মালয়েশিয়ায় ভয়াবহ বন্যা, বাস্তুচ্যুত কয়েক হাজার



আন্তর্জাতিক ডেস্ক,বার্তা২৪.কম
উদ্ধারকার্য চলছে

উদ্ধারকার্য চলছে

  • Font increase
  • Font Decrease

গত কয়েক দশকের মধ্যে ভয়াবহ বন্যার কবলে পড়েছে মালয়েশিয়া। বন্যায় দেশটিতে ১৪ জনের মৃত্যু এবং কয়েক হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, টানা তিন দিনের ভারী বৃষ্টিতে দেশটির আটটি রাজ্যে এ বন্যা দেখা দিয়েছে। সরকারি কর্মকর্তারা বলেছেন, বন্যাদুর্গতদের উদ্ধারে সব ধরনের চেষ্টা চলছে।

সরকার উদ্ধারকাজ বিলম্ব করায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে।

 সোমবার পর্যন্ত মালয়েশিয়ার পূর্ব উপকূলে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্য পাহাং থেকে একান্ন হাজার বাসিন্দাকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। দেশটির রাজধানী কুয়ালালামপুরের সবচেয়ে সমৃদ্ধ ও ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা সেলাঙ্গর ভয়ানক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে।

সপ্তাহ শেষে অনলাইনে প্রকাশিত কিছু ছবিতে দেখা যায় কুয়ালালামপুর এর বেশ কিছু অংশ পানিতে নিমজ্জিত। পানির এই স্তর সাধারণত ১৯৭১ সালে দেশটিতে হয়ে যাওয়া বন্যার পর আর দেখা যায় নি।

উদ্ধার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন তারা আশ্রিতদের মধ্যে সম্ভাব্য কোভিড রোগীর সন্ধান চালাচ্ছেন,কারণ হাজার হাজার লোক আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে। যেকোনো সময় সংক্রমণ শুরু হতে পারে।
সোমবারের মধ্যে বৃষ্টি কমে গিয়েছে।বন্যার পানি কমে আসার কারণে অনেক ক্ষতিগ্রস্তরা ইতোমধ্যেই তাদের বাড়িতে ফেরা আরম্ভ করছে।

‘আমাদের সাথে শুধু কিছু কাপড়,বাচ্চাদের জন্ম-নিবন্ধনের মতন কিছু দরকারি কাগজপত্র রয়েছে।’ বলে জানিয়েছেন সাজুয়াতু রেমলি নামে একজন বন্যাদুর্গত।
অপরপক্ষে ধীর উদ্ধার প্রক্রিয়ার জন্য ক্ষোভ দেখা দিয়েছে দেশটির জনগণের মাঝে। বন্যার তিনদিন পর উদ্ধার-কর্মীরা এসেছেন বলে ক্ষোভ প্রকাশ করে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টকে (এসসিএমপি) বলেন একজন স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক।

সেলাঙ্গরে বন্যার পানির স্তর বেড়ে যাওয়ার পরেও বার্ষিক সভা নিয়ে এগিয়েছিল দেশটির দুটি বৃহত্তম রাজনৈতিক দল। সোশ্যাল মিডিয়ার কিছু দল একত্র হয়ে কায়াক এবং লাইফ জ্যাকেটসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় দ্রব্য ক্রয় অভিযানে সহায়তা করার জন্য বিভিন্ন সমাবেশ করছে।কিছু স্বেচ্ছাসেবক আশ্রয়স্থল হিসেবে নিজেদের বাসস্থান ব্যবহার করতে দেওয়ার ইচ্ছে জানিয়েছেন।

মালয়েশিয়ার কিছু অংশ নভেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি বর্ষা মৌসুমে বন্যার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ ।

পেট্রোলের মজুদও শেষ, চলবে আর ১ দিন: শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহ

শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহ

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশবাসীকে সতর্ক করেছেন শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে। তিনি বলেছেন, সামনে কয়েকটি মাস হবে সব নাগরিকের জীবনে সবচেয়ে জটিল। এ সময়ে কিছু ত্যাগ স্বীকারে দেশবাসীকে প্রস্তুত থাকতে হবে।

দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, অর্থনৈতিক সংকটে টালমাটাল শ্রীলঙ্কার পেট্রোলের মজুদও শেষ দিনে নেমে এসেছে।

সোমবার (১৬ মে)  জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে তিনি এসব কথা বলেছেন।

রনিল বিক্রমাসিংহে বলেন, প্রকৃত সত্য লুকানোর এবং জনগণের কাছে মিথ্যা বলার কোনো ইচ্ছা তার নেই। যদিও এসব সত্য কথা সুখকর নয় এবং ভয়ার্ত, তবু এটাই হচ্ছে সত্যিকার পরিস্থিতি।

