ন রাস্তায় চলবে বিশেষ যানবাহন।

প্রায় চার হাজার বাস ও ৭০০ ইলেকট্রিক বাসের ব্যবস্থা করা হচ্ছে হায়া কার্ডধারী দর্শকদের জন্য। টুর্নামেন্ট চলাকালীন ম্যাচ উপভোগ করতে ও কাতারে ভ্রমণের জন্য প্রয়োজন হবে হায়া কার্ড।

মরুভূমির এই দেশে ২০ নভেম্বর বসতে যাচ্ছে ফুটবলের এই মহোৎসব। দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ ফুটবল বিশ্বকাপে বুঁদ হওয়ার অধির অপেক্ষায় এখন ফুটবলপ্রেমীরা। আর তাই বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আগত লাখো দর্শকদের অন্যান্য সুবিধার সঙ্গে যাতায়াতের জন্যও ফ্রি সুব্যবস্থা করেছে আয়োজক দেশ কাতার।

ইতিমধ্যেই কাতার বিশ্বকাপে আগত দর্শকদের যাতায়াতের জন্য শহরেরে বিভিন্ন রুটে চালু করা হয়েছে বাস, ট্রাম, শাটল ট্রেনসহ, শিডিউলভিত্তিক ফ্লাইট।

এছাড়া এলাকাভিত্তিক তৈরি করা হচ্ছে ট্রান্সপোর্ট হাব। কাতারের মবিলিটি ডিরেক্টর থানি আল জাররা বলেন, গত সপ্তাহে একদিনে শহরের বিভিন্ন রুটে এক হাজার ৮০০ বাসের পরীক্ষামূলকভাবে রাস্তায় নামিয়েছি। শুধুমাত্র কাতারের বিশ্বকাপের পাশকার্ড তথা হায়া কার্ড থাকলেই ফ্রি-তে এই যাতায়াত সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে এখানকার সাধারণ মানুষের জন্য স্টেডিয়ামে যাতায়াতে এই ট্রান্সপোর্ট ব্যবহারের ব্যবস্থা থাকছে না।

শুধু বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে কাতারে আসা হায়া কার্ডধারীদের জন্য মেট্রো সার্ভিসসহ অন্যান্য যাতায়াত ব্যবস্থা চালু করা হচ্ছে।

;

কুয়েতে নির্বাসিত হচ্ছেন ৬০ প্রবাসী!



জিসান মাহমুদ, কুয়েত থেকে
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কুয়েতে ৬০ প্রবাসীকে তাদের নিজস্ব গাড়ি ব্যবহার করে অবৈধ ট্যাক্সি পরিষেবা পরিচালনা করার জন্য নির্বাসিত করা হবে ৷ তারা কুয়েত বিমানবন্দর থেকে যাত্রী পরিবহনের সময় ধরা পড়ে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম আরব টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, বিমানবন্দরের প্রবেশ ও প্রস্থান থেকে অবৈধ ট্যাক্সি পরিষেবা দেওয়ার জন্য ট্র্যাফিক টহলদারদের দ্বারা তাদের পর্যবেক্ষণ করা হয়েছিল। এই নির্দেশনা সরাসরি এসেছে জেনারেল ট্রাফিক বিভাগের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল ইউসেফ আল-খাদ্দার কাছ থেকে।

গ্রেফতারকৃতদের অধিকাংশই ভারতীয়, বাংলাদেশি এবং মিশরীয় প্রবাসী। তাদের নির্বাসন কেন্দ্রে রেফার করা হয়েছে এবং নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে।

অন্যদিকে ট্যাক্সি চালকের লাইসেন্স নেই এমন যানবাহন চালকদের কাছ থেকে প্রতারণা ও চাঁদাবাজির বিষয়ে যাত্রীদের কাছ থেকে অনেক অভিযোগ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

;

পথশিশু বিশ্বকাপ খেলতে কাতার আসছে বাংলাদেশি ১০ শিশু



তাইফুর রহমান, বার্তা২৪.কম, কাতার
পথশিশু বিশ্বকাপ খেলতে কাতার আসছে বাংলাদেশি ১০ শিশু

পথশিশু বিশ্বকাপ খেলতে কাতার আসছে বাংলাদেশি ১০ শিশু

  • Font increase
  • Font Decrease

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে মেয়ে পথশিশুদের নিয়ে আয়োজিত ফুটবল খেলতে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারর আসছে বাংলাদেশের সুবিধা বঞ্চিত একদল নারী পথ শিশু।

কেএফসি'র পৃষ্ঠাপোষকতায় আগামী ৮ থেকে ১৫ অক্টোবর কাতারের দোহায় পথশিশু বিশ্বকাপে ১০ জন সুবিধাবঞ্চিত মেয়েদের একটি দল নিয়ে যাচ্ছে বেসরকারি একটি সংস্থা লিডো।

এর আগে কেএফসির গুলশান শাখায় দলটির কাছে জার্সি হস্তান্তর করে ট্রান্সকম ফুডস লিমিটেডের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। এ সময় দোহায় পথশিশু বিশ্বকাপে অংশ নিতে যাওয়া ১০ নারী পথশিশু, কোচ ও অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় ট্রান্সকম ফুডসের কর্মকর্তারা বলেন, অনুপ্রেরণা এবং আত্মবিশ্বাসই পারে সফল হওয়ার পথে এগিয়ে নিয়ে যেতে। বাংলাদেশ থেকে যাত্রার শুরু থেকেই কেএফসি আলোকবর্তিকা হাতে সমাজে আশার আলো ছড়াতে যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছে। সমাজের সুবিধাবঞ্চিত বাচ্চাদের জন্য কিছু করতে পেরে আমরা খুবই  আনন্দিত। আগামীতেউ পথশিশুদের জন্য আরো অনেক কিছু করার প্রত্যয় নিয়ে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ট্রান্সকম ফুডস ও কেএফসির শীর্ষ কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, গোটা বিশ্বের মনোযোগ এখন কাতারের দোহায়। এবার বিশ্বকাপ ফুটবলের আসর বসছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশে। বিশ্বকাপ ফুটবল শুরুর আগে দোহায় অনুষ্ঠিত হবে এই বিশ্বকাপ। ২৬ দেশ নিয়ে দোহায় অনুষ্ঠিত হবে পথ শিশুদের বিশ্বকাপ আর সেই বিশ্বকাপে বাংলাদেশের নারী পথ শিশুরা অংশগ্রহণ করবেন ।

;