সৌদিতে বাধ্যতামূলক হচ্ছে টিকার বুস্টার ডোজ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চোখ রাঙাচ্ছে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’। ইতিমধ্যে ভাইরাসটি কমপক্ষে ৩৮টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। তাই নতুন এই ভ্যারিয়েন্ট ঠেকাতে টিকার বুস্টার ডোজ বাধ্যতামূলক করার কথা জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব।

শুক্রবার (০৩ ডিসেম্বর) সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক টুইট বার্তায় জানিয়েছে, পূর্ণ ডোজ টিকা নেওয়ার আট মাস পর টিকার বুস্টার ডোজ বাধ্যতামূলক করা হবে। আর এটি কার্যকর হবে ২০২২ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতভিত্তিক গালফ নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদি আরবের সকল নাগরিক এবং বাসিন্দাদের অবশ্যই তাওয়াক্কলনা অ্যাপে তাদের ‘ইমিউন’ স্ট্যাটাস সুরক্ষিত করতে ভ্যাকসিনের বুস্টার ডোজ নিতে হবে।

সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ১৮ বছরের বেশি বয়সীদের বুস্টার ডোজ গ্রহণ করতে হবে। করোনার টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণের পর যদি আট মাস পেরিয়ে যায় তাহলে তাদের জন্য বুস্টার ডোজ গ্রহণ বাধ্যতামূলক। ২০২২ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে বুস্টার ডোজ ছাড়া আর তাওয়াক্কালনা অ্যাপে ইমিউন শো করবে না।

তাওক্কালনা অ্যাপে ইমিউন শো না করলে নিম্নোক্ত ক্ষেত্রসমূহে প্রবেশাধিকার সীমিত থাকবে-

>> যে কোনও আর্থিক, ব্যবসায়িক, সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া বা পর্যটন কার্যকলাপে প্রবেশের ক্ষেত্রে।

>> যে কোনো প্রকার সাংস্কৃতিক, বিনোদনমূলক, সামাজিক, শিক্ষামূলক অনুষ্ঠানে প্রবেশের ক্ষেত্রে।

>> যে কোনো সরকারি বা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে প্রবেশের ক্ষেত্রে।

>> প্লেনে এবং পাবলিক ট্রান্সপোর্টে ভ্রমণের ক্ষেত্রে।

এখন পর্যন্ত তাওয়াক্কালনা এপে ইমিউন শো করার জন্য শর্ত ছিল দুই ডোজ টিকাগ্রহণ সম্পন্ন করা। এখন এই নির্দেশনার ফলে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শর্ত হবে তিন ডোজ সম্পন্ন করা।

এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্য স্বামীনাথন বলেছেন, করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’ অত্যন্ত সংক্রমণযোগ্য। তবে এটি নিয়ে মানুষকে আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য বলেছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ওমিক্রন গত ২৪ নভেম্বর প্রথম দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হয়। তারপর অন্যান্য দেশে শনাক্ত হয়েছে নতুন এই ভ্যারিয়েন্ট। করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন নিয়ে এরইমধ্যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। উদ্বিগ্ন বিজ্ঞানীরাও। তারা বলছেন, করোনাভাইরাস ব্যাপকভাবে রূপান্তরিত হয়ে নতুন এই রূপ নিয়েছে। এটি মারাত্মক হুমকি তৈরি করতে পারে বলে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

ক্যামেরুনে স্টেডিয়ামে পদদলিত হয়ে শিশুসহ ৮ জনের মৃত্যু



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ক্যামেরুনের রাজধানী ইয়াউন্ডেতে আফ্রিকা কাপ অব নেশনসের ফুটবল ম্যাচ শুরুর আগে জোরজবরদস্তি করে ঢুকতে গিয়ে পদদলিত হয়ে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং আহত হয়েছে কমপক্ষে ৫০ জন। মৃতদের মধ্যে একটি শিশুও রয়েছে।

স্থানীয় সময় সোমবার (২৪ জানুয়ারি) এ ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের এক নার্স। ফলে মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

বিবিসির খবর অনুযায়ী, পল বিয়া স্টেডিয়ামের দর্শক ধারণ ক্ষমতা ৬০ হাজার হলেও করোনার কারণে সীমিত সংখ্যক দর্শককে মাঠে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। আর মাঠের বাইরে সেই সময় হাজির ছিলেন ৫০ হাজারের বেশি মানুষ। তারা দরজা ভেঙে মাঠের ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করে। কে কার আগে ঢুকবে, তা নিয়ে শুরু হয় প্রতিযোগিতা। আর তাতেই পদদলিত হন আট জন দর্শক।

