ওমিক্রনের সংক্রমণ রোধে ১ ডিসেম্বর থেকে ভারতে কঠোর নির্দেশনা কার্যকর



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণ ঠেকাতে আগত আন্তর্জাতিক যাত্রীদের স্ক্রিনিং কঠোর করেছে ভারত। এমনকি দেশের কিছু রাজ্যে টিকা গ্রহণের উপর জোর প্রদান করেছে। একই সাথে কিছু দেশকে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ফলে সেই সকল দেশের ভ্রমণকারীদের পুঙ্খানুপুঙ্খ চেক-আপ করাতে হবে।

ওমিক্রন সারা বিশ্বে নিরাপত্তাহীনতা বাড়িয়ে দিয়েছে। ফলে বিশ্বের বেশ কিছু দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার দেশগুলোতে ভ্রমণ নিষিদ্ধ করেছে। তাই বুধবার (১ ডিসেম্বর) থেকে আন্তর্জাতিক যাত্রীদের আগমনের জন্য ভারত নতুন নিয়ম চালু করছে। নতুন নিয়মের অধীনে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ দেশ থেকে আগত যাত্রীদের জন্য আলাদা এবং বিশেষ প্রোটোকল তৈরি করেছে দেশটি। যদিও এখন পর্যন্ত ভারতে ওমিক্রন শনাক্ত হয়নি, তবুও কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলোতে সতর্কতা অবলম্বন করার নির্দেশ দিয়েছে।

ভারত তার ভ্রমণ নির্দেশিকা সংশোধন করে নতুন নির্দেশনা যোগ করেছে। ফলে কোভিড-১৯ এর রিপোর্ট ছাড়াও বিমানবন্দরে সকল ভ্রমণকারীদের জন্য আরটি-পিসিআর টেস্ট বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। সেই সাথে ভারতে আগত ভ্রমণকারীদের জন্য নির্ধারিত ভ্রমণের আগে অনলাইন এয়ার সুবিধা পোর্টালে স্ব-ঘোষণা ফর্ম জমা দিতে হবে। এছাড়াও ভ্রমণের ১৪ দিন পূর্বের বিবরণও জমা দিতে হবে।

নতুন নির্দেশিকাতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, পিসিআর টেস্ট ভ্রমণের ৭২ ঘণ্টার মধ্যেই হতে হবে। যদি টেস্টের ফলাফল পজেটিভ আসে সেক্ষেত্রে ভ্রমণকারীকে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে সাত দিনের জন্য হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। অষ্টমদিনে পুনরায় পরীক্ষা করানোর ফলাফল নেগেটিভ আসলে যাত্রীদের আইসোলেশনে থাকতে হবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) দ্বারা চিহ্নিত ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ দেশ থেকে আগত ভ্রমণকারীদের জন্য রাজ্যগুলি সাত দিনের কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক করেছে। এই দেশগুলি হল: যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্রাজিল, বাংলাদেশ, বতসোয়ানা, চীন, মরিশাস, নিউজিল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে, সিঙ্গাপুর, হংকং এবং ইসরাইল।

এমনকি মহারাষ্ট্রও কঠোর নির্দেশিকা জারি করেছে। এদিকে, তামিলনাড়ু বিমানবন্দরে নোডাল স্বাস্থ্য কর্মকর্তা নিয়োগ করেছে যাতে আন্তর্জাতিক ভ্রমণকারীদের পরীক্ষা করা হয় এবং কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। এসবের পাশাপাশি ভারত ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ‘হর ঘর দস্তক’ (ডোর টু ডোর) নামক কর্মসূচি চালু করেছে। এতে দেশটির সকল রাজ্যে টিকাগ্রহণের হার বৃদ্ধি পাবে।

কে হবেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী বিচারপতি?



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ব্রাউন জ্যাকসন, লিওনার্ড ক্রুগার ও জুলিয়ানা মিশেল

ব্রাউন জ্যাকসন, লিওনার্ড ক্রুগার ও জুলিয়ানা মিশেল

  • Font increase
  • Font Decrease

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জানিয়েছেন, ইতিহাসে প্রথমবারের মতো মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে একজন কৃষ্ণাঙ্গ নারীকে নিয়োগ করা হয়েছে।

বর্তমান বিচারক স্টিফেন ব্রেয়ারের অবসরের পর পরই কৃষ্ণাঙ্গ নারীকে সেই পদে নিয়োগ দেয়া হবে। তিনি সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময়ে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছিলেন। বিবিসি এর প্রতিবেদন অনুসারে, আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের শেষ দিকেই এই মনোনয়ন দেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে।

এর আগে ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কৃষ্ণাঙ্গদের ব্যাপক সমর্থন পান বাইডেন। সেই সময় নির্বাচনী প্রচারণা হিসেবে তিনি জানান, জয়ী হলে একজন কৃষ্ণাঙ্গ নারীকে তিনি সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেবেন।

