‘দয়া করে পদত্যাগ করুন’, থাই প্রধানমন্ত্রীকে বিরোধী দল



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
প্রধানমন্ত্রী প্রায়ূথ চান-ওচা। ছবি: রয়টার্স

প্রধানমন্ত্রী প্রায়ূথ চান-ওচা। ছবি: রয়টার্স

  • Font increase
  • Font Decrease

থাইল্যান্ডের বৃহত্তম বিরোধী দল প্রধানমন্ত্রী প্রায়ূথ চান-ওচাকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানিয়েছে। কয়েক মাসের চলমান বিক্ষোভ নিয়ে সোমবার সংসদের একটি বিশেষ অধিবেশনে সাবেক ‘জান্তা’ নেতা একথা বলেন।

সোমবার বার্তা সংস্থা রয়টার্স এর এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানা যায়।

সংসদের অধিবেশনের আলোচনায় বলা হয়, শিক্ষার্থীদের নেতৃত্বাধীন বিক্ষোভে প্রায়ূথের বিদায়, সংবিধান যেন নতুন করে লেখা হয় এবং রাজতন্ত্রের সংস্কারের দাবি করা হয়েছে। এছাড়াও মাহা ভাজিরালংকর্ণের ক্ষমতা রোধে সংস্কারের আহ্বান জানানো হয়েছে। বর্তমানে থাই আইন অনুযায়ী থাইল্যান্ডের রাজতন্ত্রের সমালোচনা করা বেআইনি, সেই ধারা দীর্ঘসময় ধরে চলে আসছে।

সংসদের বৃহত্তম একক বিরোধী দল ফেউ থাই নেতা ফেউ থাই সোমপং আমর্নভিভাট বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী প্রায়ূথ চান-ওচা দেশের জন্য বড় বাধা ও বোঝা। দয়া করে পদত্যাগ করুন তাহলেই সবকিছু ভালোভাবে শেষ হবে।’

প্রধানমন্ত্রী প্রায়ূথ এই সপ্তাহে সংসদের অধিবেশন ডেকে বিক্ষোভ ওপর নিষেধাজ্ঞাসহ ১৫টি জরুরি ব্যবস্থা কার্যকর করার নির্দেশ দেন। এরপরেই ক্ষোভ ফুসে উঠে জনতা, কয়েক হাজার মানুষকে ব্যাংককের রাস্তায় বিক্ষোভ প্রর্দশন করেন।

প্রায়ূথ তার উদ্বোধনী ভাষণে বলেছিলেন, ‘আমি আত্মবিশ্বাসী আজ, আমাদের বিভিন্ন রাজনৈতিক মতনৈক্য থাকার পরও সবশেষে প্রত্যেকে দেশকে ভালোবাসে।’

২০১৪ সালে এক সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে  ইংলাক সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করেন প্রায়ূথ। এরপর গত বছর এক বিতর্কিত নির্বাচনে নিজেকে বিজয়ী ঘোষণা করেন প্রায়ূথ।

এদিকে বিক্ষোভকারীরা সোমবার বিকেল পাঁচটায় জার্মান দূতাবাসে পদযাত্রা করার বলেছে। তারা জানান, থাইল্যান্ডের রাজা মহা ভাজিরালংকণের্র বিরুদ্ধে তদন্তের জন্য জার্মানিতে আবেদন করা হবে।

এর আগে জার্মান সরকার বলেছিল, রাজা ভাজিরালংকর্ণ জার্মানিতে বসে থাইল্যান্ড শাসন করলে তা অবৈধ হবে। এ ধরনের কোনো সুযোগ তাকে দেওয়া হবে না।