সর্বদলীয় বৈঠকে অনুপস্থিত মোদি, বিরোধীদের ওয়াকআউট



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের আগে সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছিল ভারত সরকার। গতকাল রোববারের এই বৈঠকে দেশটির রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকলেও ছিলেন না প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বৈঠক ডেকে অনুপস্থিত থাকায় মোদির সমালোচনা করেছেন বিরোধীরা। অন্যদিকে কথা বলতে না দেওয়ার অভিযোগ তুলে বৈঠক থেকে ওয়াকআউট করেছেন আম আদমি পার্টির (এএপি) নেতা সঞ্জয় সিং।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শীতকালীন অধিবেশন শুরুর এক দিন আগে গতকাল অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে সরকারের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সংসদবিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশী, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গয়াল।

বৈঠকে মোদির সমালোচনা করে জাতীয় কংগ্রেসের নেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে বলেন, ‘আশা করেছিলাম, প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে থাকবেন। আমাদের সঙ্গে নিজের অভিমত বিনিময় করবেন। সম্প্রতি বাতিল হওয়া তিনটি কৃষি আইন নতুন রূপে সামনে আনা হবে কি না-এই বিষয়ে তার কাছে আমাদের জানার ছিল। কিন্তু বৈঠক ডেকে তিনি নিজেই এলেন না।’

ওয়াকআউট করে এএপি নেতা সঞ্জয় সিং বলেন, ‘ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) কাজের এলাকা বাড়ানো ও কৃষকদের চাহিদা অনুযায়ী কৃষিপণ্যের ন্যূনতম সহায়তা মূল্যসহ (এমএসপি) বিভিন্ন বিষয়ে আমাদের কথা বলতে দেওয়া হয়নি।’

বৈঠকে তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ও ডেরেক ও ব্রায়েন পেগাসাস কেলেঙ্কারির প্রসঙ্গ তুললেন। তারা এই প্রসঙ্গে সংসদে আলোচনার দাবি জানান। এ ছাড়া দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, বেকারত্ব বৃদ্ধি, কৃষকদের এমএসপির দাবি না মানা ও সীমান্তে বিএসএফের কাজের এলাকা বাড়ানোর কথা উল্লেখ করে মোদি সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন বিরোধীরা। বৈঠকে বেশির ভাগ দলের নেতারা এসব বিষয় নিয়ে সংসদে খোলামেলা আলোচনার দাবি তুলে ধরেন।

সর্বদলীয় বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন- কংগ্রেসের মল্লিকার্জুন খাড়গে, অধীর চৌধুরী, আনন্দ শর্মা, ডিএমকের টিআর বাল্লু, তিরুচি শিবা, এনসিপির শারদ পাওয়ার, শিবসেনার বিনায়ক রাউত, সমাজবাদী দলের রামগোপাল যাদব, বিএসপির সতীশ মিশ্র, ন্যাশনাল কনফারেন্সের ফারুক আবদুল্লাহ প্রমুখ।

সংসদের শীতকালীন অধিবেশন শুরুর প্রথম দিন আজ সোমবার বিতর্কিত কৃষি আইন বাতিলের বিল উত্থাপন করবে বিজেপি সরকার। মূলত এই কারণে অধিবেশন শুরুর আগে সর্বদলীয় বৈঠক ডাকা হয়েছিল। সংসদের অধিবেশনের প্রথম দিন সব সাংসদকে উপস্থিত থাকতে বলেছে বিজেপি ও কংগ্রেস।

ভারতজুড়ে দেড় বছরের আন্দোলনের মুখে তিনটি কৃষি আইন নিয়ে পিছটান দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। তিনি এসব আইন বাতিলের ঘোষণা দিলেও ভারতীয় কৃষকেরা এখনো আন্দোলন প্রত্যাহার করেননি। আন্দোলনকারী কৃষকদের সংগঠন সংযুক্ত কিষান মোর্চা ‘সংসদ চলো’ কর্মসূচি পালন করছে। এমএসপি চালু করাসহ কৃষকদের অন্যান্য দাবি মেনে নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন কৃষকেরা। আগামী ৪ ডিসেম্বর তারা পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবেন।

