লিসবনে আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক মেলায় বাংলাদেশ

নাঈম হাসান, লিসবন, পর্তুগাল
কূটনৈতিক বাজারে বাংলাদেশের স্টল,  ছবি: সংগৃহীত

কূটনৈতিক বাজারে বাংলাদেশের স্টল, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পর্তুগালের রাজধানী লিসবনে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো কূটনৈতিকদের নিয়ে আন্তর্জাতিক মেলা 'বাজার ডিপ্লোম্যাটিকো ২০১৯'। চলতি মাসের ১৫ ও ১৬ই নভেম্বর লিসবনের কংগ্রেস সেন্টারে মেলাটি অনুষ্ঠিত হয়। দুইদিন ব্যাপী এই মেলায় অংশ নিয়েছে বাংলাদেশসহ প্রায় ৪০টি দেশের দূতাবাস।

অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী প্রত্যেকটি দেশ তাদের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, খাবারসহ নিজেদের দেশকে তুলে ধরেন।

লিসবন এ মেলায় অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ দূতাবাসও। শাড়ি, গামছা, শিকা সহ দেশীয় ঐতিহ্যবাহী উপকরণের মাধ্যমে গ্রামীণ আদলে সাজানো হয় বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন। দেশীয় ঐতিহ্য ও হস্তশিল্প বিশেষভাবে তুলে ধরা হয় স্টলে। এছাড়া বাংলাদেশ স্টলে মসলিন, জামদানী এবং উপজাতি তাঁত শিল্পকে বিশেষগুরূত্ব সহকারে তুলে ধরা হয়।


মেলায় বাংলাদেশী স্টলে ভিড় করছেন বিদেশী নাগরিকরা

বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে দেশীয় ঐতিহ্যবাহী পোষাক, মুক্তা ও অন্যান্য গহনা, মহিলাদের ব্যাগ, মসলিনের টেবিল ক্লথ, হাতের সেলাইয়ের কাজ সহ অন্যান্য হস্ত শিল্পজাত পণ্য। বাজারে আগত ছয় হাজারের অধিক পর্তুগীজ ও অন্যান্য দেশের নাগরিকরা বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে আসেন এবং ঐতিহ্যবাহী বাংলাদেশী পণ্য দেখেন।


পর্তুগিজ রাষ্ট্রপতি মার্সেলো রেবেলো দ্যা সওজার হাতে রুপার তৈরি নৌকা তুলে দেওয়ার ছবি 

কূটনৈতিক বাজারের উদ্বোধনী দিনে পর্তুগিজ রাষ্ট্রপতি মার্সেলো রেবেলো দ্যা সওজা বাংলাদেশ স্টলে আসেন। তিনি বাংলাদেশের বিভিন্ন পণ্য দেখেন এবং বলেন, 'আমরা বাংলাদেশকে ভালোবাসি।' এসময় পর্তুগালের রাষ্ট্রপতিকে একটি রুপার তৈরি বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী নৌকা উপহার হিসেবে তুলে দেন পর্তুগালে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. রুহুল আলম সিদ্দিকী।

মেলায় বাংলাদেশ দূতাবাসের অংশগ্রহণ সম্পর্কে পর্তুগালে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. রুহুল আলম সিদ্দিকী জানান, পর্তুগিজ ডিপ্লোম্যাট ফোরামের মধ্যে লিসবনের বিপুল সংখ্যক দূতাবাসের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হচ্ছে সবচেয়ে বড় এই কূটনৈতিক বাজার। এই আয়োজনের মাধ্যমে দেশীয় ঐতিহ্য, সংস্কৃতি তুলে ধরার সুযোগ হয় বিশ্বের মানুষদের কাছে। গেল বছরের ধারাবাহিকতায় এবারও এই আয়োজনে অংশগ্রহণ করতে পেরে আমি বেশ আনন্দিত।

আপনার মতামত লিখুন :