যুক্তরাজ্যে করোনা ভ্যাকসিনের তৃতীয় ট্রায়াল



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে সুরক্ষার জন্য ভ্যাকসিনের একটি বড় ট্রায়াল চালু করছে যুক্তরাজ্য। এটি দেশের তৃতীয় বড় ধরনের ট্রায়াল। ভ্যাকসিনটি বেলজিয়ামের সংস্থা জনসনের নকশা করা। জিনগতভাবে পরিবর্তিত সাধারণ ফ্লু ভাইরাস প্রতিরোধে এটি ব্যবহার করা হচ্ছে।

প্রাথমিক ফলাফলের আরো একটি ভ্যাকসিন ৯০ ভাগ সুরক্ষার প্রস্তাব দেখানোর এক সপ্তাহ পরে এটি আসে। তবে বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন মহামারীটি মোকাবিলা করতে অনেক ধরনের ভ্যাকসিনের প্রয়োজন হতে পারে।

ফাইজার এবং বায়োএনটেকের তৈরি ভ্যাকসিনের সাফল্য ইতিমধ্যেই বিশ্বব্যাপী উত্তেজনা সৃষ্টি করেছে। তবে এটি এখনও ব্যবহারের জন্য অনুমোদিত হয়নি। এখনও জানা যায়নি যে এটি বয়স্কদের মধ্যে কতটা ভাল কাজ করবে বা এটি কতক্ষণ ভাইরাসের আক্রমণ ঠেকাতে পারবে।

এদিকে কোভিড ভ্যাকসিনগুলোর অন্বেষণ অব্যাহত রয়েছে। কারণ কিছু ভিন্ন বয়সের ক্ষেত্রে আরো ভিন্নতর বা আরো ভাল কিছু খবর দিতে পারে। যা এই পৃথিবীকে টিকিয়ে রাখতে লড়াই করবে।

এনআইএইচআর সাউদাম্পটন ক্লিনিকাল রিসার্চ ফ্যাসিলিটির পরিচালক প্রফেসর শৌল ফাউস্ট বলেছেন, 'এটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ যে আমরা বিভিন্ন উৎপাদনকারী থেকে বিভিন্ন ভ্যাকসিন গ্রহণ করছি'।

তিনি আরো যোগ করেন, 'আমরা জানি না যে এই ভ্যাকসিনগুলো কিভাবে কাজ করবে। আমরা নিশ্চিত হতে পারি না যে কোন ভ্যাকসিন সরবরাহ করলে ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকা যাবে'।

এবারের ট্রায়ালে যুক্তরাজ্যে ইতিমধ্যেই ছয় হাজার লোক নিয়োগের কাজ শুরু হয়েছে। অন্যান্য দেশগুলো থেকে মোট ৩০ হাজার লোক এতে যোগ দিবে। স্বেচ্ছাসেবীদের অর্ধেককে দুই মাসের ব্যবধানে ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ দেওয়া হবে।

জনসনের এই ভ্যাকসিন ট্রায়ালের ফলাফল পেতে ছয় থেকে নয় মাস সময় লাগতে পারে বলে জানা গেছে।