বাহরাইনে জাতীয় শোক দিবস পালিত



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
বাহরাইনে জাতীয় শোক দিবস পালিত

বাহরাইনে জাতীয় শোক দিবস পালিত

  • Font increase
  • Font Decrease

যথাযথ মর্যাদা ও বিনম্র শ্রদ্ধায় বাহরাইনে বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।

সোমবার (১৫ আগস্ট) সকালে দূতাবাস প্রাঙ্গণে দূতাবাসের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতাদের সঙ্গে নিয়ে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স এ. কে. এম. মহিউদ্দিন কায়েস।

দিবসটি উপলক্ষে দূতাবাস প্রাঙ্গণে এক আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। শুরুতেই বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বাণীসমূহ পাঠ করা হয়। এসময় বঙ্গবন্ধুর ওপর নির্মিত একটি তথ্যচিত্র প্রর্দশন করা হয় এবং জাতির পিতার জীবন ও কর্মের ওপর উন্মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্স মহিউদ্দিন কায়েস বক্তব্যের শুরুতেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সকল শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু তার ব্যক্তি সত্তাকে বাঙালি জাতিসত্তায় রূপান্তরিত করেছিলেন। নিজের স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে জাতীয় স্বার্থের তরে নিজেকে উৎসর্গ করেছিলেন। তাই তিনি বাংলার সব বর্ণের, সব ধর্মের, সব মানুষের এক অবিসংবাদিত নেতায় পরিণত হয়েছিলেন। স্বাধীনতার পর মাত্র সাড়ে তিন বছরেই দেশ পরিচালনার এমন কোন ক্ষেত্র নেই যেখানে বঙ্গবন্ধুর মানবিক হাতের স্পর্শ লাগেনি।

তিনি আরও বলেন, যে নীতি ও আদর্শের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, ১৫ আগস্টের নারকীয় হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে ঘাতকেরা সেই নীতি ও আদর্শকেও হত্যা করতে চেয়েছিল। কিন্তু, ঘাতকের উদ্দেশ্য সফল হয়নি। বঙ্গবন্ধু মিশে আছেন মানুষের হৃদয় জুড়ে। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে বঙ্গবন্ধুর অবিনাশী চেতনা ও আদর্শ চির প্রবহমান থাকবে।

এছাড়া, তিনি বাহরাইনে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদেরকে জাতির পিতার মহান আদর্শ অনুসরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ গড়ে তুলতে সকলকে তাদের প্রয়াস অব্যাহত রাখার আহবান জানান এবং দেশের অর্থনীতির চাকাকে সচল রাখতে বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণের অনুরোধ করেন।

পরিশেষে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যবৃন্দের আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং দেশের অব্যাহত শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য বিশেষ দোয়া করা হয়। বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ এবং প্রবাসী বাংলাদেশিরা এসকল অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

কাতার বিশ্বকাপে রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর থাকছেন চট্রগ্রামের শিয়াকত



তাইফুর রহমান, বার্তা২৪.কম, কাতার
কাতার বিশ্বকাপে রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর থাকছেন চট্রগ্রামের শিয়াকত

কাতার বিশ্বকাপে রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর থাকছেন চট্রগ্রামের শিয়াকত

  • Font increase
  • Font Decrease

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতার বিশ্বকাপে ম্যাচ পরিচালনায় নিযুক্ত রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর হিসেবে কাজ করবেন কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনে সহকারী রেফারি হিসেবে কাজ করা বাংলাদেশের শিয়াকত আলী। বিগত ৯ বছর ধরে কাতারে সহকারী রেফারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন বাংলাদেশের চট্টগ্রামের ছেলে শিয়াকত।

প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পেয়ে গর্বিত এই রেফারি। নিজের মেধা ও শ্রম দিয়ে বিশ্বকাপে সেরাটা দিয়ে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করতে চান শিয়াকত।

কাতার বিশ্বকাপে ম্যাচ পরিচালনায় নিয়োজিত থাকবেন সারা বিশ্বের ৩৬ জন রেফারি, ৬৯ জন সহকারী রেফারি ও ২৪ জন ভিডিও ম্যাচ অফিসিয়াল। সেই সুবাদে আগামী ২০ নভেম্বর থেকে মরুর বুকের এই ফুটবল বিশ্বকাপে মাঠের খেলায় না থেকেও যেন জড়িয়ে আছে বাংলাদেশের নাম।