ঝড়ের আঘাতে মাদাগাস্কার ও মোজাম্বিকে ৩৭ জন নিহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পূর্ব আফ্রিকায় মৌসুমি ঝড় ‘আনা’র আঘাতে মাদাগাস্কারে কমপক্ষে ৩৪ জন, মোজাম্বিকে ৩ জন  প্রাণ হারিয়েছে এবং মালাওইর অনেক এলাকা বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে বলে মঙ্গলবার এই তিন দেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। মাদাগাস্কারের পূর্ব উপকূল থেকে এই ঝড়ের সৃষ্টি হয়েছে।

‘আনা’র প্রভাবে সৃষ্ট বন্যার দ্বীপটির বিভিন্ন এলাকা ভেসে গেছে, কাদায় ডুবে গেছে রাজধানী আন্তানানারিভোর বিভিন্ন এলাকা। খবর এএফপির।

দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের ইউনিট পরিচালক জন রাজাফিমান্দিম্বি বলেছেন,  রাতভর উদ্ধারকাজ চলেছে। এখন পর‌্যন্ত ৩৪ জন মারা গেছে। এক সপ্তাহ ধরে সেখানকার প্রায় ৬৫ হাজার বাসিন্দা গৃহহীন। এ ছাড়া দেশটির যে জেলাগুলো অপেক্ষাকৃত নিচু, সেগুলোয় এখনো সতর্কবার্তা জারি রাখা হয়েছে।

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর ডিজাস্টার রিস্ক ম্যানেজমেন্টের দেওয়া তথ্য অনুসারে, দেশটির ৩ হাজার ৮০০ মানুষ কোনো না কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ ছাড়া দেশটির একটি ক্লিনিক ও স্কুলের ১৬টি শ্রেণিকক্ষ ধসে গেছে।

ঝড় আনা প্রসঙ্গে জাতিসংঘের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, এই ঝড়ের কারণে বন্যা ব্যাপক আকার ধারণ করতে পারে। এতে ভৌত অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। অনেকে গৃহহীন হতে পারে।

এদিকে ঝড় আনার কারণে গত সোমবার মালাওইর অধিকাংশ এলাকায় বিদ্যুৎ ছিল না। সেখানে বন্যার পানির উচ্চতা বেড়ে যাওয়ার বিভিন্ন বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান তাদের জেনারেটর বন্ধ রেখেছে।

;

গুজব ছড়াবেন না বাবা সুস্থ আছেন: মেরিনা মাহাথির



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ

  • Font increase
  • Font Decrease

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের মেয়ে দাতিন পাদুকা মেরিনা মাহাথির জানিয়েছেন, বাবা আগের চেয়ে সুস্থ আছেন। তার স্বাস্থ্যের উন্নতি হচ্ছে। আমাদের তিনি কথা বলতে পারছেন।

স্বাস্থ্যের উন্নতি হলেও বিশেষজ্ঞের যত্ন নেওয়ার জন্য তিনি হাসপাতালে থাকবেন। বাবা সকলকে উদ্বিগ্ন না হওয়ার জন্য অনুরোধ করেছেন বলে জানিয়েছেন মেরিনা।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) গুজব না ছড়ানোর অনুরোধ জানিয়ে নিজের বিবৃতিতে মেরিনা বলেছেন, ‘সূত্র যাচাই-বাছাই না করে বাবার শারীরিক অবস্থা নিয়ে কোনো ধরনের গুজব ছড়াবেন না। তার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে সময়ে সময়ে ন্যাশনাল হার্ট ইনস্টিটিউট এবং আমরা তার পরিবার আপনাদের অবগত করতে থাকব।’

আজ সারাদিন মালয়েশিয়ার সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে পড়ে। অনেকেই মাহাথিরের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটছে বলে বিভিন্ন গুজব ছড়ান। এরই জের ধরে এমন বিবৃতি দিয়েছেন মেরিনা মাহাথির।

উল্লেখ্য, গত শনিবার (২২ জানুয়ারি) মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদকে দেশটির ন্যাশনাল হার্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
৯৬ বছর বয়সী এ নেতা এর আগে ৭ জানুয়ারি হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসা শেষে ১৩ জানুয়ারি হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন।


মালয়েশিয়ায় সবচেয়ে বেশি সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন মাহাথির। এর আগে তার বাইপাস সার্জারিও করতে হয়েছিল । তবে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর শরীরে কোন কোন উপসর্গ দেখা দিয়েছে, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

সূত্র- সিএনএ

;