বিবিসির তরফ থেকে ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন লিওক্যাডিয়া বংবেন। তার বয়ান অনুযায়ী, ‘খেলা শুরু হওয়ার আগে থেকে স্টেডিয়ামের বাইরে ছিলেন কয়েক হাজার দর্শক। রেফারি খেলা শুরুর নির্দেশ দিতেই মাঠের বাইরে কয়েক হাজার দর্শক। তারা স্টেডিয়ামের দরজা ভেঙে ঢোকার চেষ্টা করে। শুরু হয় ধাক্কাধাক্কি। সেই ধাক্কাধাক্কিতে পায়ের নিচে চাপা পড়েন শিশু-সহ কয়েকজন।

সোশ্যাল মিডিয়া ছড়িয়ে পড়েছে ওই ঘটনার ভিডিও। ভিডিওতে দেখা যায়, এখানে-ওখানে ছড়িয়ে রয়েছে স্যান্ডেল, জামা, হাতঘড়ি।

কনফেডারেশন অব আফ্রিকান ফুটবল সিএএফ জানিয়েছে, তারা এই ঘটনার উচ্চপর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।

সূত্র-এফপি

;

অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হল ইস্তানবুল এয়ারপোর্ট



আন্তর্জাতিক ডেস্ক,বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিরল তুষার ঝড়ে ধসে পড়েছে ইস্তানবুল বিমানবন্দরের কার্গো টার্মিনালের একাংশ। এই কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হল ইউরোপের ব্যস্ততম বিমানবন্দরটিকে। রয়টার্স এর প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া যায়।

পূর্ব ভূমধ্যসাগরে তুষার ঝড়ে বিধ্বস্ত এথেন্স। স্কুল-দোকান-বাজার বন্ধ হয়েছে আগেই। সোমবার(২৪ জানুয়ারি) থেকে বন্ধ হয়ে গেল মধ্য প্রাচ্য ও আফ্রিকা থেকে ইউরোপ ও এশিয়া যাতায়াতের গুরুত্বপূর্ণ আকাশপথ।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ২০১৯ সালের পর এই প্রথম বার বন্ধ রাখতে হল ইস্তানবুল বিমানবন্দর। এতে বেশ অসুবিধায় পড়েছেন যাত্রীরা।শীতের শুরুর দিক অবশ্য সবকিছু ঠিকই ছিলো। প্রথম তুষারপাতের আনন্দে উৎফুল্লও ছিলেন ছোট-বড় সবাই।

বিপর্যয় শুরু হল দিন কয়েক আগে। ভয়ঙ্কর তুষারপাতে বিধ্বস্ত তুরস্কের বৃহত্তম শহর। পুরু বরফের আস্তরণে ঢাকা পড়েছে রাস্তাঘাট, হাইওয়ে, পার্কিং-লট সব। সময়ের আগেই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে শপিং সেন্টারগুলো। খাবারের ডেলিভারি সার্ভিসও বন্ধ। ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষ।

ইতোমধ্যে ইস্তানবুল সরকারের তরফে গাড়ি চালকদের বিশেষ ভাবে সাবধান করা হয়েছে। জারি করা হয়েছে থ্রেস থেকে ইস্তানবুল প্রবেশের ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ। আর তার মধ্যেই বন্ধ হয়ে গেল ইস্তানবুল বিমানন্দর।

গত বছর ৩ কোটি ৩৭ লক্ষ যাত্রী যাওয়া-আসা করেছেন এই বিমানবন্দরে।

;

ইউক্রেন ইস্যুতে পেন্টাগন ৮৫০০ সেনাকে উচ্চ সতর্কতায় রেখেছে



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউক্রেন নিয়ে চলমান উত্তেজনার মধ্যে পূর্ব ইউরোপে মোতায়েনের জন্য প্রায় সাড়ে আট হাজার সেনাকে উচ্চ সতর্কতায় রেখেছে পেন্টাগন।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়।

পেন্টাগনের মুখপাত্র জন এফ কিরবি বলেছেন, এই সৈন্য তখনই মোতায়ন হবে, যখন পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটো র‍্যাপিড রিঅ্যাকশন ফোর্স সক্রিয় করার সিদ্ধান্ত নেবে কিংবা অন্য কোনো পরিস্থিতি তৈরি হলে।

