তথ্য চুরির ভয়, বেড়েছে টেলিগ্রাম-সিগন্যাল অ্যাপ ডাউনলোড



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ক্রিপ্টোকারেন্সি থিঙ্ক ট্যাঙ্কের মুখপাত্র নীরজ আগরওয়াল। প্রযুক্তি সচেতন নীরজ গোপনীয়তা বজায় রাখার জন্য সহকর্মী এবং বন্ধুদের সাথে চ্যাট করতে এনক্রিপ্ট করা মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন-সিগন্যাল ব্যবহার করেন।

নীরজ অবাক হলেন! গত সোমবার সিগন্যালে তার বাবা-মাকে দেখে। তারাও নতুন এই অ্যাপটির ব্যবহার শুরু করেছেন।

৩২ বছর বয়সী নীরজ জানান, ‘যেকোন বিপর্যয়কর পরিস্থিতির মধ্যে সিগন্যাল ভালো।’ আমার বাবা-মাও এখন সিগন্যাল ব্যবহার করেন।

বিশ্বের শীর্ষ ধনী টেসলা প্রধান এলেন মাস্কও টুইটার বার্তায় ‘সিগন্যাল’ ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন।

ব্যক্তিগত তথ্য চুরি, গোপনীয়তা ফাঁস, নিরাপত্তা-এমন ভয়ে ব্যবহারকারীরা এখন মেসেঞ্জার ও হোয়াটসঅ্যাপ ছেড়ে ঝুঁকছেন অন্যান্য মেসেজিং ও কলিং অ্যাপে।

গত এক সপ্তাহে প্রায় ১০ মিলিয়ন বেশি মানুষ সিগন্যাল ও টেলিগ্রাম অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন। সিকিউরিটি ও প্রাইভেসির কারণে এই ‍দুইটি অ্যাপ এখন জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছেছে।

সিগন্যাল ইউজারদের ‘এন্ড টু এন্ড এনক্রিপশন’ সুবিধা দিয়েছে; অর্থাৎ প্রেরক ও গ্রাহক ছাড়া এই মেসেজ কেউ দেখতে পারবেন না।

টেলিগ্রাম সিকিউরিটি ও প্রাইভেসির জন্য অন্যতম পরিচিত একটি অ্যাপ। ব্যবহারকারীদের কথা বিবেচনা করে টেলিগ্রামও বিকল্প হিসেবে ‘এনক্রিপ্ট করা মেসেজ’ প্রদানের সুবিধা দিচ্ছে।

সাম্প্রতিক সময়ে কয়েকটি ঘটনায় জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপসহ যোগাযোগ অ্যাপগুলি নিয়ে মানুষের উদ্বেগ বেড়ে গেছে। এর ফলে টেলিগ্রাম আর সিগন্যাল অ্যাপের ডাউনলোড অনেক বেড়ে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল হিলে হামলার পর ফেসবুক, টুইটারসহ প্রযুক্তি সংস্থাগুলি ট্রাম্পসহ হাজার হাজার অ্যাকাউন্ট সরিয়ে দিয়েছে। অন্যদিকে অ্যাপল, গুগল ও অ্যামাজন ট্রাম্প সমর্থকদের সমর্থন দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। এর প্রতিক্রিয়ায়, সমালোচকরা যোগাযোগের জন্য নতুন মাধ্যম খুঁজছেন।

এছাড়া এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে হোয়াটসঅ্যাপ জানায়, ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য ফেইসবুকের সাথে শেয়ার করা হবে। এর ফলে ব্যক্তিগত নিরাপত্তার বিবেচনা ও প্রতিবাদে হোয়াটসঅ্যাপ বয়কট করছেন ব্যবহারকারীরা।

মঙ্গলবার টেলিগ্রাম বলেছে, গত তিন দিনে ২৫ মিলিয়নেরও বেশি ব্যবহারকারী হয়েছে।

অ্যাপল-ডেটা সংস্থা অ্যাপটোপিয়া থেকে প্রাপ্ত হিসাব অনুসারে, সিগন্যাল গত বছরে প্রতিদিন গড়ে ৫০ হাজার ব্যবহারকারী পেত। কিন্তু সোমবার একদিনেই ১.৩ মিলিয়ন মানুষ সিগন্যাল ডাউনলোড করেছে।

টেলিগ্রামের চিফ এক্সিকিউটিভ পাভেল ডুরভ জানান, আগের থেকে ডাউনলোডের পরিমাণ অনেক বেড়েছে।

মার্কিন নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে নাশকতা আশঙ্কা করছে গোয়েন্দা সংস্থাগুলি। এর জের ধরে অ্যাপগুলো সহিংসতার পরিকল্পনা ট্র্যাক করার চেষ্টা করছে। সব কিছু মিলে ব্যবহারকারী এখন ‘এন্ড টু এন্ড এনক্রিপশন’ অ্যাপের দিকে ঝুঁকছেন।