২০১৩ সালে কাজের সূত্রে কাতারে পাড়ি জমান চট্টগ্রামের ছেলে শিয়াকত আলী। সেখানে বার্সেলোনার একটি রেফারি অন্বেষণ কার্যক্রমে অংশ নিয়েই কপাল খুলে যায় তার। এরপর কাতার ফুটবলে ১৬ দিনের রেফারি প্রশিক্ষণ শেষ করেন। পরে কাতারের স্পায়ার একাডেমি থেকে রেফারিং অ্যান্ড স্পোর্টস সাইকোলজিতে স্নাতক সম্পন্ন করেন। এরইমধ্যে রেফারিংয়ের ওপর সি ও ডি ডিপ্লোমা কোর্স শেষ করেছেন। কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনে কাজ করছেন সহকারী রেফারি হিসেবে।

কাতার বিশ্বকাপের মঞ্চে দক্ষিণ এশিয়া থেকে একমাত্র রেফারি কো-অর্ডিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ পেয়ে তিনি উচ্ছ্বাসিত।

বার্তা২৪.কমের মুখোমুখি হয়ে শিয়াকত আলী বলেন, কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন এবং ফিফা কর্তৃপক্ষ রেফারিদের কো-অর্ডিনেটর হিসেবে ১০ জনকে নিয়োগ দিয়েছে। এর মধ্যে দক্ষিণ এশিয়া থেকে আমি যোগ হয়েছি। বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পেয়ে আমি গর্বিত। সকলের কাছে দোয়া চাই। কঠোর পরিশ্রম দিয়ে নিজেকে আরও এগিয়ে নিতে চান শিয়াকত।

;

কাতার বিশ্বকাপ: দর্শকদের জন্য চালু থাকবে ফ্রি যানবাহনের ব্যবস্থা!



তাইফুর রহমান, বার্তা২৪.কম, কাতার
কাতার বিশ্বকাপ:

কাতার বিশ্বকাপ:

  • Font increase
  • Font Decrease

কাতারে ফুটবল বিশ্বকাপ চলাকালীন বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আগত দর্শকদের জন্য কাতারের বিভিন্ন রাস্তায় চলবে বিশেষ যানবাহন।

প্রায় চার হাজার বাস ও ৭০০ ইলেকট্রিক বাসের ব্যবস্থা করা হচ্ছে হায়া কার্ডধারী দর্শকদের জন্য। টুর্নামেন্ট চলাকালীন ম্যাচ উপভোগ করতে ও কাতারে ভ্রমণের জন্য প্রয়োজন হবে হায়া কার্ড।

মরুভূমির এই দেশে ২০ নভেম্বর বসতে যাচ্ছে ফুটবলের এই মহোৎসব। দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ ফুটবল বিশ্বকাপে বুঁদ হওয়ার অধির অপেক্ষায় এখন ফুটবলপ্রেমীরা। আর তাই বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আগত লাখো দর্শকদের অন্যান্য সুবিধার সঙ্গে যাতায়াতের জন্যও ফ্রি সুব্যবস্থা করেছে আয়োজক দেশ কাতার।

ইতিমধ্যেই কাতার বিশ্বকাপে আগত দর্শকদের যাতায়াতের জন্য শহরেরে বিভিন্ন রুটে চালু করা হয়েছে বাস, ট্রাম, শাটল ট্রেনসহ, শিডিউলভিত্তিক ফ্লাইট।

এছাড়া এলাকাভিত্তিক তৈরি করা হচ্ছে ট্রান্সপোর্ট হাব। কাতারের মবিলিটি ডিরেক্টর থানি আল জাররা বলেন, গত সপ্তাহে একদিনে শহরের বিভিন্ন রুটে এক হাজার ৮০০ বাসের পরীক্ষামূলকভাবে রাস্তায় নামিয়েছি। শুধুমাত্র কাতারের বিশ্বকাপের পাশকার্ড তথা হায়া কার্ড থাকলেই ফ্রি-তে এই যাতায়াত সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে এখানকার সাধারণ মানুষের জন্য স্টেডিয়ামে যাতায়াতে এই ট্রান্সপোর্ট ব্যবহারের ব্যবস্থা থাকছে না।

শুধু বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে কাতারে আসা হায়া কার্ডধারীদের জন্য মেট্রো সার্ভিসসহ অন্যান্য যাতায়াত ব্যবস্থা চালু করা হচ্ছে।

;

কুয়েতে নির্বাসিত হচ্ছেন ৬০ প্রবাসী!



