সেন্টমার্টিনের বর্জ্য অপসারণ প্রবাসী পর্যটকদের



চীন করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
চীন থেকে গিয়ে সেন্টমার্টিনের বর্জ্য অপসারণ করলেন একদল প্রবাসী পর্যটক, ছবি: বার্তা২৪.কম

চীন থেকে গিয়ে সেন্টমার্টিনের বর্জ্য অপসারণ করলেন একদল প্রবাসী পর্যটক, ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনে বেড়াতে গিয়ে সেখান থেকে ৫০০ কেজি বর্জ্য অপসারণ করেছেন চীনে অধ্যয়নরত একদল তরুণ পর্যটক।

চীনের শীতকালীন ছুটি কাটাতে বাংলাদেশে যাওয়া নানচাং হাংকং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা গত ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সেখানে অবস্থানকালে দ্বীপের সৌন্দর্য উপভোগের পাশাপাশি ঘুরে ঘুরে বর্জ্য অপসারণ করেন তারা।

বর্জ্য অপসারণকারীর দলে ছিল ১১ জন। তাদের মধ্যে পাঁচ জন চীনের নানচাং হাংকং বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত। দলের বাকি সদস্যরা বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করছেন। সেন্টমার্টিন পরিষ্কার ও সচেতনতা বৃদ্ধির অভিযানের জন্য সাজিদ, আশরাফুল, রাজা, সোহান, নাজমুল আকরাম, রাজ, ইফতি, শামীম, অন্তু এবং শিমুল হাতে পলিথিনের ব্যাগ নিয়ে সৈকতে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা কোমল পানীয় বোতল, চিপসের প্যাকেট, বিস্কুটের প্যাকেট, পলিথিন ব্যাগ ও প্লাস্টিক জাতীয় বর্জ্য কুড়িয়ে নেন।

দলটির সদস্য সাজিদ কবির সাজি বার্তা২৪.কমকে বলেন, 'প্লাস্টিককে না বলুন। আমরা বিগত তিন দিন ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করে বীচের পশ্চিম পাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা অপচনশীল প্লাস্টিক জাতীয় দ্রব্যাদি পরিষ্কার করেছি। ১১ জন তরুণ, ১১ বস্তা প্লাস্টিক কুড়িয়ে নির্ধারিত জায়গায় ডাম্প করছি।'

দলটির আরেক সদস্য শাহরিয়ার হাসান সরকার বার্তা২৪.কমকে বলেন, 'যদি এই দ্বীপে এমনইভাবে ময়লা-আবর্জনা ফেলতে থাকা হয় তাহলে একদিন এই দ্বীপের সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যাবে এবং এই প্রবালদ্বীপের গভীরে যে জীবগুলো আছে সেগুলো মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। সেজন্য আমরা যদি প্রত্যেকে সতর্ক এবং সচেতন হই তাহলেই কেবল এই দ্বীপকে সুরক্ষা করা সম্ভব এবং পরিবেশ সুন্দর থাকবে।'