শিরশ্ছেদ ও হাত কাটার আইন ফিরিয়ে আনবে তালেবান!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

তালেবানের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মোল্লা নুরুদ্দিন তুরাবি বলেছেন, আফগানিস্তানে শিরশ্ছেদ ও হাত কাটার আইন শিগগিরই ফিরিয়ে আনবে তালেবান। তবে প্রকাশ্যে তা বাস্তবায়ন করা হবে না।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, বার্তা সংস্থা এপিকে মোল্লা নুরুদ্দিন তুরাবি জানিয়েছেন, ‘নিরাপত্তার জন্য’ হাত কাটার বিধান চালু করা প্রয়োজন। অবশ্য ১৯৯৬ সালে প্রথম দফায় ক্ষমতায় আসার পর জনসম্মুখে মৃত্যুদণ্ড কিংবা হাত কাটার বিধান করা হলেও এবার আর তা নাও হতে পারে।

নতুন দণ্ডবিধির বিরুদ্ধে সমালোচনা গ্রহণযোগ্য নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের আইন কেমন হবে তা কেউ বলতে পারবে না।

জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা তালিকায় থাকা তুরাবি জানান, শাস্তিগুলো প্রকাশ্যে কার্যকর করা হবে কিনা সে বিষয়ে তালেবানের মন্ত্রিসভায় আলোচনা চলছে। তার এ ব্যাপারে একটি নীতি নির্ধারণ করবেন।

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানে ক্ষমতায় আসার পর থেকে তালেবানরা তাদের আগের আমলের তুলনায় নমনীয় শাসনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছে। কিন্তু ইতিমধ্যেই দেশজুড়ে বেশ কয়েকটি মানবাধিকার লঙ্ঘনের খবর পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, হেরাতের তালেবানরা হাই প্রোফাইল মহিলাদের সন্ধান করছে, তাদের বাড়ির বাইরে চলাচল করতে নিষেধ করেছে ও বাধ্যতামূলক ড্রেস কোড আরোপ করছে।

আগস্ট মাসে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলেছিল নির্যাতিত হাজারো সংখ্যালঘুর নয়জন সদস্যের হত্যাকাণ্ডের পিছনে তালেবান যোদ্ধারা ছিল।