জরুরি আমদানির জন্য শ্রীলঙ্কার জরুরিভিত্তিতে ৭৫ মিলিয়ন ডলার বৈদেশিক মুদ্রা প্রয়োজন বলে উল্লেখ করে রনিল বলেন, এই মুহূর্তে আমাদের কাছে শুধু ১ দিনের পেট্রোল আছে। আগামী কয়েক মাস আমাদের জীবনের সবচেয়ে কঠিন সময় হবে। আমাদের ত্যাগ স্বীকার এবং এই সময়ের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার জন্য নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে।

ভারতীয় ক্রেডিট লাইন ব্যবহার করে দেশে আনা ২টি পেট্রোল এবং ২টি ডিজেলের চালান আগামী কয়েক দিন স্বস্তি দিতে পারে বলে উল্লেখ করেন তিনি। তবে, শ্রীলঙ্কা ১৪টি প্রয়োজনীয় ওষুধের ঘাটতিরও মুখোমুখি হচ্ছে বলে জানান রনিল।

জ্বালানি সংকটের কারণে আজ শ্রীলঙ্কার বাণিজ্যিক রাজধানী কলম্বোতে গ্যাস স্টেশনগুলোতে অটোরিকশার দীর্ঘ সারি দেখা গেছে। দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করেও ফিরে যেতে হচ্ছে অনেককে।

মোহাম্মদ আলী নামের এক চালক  রয়টার্সকে বলেন, 'আমি ৬ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি। পেট্রোল পেতে আমাদের প্রায় ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়।'

রনিল বিক্রমাসিংহে বলেন, আমরা যে সময় অতিবাহিত করেছি তার চেয়েও কঠিন সময় অল্প সময়ের মধ্যে আমাদের সামনে আসবে। আমরা বিবেচ্য চ্যালেঞ্জ এবং প্রতিকূলতার মোকাবিলা করবো। সামনের মাসগুলোতে আমাদের বিদেশি বন্ধুরা সহায়তা করবে। এরই মধ্যে তারা সমর্থন দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তাই সামনের মাসগুলোতে আমরা ধৈর্য্য ধারণ করবো। তাহলেই আমরা পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে পারবো। তা করতে আমাদেরকে নতুন পথ অবলম্বন করতে হবে।

;

ক্যালিফোর্নিয়ায় চার্চে বন্দুকধারীর হামলায় বহু হতাহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় একটি চার্চে বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত অন্তত একজন নিহত এবং পাঁচজন আহত হয়েছেন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, রোববার (১৫ মে) ক্যালিফোর্নিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে লেগুনা উডস শহরের জেনেভা প্রেসবিটেরিয়ান চার্চ লক্ষ্য করে গুলি চালায় বন্দুকধারী। এতে বেশ কয়েকজন হতাহত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

স্থানীয় কর্মকর্তারা জানান, কয়েকজনকে গুলি করা হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক এবং একটি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনার মাত্র একদিন আগেই যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক রাজ্যের বাফেলো শহরের একটি সুপার মার্কেটে বন্দুকধারীর হামলায় ১০ নিহত হয়েছেন।

অরেঞ্জ কাউন্টি শেরিফের বিভাগ টুইটারে জানিয়েছে, লস অ্যাঞ্জেলেসের প্রায় ৮০ কিলোমিটার (৫০ মাইল) দক্ষিণ-পূর্বে লেগুনা উডস শহরে অবস্থিত জেনেভা প্রেসবিটারিয়ান চার্চে দুপুর দেড়টার দিকে এঘটনা ঘটে।

শেরিফের মুখপাত্র ক্যারি ব্রাউন বলেছেন, প্রায় ৩০ জন লোক সহিংসতা প্রত্যক্ষ করেছেন। গির্জার অভ্যন্তরে বেশিরভাগই তাইওয়ানি বংশোদ্ভূত নাগরিকরা ছিলেন।

ক্যালিফোর্নিয়ার কর্তৃপক্ষ চার্চে হামলার সম্ভাব্য উদ্দেশ্য সম্পর্কে কোনো বিবৃতি দেয়নি।

;

রাশিয়ার হুমকি সত্ত্বেও ন্যাটোতে আবেদন করবে ফিনল্যান্ড



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট সৌলি নিনিস্তো

ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট সৌলি নিনিস্তো

  • Font increase
  • Font Decrease

রাশিয়ার হুমকি সত্ত্বেও ন্যাটোতে যোগদানের আবেদন করবে ফিনল্যান্ড বলে জানিয়েছে দেশটির সরকার। এর মধ্যে দিয়ে দীর্ঘদিনের নিরপেক্ষ ভাবমূর্তিকেও পিছনে ফেলে ন্যাটোতে যোগদানের  বিষয়ে প্রতিশ্রুতিবব্ধ স্ক্যান্ডিনেভিয়ার দেশটি।

রোববার (১৫ মে) ন্যাটোতে আবেদনের ঘোষণা যৌথভাবে দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট সৌলি নিনিস্তো এবং প্রধানমন্ত্রী সানা মারিন।

তারা বলেছেন, পদক্ষেপটি এগিয়ে নিতে সংসদে অনুমোদন করা হবে।

হেলসিঙ্কিতে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা আশা করছি পার্লামেন্ট ন্যাটোর সদস্য হওয়ার আবেদনের সিদ্ধান্ত অনুমোদন দেবে।

