টিকার জাতীয়তাবাদের বিরুদ্ধে সতর্ক করল ডব্লিউএইচও



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস। ছবি: রয়টার্স

তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস। ছবি: রয়টার্স

  • Font increase
  • Font Decrease

টিকার জাতীয়তাবাদের বিরুদ্ধে সতর্ক করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস।

রোববার (২৫ অক্টোবর) ডব্লিউএইচওর মহাপরিচালক তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস এ সতর্কতার কথা বলেন।

সোমবার বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

জার্মানির বার্লিনে তিন দিনব্যাপী ওয়ার্ল্ড হেলথ সামিটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভিডিওর মাধ্যমে ভাষণ দেন ডব্লিউএইচওর মহাপরিচালক।

তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস বলেন, ‘আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই, টিকার জাতীয়তাবাদ মহামারিকে দীর্ঘায়িত করবে, কমাবে না।’

করোনা মহামারি থেকে উদ্ধার পাওয়ার জন্য বৈশ্বিক ঐক্যের ওপর জোর দেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান। এ প্রসঙ্গে তিনি দরিদ্র দেশগুলোর টিকার ন্যায্য প্রাপ্তি নিশ্চিতের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস বলেন, ‘এটা স্বাভাবিক যে দেশগুলো প্রথমেই তাদের নিজেদের নাগরিকদের রক্ষা করতে চায়। কিন্তু যখন আমরা একটি কার্যকর টিকা পাব, আমাদের অবশ্যই তা কার্যকরভাবে ব্যবহার করতে হবে। আর তা করার সর্বোত্তম উপায় হলো কিছু দেশের সব মানুষকে টিকা দেওয়ার চেয়ে সব দেশের কিছু মানুষকে টিকা দেওয়া।’

বর্তমানে বেশ কিছু টিকা ‘ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল’ পর্যায়ে রয়েছে। তার মধ্যে অন্তত ১০টি টিকা তৃতীয় বা চূড়ান্ত ধাপের পরীক্ষায় আছে। এই পরীক্ষাগুলোয় হাজারো স্বেচ্ছাসেবী অংশ নিচ্ছেন।

ধনী-গরিব দেশনির্বিশেষে করোনার টিকার ন্যায্য সরবরাহ নিশ্চিতের লক্ষ্যে কোভ্যাক্স নামের একটি আন্তর্জাতিক উদ্যোগ নিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনস গ্লোবাল অ্যাকসেস ফ্যাসিলিটি (কোভ্যাক্স) নামের এ উদ্যোগের যৌথ নেতৃত্বে আছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, দ্য কোয়ালিশন ফর এপিডেমিক প্রিপেয়ার্ডনেস ইনোভেশনস (সিইপআই) ও দ্য ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্স (গ্যাভি)।

কোভ্যাক্সের মাধ্যমে ২০২১ সালের মধ্যে বিশ্বে ২০০ কোটি ডোজ নিরাপদ ও কার্যকর টিকা সরবরাহের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।