নারী বিচারপতি হিসেবে মনোনয়ন করা হয়েছে, ব্রাউন জ্যাকসন, লিওনার্ড ক্রুগার ও মিশেল চাইল্ডসকে।

৫১ বছর বয়সী ব্রাউন জ্যাকসনকে এই পদের জন্য শীর্ষ প্রতিযোগী বলে মনে করছেন সবাই। তার জন্ম ও বেড়ে ওঠা ওয়াশিংটন ডিসিতে। বর্তমানে বিচারপতি স্টিফেন ব্রেয়ারের ল ক্লার্কের কাজ করেছেন।

৪৫ বছর বয়সী লিওনার্ড ক্রুগার ৮ বছর ধরে ক্যালিফোর্নিয়া সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে নিযুক্ত আছেন। তিনি জ্যামাইকাতে জন্মগ্রহণ করেন। স্থানীয় হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইয়েল ল থেকে স্নাতক ডিগ্যী লাভ করেন। তিনি ইয়েল ল জার্নালের সম্পাদক হিসাবে কাজ করা প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ মহিলা ছিলেন।  

৫৫ বছরের জুলিয়ানা মিশেল সাউথ ক্যারোলাইনার ফেডারেল ডিস্ট্রিক্ট জজ। ২০১০ সাল থেকে দক্ষিণ ক্যারোলিনায় ফেডারেল বেঞ্চে কাজ করছেন।

এই মনোনয়ন প্রসঙ্গে বাইডেন বলেন, ‘আমি প্রার্থীদের বিষয়ে যাচাইবাছাই করছি। এখনও কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিইনি। তবে যাকে চুড়ান্ত করব তিনি হবেন অসাধারণ, অভিজ্ঞ।’

সূত্র- বিবিসি

;

আমেরিকায় নিষিদ্ধ হল চীনা ইউনিকম



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

"জাতীয় নিরাপত্তা" এবং "গুপ্তচরবৃত্তি" নিয়ে উদ্বেগের যুক্তিতে যুক্তরাষ্ট্র চীনা টেলিকম কোম্পানি ইউনিকমকে নিষিদ্ধ ঘোষনা করেছে।

আমেরিকার কেন্দ্রীয় টেলিযোগাযোগ কমিশন (এফসিসি) বলেছে ইউনিকমের আমেরিকা অপারেশনসের কাজ বন্ধ করে দেওয়ার ব্যাপারে কমিশন সদস্যদের সবাই একমত হয়েছেন।

আগামি ৬০ দিনের মধ্যে এই কোম্পানিকে আমেরিকাতে কার্যক্রম বন্ধ করতে হবে।

এর আগে গত বছর অক্টোবরে আমেরিকা আরো বড় একটি চীনা টেলিকম কোম্পানির লাইসেন্স বাতিল করে দেয়।

এফসিসিন প্রধান জেসিকা রোজেনওয়ারসেল বলেন, "চীনা সরকারের এসব টেলিকম কোম্পানি যে আমাদের টেলিকম নেটওয়ার্কে সত্যিকারের হুমকি তৈরি করেছে তার বহু প্রমাণ পাওয়া গেছে, এবং এ নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে।"

গত কয়েক বছর ধরে জাতীয় নিরাপত্তার ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র চীনা টেলিকম কোম্পানিগুলোকে টার্গেট করছে।

নভেম্বরে প্রেসিডেন্ট বাইডেন এমন একটি আইনে সই করেছেন যার ফলে জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি তৈরি করতে পারে এমন কোনো কোম্পানিকে নতুন টেলিযোগাযোগ যন্ত্রপাতির ব্যবসার লাইসেন্স পাবে না। নতুন এই আইনের ফলে, হুমকি হিসাবে বিবেচিত কোনো কোম্পানির কাছ থেকে কোনো আবেদনপত্রই আর কেন্দ্রীয় টেলিযোগাযোগ কমিশন বিবেচনা করবে না।

এর অর্থ হুয়াওয়ে, জেডটিই সহ পাঁচটি চীনা কোম্পানির যন্ত্রপাতি যুক্তরাষ্ট্রের টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্কে ব্যবহার করা যাবে না।

২০১৯ সালে, চীনা রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত চায়না মোবাইলেরও যুক্তরাষ্ট্র শাখার লাইসেন্সও বাতিল করা হয়।

সূত্র- বিবিসি

;

নিলামে মেলানিয়ার টুপি, ক্রেতা মাত্র ৫ জন!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মেলানিয়া ট্রাম্প ও ডোনাল্ড ট্রাম্প

মেলানিয়া ট্রাম্প ও ডোনাল্ড ট্রাম্প

  • Font increase
  • Font Decrease

নিলামে উঠল সাবেক ফার্স্ট লেডির টুপি, ক্রেতা জুটল মাত্র ৫ জন। বলতে গেলে টুপি কেনার কোনও ক্রেতাই জোটেনি ট্রাম্প ঘরণীর। বার্তাসংস্থা সিএনএন এর এক প্রতিবেদনে এমনটাই জানিয়েছে।