দেশটির প্রতিরক্ষা বিভাগের কর্মকর্তারা বলেছেন, এই সৈন্য মোতায়ন হলে পূর্ব ইউরোপে আমেরিকান মিত্রদের ভয় দূর হবে।

সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে কিরবি বলেন, এটা খুব স্পষ্ট যে রুশদের এখনই যুদ্ধ করার কোনো ইচ্ছা নেই। যদিও, এটি আমাদের ন্যাটো মিত্রদের বিশ্বাস।

যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলোর অভিযোগ, ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালানোর পরিকল্পনা করছে রাশিয়া। এ অভিযান চালানোর জন্য ইউক্রেন সীমান্তে প্রায় এক লাখ সেনা মোতায়েন করেছে রাশিয়া। তবে পশ্চিমা দেশগুলোর এ অভিযোগ অস্বীকার করছে মস্কো।

কিরবি আরও বলেন, আমি মনে করি না যে কেউ ইউরোপ মহাদেশে আরেকটি যুদ্ধ দেখতে চায়।

এদিকে, ইউক্রেনে রাশিয়ার সম্ভাব্য আগ্রাসন ঠেকাতে একটি সম্মিলিত কৌশল ঠিক করার লক্ষ্যে কাজ করছে পশ্চিমা শক্তিগুলো। এ প্রেক্ষাপটে স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার ইউরোপের মিত্রদেশগুলোর নেতাদের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

;

উত্তেজনার মধ্যে পূর্ব ইউরোপে শক্তি বাড়াচ্ছে ন্যাটো



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেন ইস্যুতে পশ্চিমাদের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই পূর্ব ইউরোপে সামরিক শক্তি বাড়াচ্ছে ন্যাটো। পশ্চিমা নীতিনির্ধারকদের ধারণা যে কোনো সময় ইউক্রেনে হামলা চালাতে পারে রাশিয়া।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ন্যাটো জানিয়েছে তারা তাদের বাহিনীকে প্রস্তুত রেখেছে এবং পূর্ব ইউরোপে বাড়তি যুদ্ধজাহাজ ও যুদ্ধবিমান মোতায়েন করেছে। ইউরোপের দক্ষিণ-পূর্ব দিকে বাড়তি সেনাও মোতায়েন করা হয়েছে।

ন্যাটোর সেক্রেটারি জেনারেল জেন্স স্টোলেনবার্গ সোমবার (২৪ জানুয়ারি) বলেছেন, ন্যাটো সকল প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে। এমনকি ইউরোপের দক্ষিণ-পশ্চিমেও যুদ্ধসেনা মোতায়েন করার বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে।

পশ্চিমাদের সঙ্গে রাশিয়ার কয়েক দফা আলোচনা ব্যর্থ হওয়ার পর এখন ইউক্রেন সীমান্তে যুদ্ধের আশঙ্কা করা হচ্ছে। রাশিয়া ইতিমধ্যে দেশটির সীমান্তে প্রায় ১ লাখ সেনা মোতায়েন করেছে।

স্টোলেনবার্গ এক বিবৃতিতে বলেছেন, আমাদের সম্মিলিত প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। তবে, নিরাপত্তা ব্যবস্থার কোনো অবনতি হলে আমরা সবসময় সাড়া দেব।

ইউক্রেন সেনাদের প্রতিরক্ষামূলক অস্ত্র সরবরাহ করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য। যদিও যুক্তরাজ্য ইউক্রেন রক্ষায় সেনা পাঠানোর সম্ভাবনা নাকোচ করে দিয়েছে।

এদিকে, মার্কিন সামরিক বাহিনী সোমবার বলেছে, তারা ৮ হাজার ৫০০ সৈন্যকে ইউরোপে মোতায়েন করার জন্য প্রস্তুত থাকার জন্য সতর্ক করেছে।

পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি জোর দিয়ে বলেছেন, সৈন্য মোতায়েনের বিষয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি এবং এই জাতীয় যে কোনও মোতায়েনের ফলে স্নায়বিক মিত্রদের আশ্বস্ত করতে ন্যাটোর পূর্ব দিকে মার্কিন সৈন্যদের আন্তঃইউরোপীয় আন্দোলন থেকে আলাদা হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইউক্রেনের সীমান্তে রাশিয়ার বিল্ড আপের প্রতিক্রিয়া জানাতে মিত্রদের সাথে সমন্বয়ের অংশ হিসাবে সোমবার ইউরোপীয় নেতাদের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলেছেন।

;