ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন

ওয়াশিংটন ডিসি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, ছবি: সংগৃহীত

রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

স্বাধীনতা যুদ্ধের শহীদদের স্বপ্ন বাস্তবায়ন এবং বাংলাদেশকে আগামী প্রজন্মের জন্য শান্তি ও প্রগতির আবাসভূমি হিসেব প্রতিষ্ঠার নতুন শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসে ৪৯তম স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিবসটির আনুষ্ঠানিকতার সূচনা করেন। এ সময় বাজানো হয় জাতীয় সঙ্গীত। পরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আবক্ষ মূর্তিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন তিনি। এ সময় দূতাবাসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় ্উপস্থিত সবাই একে অপর থেকে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখেন। 

অনুষ্ঠানে দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর পাঠানো বাণী পাঠ করা হয়। বাণীগুলো পাঠ করেন যথাক্রমে দূতাবাসের কাউন্সেলর (পলিটিক্যাল) দেওয়ান আলী আশরাফ, মিনিস্টার (প্রেস) শামিম আহমদ, মিনিস্টার (ইকনমিক) মেহেদী হাসান এবং মিনিস্টার (কনস্যুলার) হাবিবুর রহমান।

রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন তার বক্তব্যে বঙ্গবন্ধু এবং স্বাধীনতা যুদ্ধের শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি বলেন, বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিশ্বে স্বীকৃতি লাভ করেছে।

বিশেষ মোনাজাত করা হয়, ছবি: সংগৃহীত

তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিবিদ, কর্মকর্তা এবং আমেরিকার জনগণের সমর্থনের জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সবচেয়ে সুন্দর সম্পর্ক বিদ্যমান রয়েছে এবং বর্তমান প্রশাসনের সময় এ সম্পর্ক আরো উন্নত হবে।

মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত হয়ে ১০ লক্ষাধিক রোহিঙ্গার বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশকে রাজনৈতিক এবং মানসিকভাবে সাহায্য করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বাস করেন, বাংলাদেশ এবং যুক্তরাষ্ট্র দায়িত্বশীল গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে বন্ধুত্বপূর্ণ সহযোগিতা এগিয়ে নিয়ে যাবে। যাতে করে দু’দেশ ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে অবাধ মুক্ত এবং শান্তিপূর্ণ অবস্থান অর্জন করতে পারে।

বেশ দূরত্ব রেখে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন, ছবি: সংগৃহীত

অনুষ্ঠান শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, তার পরিবারের সদস্যবৃন্দ এবং মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

সেই সঙ্গে করোনাভাইরাস থেকে মানজাতিকে রক্ষার জন্যও আল্লাহর অশেষ কৃপা কামনা করা হয়। প্রথম সচিব এবং চ্যান্সারি প্রধান মো. মাহমুদুল ইসলাম অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন।

আপনার মতামত লিখুন :