জানা যায়, নিলামে ওঠা টুপিটি মেলানিয়া পড়েছিলেন ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল ম্যাক্রোর সঙ্গে সাক্ষাতের সময়।

‘অভাগা যেদিকে চায়, সাগর শুকায়ে যায়’এখন ঠিক এই অবস্থা সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তার পরিবারের।

সিএনএন এর এক প্রতিবেদন অনুসারে, চলতি মাসের শুরুতে যখন মেলানিয়ার ওই টুপিটি নিলামে ওঠে তখন টোকেন প্রতি প্রায় ১৭০ ডলার মূল্যে ট্রেড ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু বুধবার যখন ওই টুপির নিলাম বন্ধ হয়েছে তখন দেখা গিয়েছে প্রতিটি টোকেনের মূল্য কমে হয়েছে মাত্র ৯৫ ডলার। এর অর্থ হল ‘হেড অফ স্টেট কালেকশন’।

অর্থাৎ নিলামের প্রথমে যে টুপির মূল্য প্রায় ১ লক্ষ ৭০ হাজার ডলার ধার্য করা হয়েছিল নিলামের শেষ দিনে সেই টুপির দামই কমে এসে ঠেকেছে মাত্র ৮০ হাজার ডলারে। তাতেও মাত্র ৫ জন ওই টুপিটি কেনায় আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলে জানা গিয়েছে।

রাষ্ট্রপতির গদি হারানোর পর থেকেই ক্রমশ কমেছে ট্রাম্পের সম্পত্তির পরিমাণ। কয়েক মাস আগেই আমেরিকার সবচেয়ে ধনী ১৭ জন ব্যক্তির তালিকা থেকেও বাদ যায় সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প গোটা বিশ্বজুড়ে আলোচিত ছিল সেই খবর।

;

ডেলটাক্রন, ওমিক্রনের পর নিওকোভ!



কনক জ্যোতি, কন্ট্রিবিউটিং করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ডেলটাক্রন, ওমিক্রন পেছনে ফেলে সন্ধান মিলেছে কোভিডের নয়া রূপের! এমনই দাবি করে চীনের একদল বিশেষজ্ঞ যে নতুন রূপের নাম দিয়েছে ‘নিওকোভ’। করোনার নতুন রূপের ব্যাপারে চীনা বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কার কথা জানালেও রাশিয়ান বিশেষজ্ঞগণ তাতে পাত্তা দিতে নারাজ।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) চীনের উহানের চিকিৎসা-বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন যে, শ্বাসযন্ত্রকে প্রভাবিত করতে পারে সদ্য আবিষ্কার হওয়া এই মার্স-করোনাভাইরাস। এই রূপের মারণক্ষমতাও তুলনামূলক ভাবে বেশি। প্রতি তিন সংক্রমিতের এক জনের মৃত্যু হতে পারে ‘নিওকোভ’- এ।

উহানের একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে এই সংক্রান্ত গবেষণাপত্র। সেখানে বিশেষজ্ঞরা দাবি করছেন, বাজার চলতি কোনও করোনা টিকাই ‘নিওকোভ’- এর ক্ষেত্রে কার্যকরী হবে না। যদিও এই ভাইরাস নিয়ে আরও বিস্তারিত গবেষণা প্রয়োজন বলে জানাচ্ছেন তারা।

তবে ‘নিওকোভ’- এর মতো রূপের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল ২০১৩ এবং ২০১৫ সালেও। কোভিড-১৯-এর সঙ্গে অনেক জায়গাতেই মিল ছিল তৎকালে আবিষ্কৃত 'নিয়ো-কোভ'র। প্রথম এই ধরনের রূপের সন্ধান মেলে দক্ষিণ আফ্রিকায়। মূলত বাদুড়ের শরীরে পাওয়া যায় ‘নিওকোভ’।

এ নিয়ে গত বৃহস্পতিবারই (২৭ জানুয়ারি) রাশিয়ার ‘ভেক্টর রাশিয়ান স্টেট রিসার্চ সেন্টার অব ভাইরোলজি অ্যান্ড বায়ো-টেকনোলজি’ একটি বিবৃতি দেয়। সেখানে বলা হয়েছে, 'চীনা বিশেষজ্ঞদের যে নয়া রূপ নিয়ে সাবধান করছেন, তা নিয়ে এখনই চিন্তার কিছু নেই। মানব শরীর এই রূপটিতে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা খুবই ক্ষীণ।'

আপাতত করোনার সর্বশেষ রূপ ওমিক্রন নিয়ে সারা বিশ্ব ত্রস্ত। তীব্র সংক্রমণ ক্ষমতার জন্য এই রূপ নিয়ে আলাদা ভাবে চিন্তিত বিশেষজ্ঞরা। তবে আশার কথা, ব্যাপক সংক্রামক হলেও ওমিক্রনের মারণক্ষমতা অনেক কম।

;