তিনি আরও বলেন, আগামী দিনগুলোতে এটি প্রজাতন্ত্রের প্রেসিডেন্টের সাথে একটি শক্তিশালী আদেশের ভিত্তি হবে। আমরা ন্যাটো সদস্য দেশের সরকার এবং ন্যাটোর সাথে যোগাযোগ রেখেছি।

ফিনল্যান্ডের এই পদক্ষেপের ফলে রাশিয়া ও ফিনল্যান্ডের ৮৩০ মাইল সীমান্তে মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটকে চলে আসবে। তবে চূড়ান্ত হতে কয়েক মাস সময় লাগতে পারে কারণ ন্যাটের বর্তমান সদস্য ৩০ দেশেরর আইনসভাকে অবশ্যই নতুন আবেদনকারীদের অনুমোদন করতে হবে।

বিশ্বের রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, এই পদক্ষেপ রাশিয়ার ক্রোধ উসকে দেওয়ার ঝুঁকিও রাখে। যার আভাষ গতকাল শনিবার দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

ক্রেমলিনের এক বিবৃতিতে তিনি শনিবার ফিনিশ প্রেসিডেন্ট সৌলি নিনিস্তোকে বলেছেন সামরিক নিরপেক্ষতা ত্যাগ করে ন্যাটোতে যোগ দেওয়া একটি "ভুল সিদ্ধান্ত" হবে।

এদিকে শনিবার, পেমেন্ট পাওয়ার সমস্যার কারণে নর্ডিক দেশে রাশিয়া বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে।

শনিবার নিনিস্তো পুতিনের বক্তব্যের জবাবে ন্যাটোতে যোগদানের বিষয়ে বলেছেন, ২০২১ সালের শেষের দিকে রাশিয়ার দাবি অনুসারে ন্যাটোতে যোগদান থেকে বিরত রাখা হয়েছিল। কিন্তু ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রাশিয়ার ব্যাপক আক্রমণ ফিনল্যান্ডের নিরাপত্তা পরিবেশকে পরিবর্তন করেছে। নতুন করে ভাবতেও হচ্ছে।

এদিকে সুইডেনও নিরাপত্তা নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছে। দেশটি ন্যাটোতে যোগদানের জন্য একই ধরনের পদক্ষেপ নেবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সূত্র: সিএনএন

;

তিন দিনের ইডি হেফাজতে পি কে হালদার



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশ থেকে কয়েক হাজার কোটি টাকা পাচার করার অভিযোগ নিয়ে বছর কয়েক ধরে পালিয়ে থাকা এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদারসহ (পি কে হালদার) ৫ জনকে ১৭ মে পর্যন্ত ভারতের এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) হেফাজতে রাখার আদেশ দিয়েছেন কলকাতা আদালত।

রোববার (১৫ মে) বারাসাতের আদালতে তোলা হলে তদন্তের স্বার্থে তাদের ১৭ মে পর্যন্ত ইডি হেফাজতে নেওয়ার নির্দেশ দেন বিচারক। তবে আটক নারী সহযোগিকে ১৭ তারিখ পর্যন্ত রাখা হবে জেল হেফাজতে। অনলাইনে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এসব আদেশ দিয়েছেন আদালত।

এর আগে, শনিবার (১৪ মে) উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার অশোকনগর থেকে পি কে হালদারের সঙ্গে তার দুই ভাইসহ গ্রেফতার হয়েছেন আরও ৫ জন।

অর্থপাচারে অভিযুক্ত পি কে হালদারের সম্পদের খোঁজে পশ্চিমবঙ্গের এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টরেট ১০টি অভিযান চালায়। পরে তাকে গ্রেফতার করা হয় ভারতের উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগর থেকে।

শনিবার এক বিবৃতিতে ইডি জানিয়েছে, পি কে হালদার ভুয়া তথ্য-পরিচয় এবং রেশন কার্ডের মতো জাতীয় কার্ড ব্যবহার করে ভারতীয় নাগরিকত্ব নিয়েছিলেন শিবশংকর হালদার নামে। ভারতীয় পরিচয়ে পশ্চিমবঙ্গে বিপুল অর্থবিত্তের মালিক হন তিনি।

ইডির অভিযানে, তিনিসহ তার দুই ভাই প্রীতিশ ও প্রাণেশ হালদার, সহযোগী স্বপন মৈত্র, উত্তম মৈত্র এবং এক নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

হুন্ডির মাধ্যমে ভারতে টাকা পাচারে পি কে হালদারকে সহযোগিতা করেছেন সুকুমার মৃধা। আর সম্পদ কেনায় সাহায্য করেছেন সুকুমারের মেয়ে অনিন্দিতা ও মেয়ের জামাই সঞ্জিব হাওলাদার। এ তথ্যের ভিত্তিতেই পশ্চিমবঙ্গজুড়ে তল্লাশি চালিয়েছে ইডি।

;