দ্বিতীয় মেয়াদে ডব্লিউএইচও'র প্রধান হচ্ছেন টেড্রোস



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

টেড্রোস আধানম ঘেব্রেইয়েসুস দ্বিতীয় মেয়াদে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান হিসেবে মনোনীত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত পদ্ধতিগত ভোটের পর তিনি এই পদের জন্য একমাত্র মনোনীত প্রার্থী থাকায়, তিনি হতে যাচ্ছেন সংস্থাটির পরবর্তী প্রধান।

ডব্লিউএইচওর ৩৪ সদস্যের নির্বাহী বোর্ডের প্রধান প্যাট্রিক অ্যামোথ বলেছেন, আরও পাঁচ বছরের জন্য ডিজি (ডিরেক্টর-জেনারেল) হিসেবে মনোনীত হওয়ায় ডা. টেড্রোসকে অভিনন্দন।

আগামী মে মাসে গোপন ব্যালটে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান নির্বাচনের ভোট হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু টেড্রোস আধানম ঘেব্রেইয়েসুস ছাড়া আর কেউ প্রার্থী না হওয়ায় সংস্থাটির পরবর্তী প্রধান তিনিই হচ্ছেন।

৫৬ বছর বয়সী টেড্রোস কোভিড -১৯ সংকট শুরুর পর থেকে সামনের সারিতে রয়েছেন, যা তাকে মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অন্যতম পরিচিত মুখ হিসেবে পরিণত করেছে।

টেড্রোস করোনাভাইরাস রোগের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রচেষ্টার জন্য চীনের নেতৃত্বের প্রশংসা করায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাকে চীনের সহযোগী বলে অভিযুক্ত করেছিলেন এবং স্বাস্থ্য সংস্থায় আমেরিকান তহবিল স্থগিত করেছিলেন।

ইউরোপীয় দেশগুলোতে তার মনোনয়ন অবাক হওয়ার মতো। জাতিসংঘের স্বাস্থ্য সংস্থার শীর্ষস্থানীয় প্রার্থীরা সাধারণত তাদের নিজ দেশ দ্বারা মনোনীত হন।

;

বুরকিনা ফাসোতে সেনাবাহিনীর ক্ষমতা দখল



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোতে সেনা অভ্যুত্থানের পর সোমবার দেশটির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে বলে ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী।

দেশটির প্রেসিডেন্ট রচ কাবোরেকে ক্ষমতাচ্যুত করে দেশটির পার্লামেন্ট ও সরকার ভেঙে দেয়ার, সংবিধান স্থগিত ও সীমানা বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দেয় বিদ্রোহী সেনারা। দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের এক ঘোষণায় এমনটাই জানানো হয়েছে বলে বার্তাসংস্থা সিএনএন এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

জঙ্গি হামলা ঠেকাতে ব্যর্থতার জেরে দীর্ঘদিন ধরেই প্রেসিডেন্ট রচ কাবোরের বিরুদ্ধে অসন্তোষ ছিল। বিদ্রোহী সেনাদের অভিযোগ, বুরকিনা ফাসোর নিরাপত্তা পরিস্থিতির উন্নতি করে দেশের নাগরিকদের একত্রিত করতে ব্যর্থ তিনি।

উল্লেখ্য, এর আগে, সোমবার দেশটির প্রেসিডেন্টকে বন্দি করে বিদ্রোহী সেনারা। তিনি এখন কোথায় আছেন সেবিষয়েও কিছু জানানো হয়নি। ২০১৫ সালেও দেশটিতে সেনা অভ্যুত্থানের চেষ্টা করা হয়েছিল।

এর আগে, রোববার (২৩ জানুয়ারি) রাতে রাজধানী ওয়াগাদুগুতে প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের চারপাশে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। ওই হামলায় কোনো হতাহত না হলেও অভ্যুত্থানের চেষ্টা নাকচ করে দেশটির সরকার। সবচেয়ে বেশি গোলাগুলি হয়েছিল লামিজানা ঘাঁটিতে। সেখানে সেনাপ্রধানের বাসভবন ও একটি কারাগার রয়েছে। ২০১৫ সালে অভ্যুত্থান চেষ্টায় ব্যর্থ সেনাদের রাখা হয়েছে এই কারাগারে।

বিদ্রোহী সৈন্যরা রচ মার্ক ক্রিশ্চিয়ান কাবোরকে একটি সামরিক ক্যাম্পে আটক করে রেখেছিল এবং দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের সদর দফতরও ঘিরে রেখেছিল বলে দেশটির বেশ কিছু গণমাধ্যম জানিয়েছিল।

;