জিসান মাহমুদ, কুয়েত থেকে
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কুয়েতে ৬০ প্রবাসীকে তাদের নিজস্ব গাড়ি ব্যবহার করে অবৈধ ট্যাক্সি পরিষেবা পরিচালনা করার জন্য নির্বাসিত করা হবে ৷ তারা কুয়েত বিমানবন্দর থেকে যাত্রী পরিবহনের সময় ধরা পড়ে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম আরব টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, বিমানবন্দরের প্রবেশ ও প্রস্থান থেকে অবৈধ ট্যাক্সি পরিষেবা দেওয়ার জন্য ট্র্যাফিক টহলদারদের দ্বারা তাদের পর্যবেক্ষণ করা হয়েছিল। এই নির্দেশনা সরাসরি এসেছে জেনারেল ট্রাফিক বিভাগের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল ইউসেফ আল-খাদ্দার কাছ থেকে।

গ্রেফতারকৃতদের অধিকাংশই ভারতীয়, বাংলাদেশি এবং মিশরীয় প্রবাসী। তাদের নির্বাসন কেন্দ্রে রেফার করা হয়েছে এবং নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে।

অন্যদিকে ট্যাক্সি চালকের লাইসেন্স নেই এমন যানবাহন চালকদের কাছ থেকে প্রতারণা ও চাঁদাবাজির বিষয়ে যাত্রীদের কাছ থেকে অনেক অভিযোগ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

;

পথশিশু বিশ্বকাপ খেলতে কাতার আসছে বাংলাদেশি ১০ শিশু



তাইফুর রহমান, বার্তা২৪.কম, কাতার
পথশিশু বিশ্বকাপ খেলতে কাতার আসছে বাংলাদেশি ১০ শিশু

পথশিশু বিশ্বকাপ খেলতে কাতার আসছে বাংলাদেশি ১০ শিশু

  • Font increase
  • Font Decrease

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে মেয়ে পথশিশুদের নিয়ে আয়োজিত ফুটবল খেলতে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারর আসছে বাংলাদেশের সুবিধা বঞ্চিত একদল নারী পথ শিশু।

কেএফসি'র পৃষ্ঠাপোষকতায় আগামী ৮ থেকে ১৫ অক্টোবর কাতারের দোহায় পথশিশু বিশ্বকাপে ১০ জন সুবিধাবঞ্চিত মেয়েদের একটি দল নিয়ে যাচ্ছে বেসরকারি একটি সংস্থা লিডো।

এর আগে কেএফসির গুলশান শাখায় দলটির কাছে জার্সি হস্তান্তর করে ট্রান্সকম ফুডস লিমিটেডের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। এ সময় দোহায় পথশিশু বিশ্বকাপে অংশ নিতে যাওয়া ১০ নারী পথশিশু, কোচ ও অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় ট্রান্সকম ফুডসের কর্মকর্তারা বলেন, অনুপ্রেরণা এবং আত্মবিশ্বাসই পারে সফল হওয়ার পথে এগিয়ে নিয়ে যেতে। বাংলাদেশ থেকে যাত্রার শুরু থেকেই কেএফসি আলোকবর্তিকা হাতে সমাজে আশার আলো ছড়াতে যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছে। সমাজের সুবিধাবঞ্চিত বাচ্চাদের জন্য কিছু করতে পেরে আমরা খুবই  আনন্দিত। আগামীতেউ পথশিশুদের জন্য আরো অনেক কিছু করার প্রত্যয় নিয়ে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ট্রান্সকম ফুডস ও কেএফসির শীর্ষ কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, গোটা বিশ্বের মনোযোগ এখন কাতারের দোহায়। এবার বিশ্বকাপ ফুটবলের আসর বসছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশে। বিশ্বকাপ ফুটবল শুরুর আগে দোহায় অনুষ্ঠিত হবে এই বিশ্বকাপ। ২৬ দেশ নিয়ে দোহায় অনুষ্ঠিত হবে পথ শিশুদের বিশ্বকাপ আর সেই বিশ্বকাপে বাংলাদেশের নারী পথ শিশুরা অংশগ্রহণ করবেন ।

;