ভারতে ২ লাখ ৬৮ হাজার নতুন করোনা রোগী



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার পর থেকে ফের ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখ ৪৭ হাজার ৬৮ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট ৩ কোটি ৬৭ লাখ মানুষের করোনা শনাক্ত হলো।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে দেশটির ২৮টি রাজ্যেই। ভারতে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ৪১ জন। দেশটিতে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা মোট শনাক্তের ৩ দশমিক ৮৫ শতাংশ।

দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টাতেই দেশটিতে নতুন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৬৮ হাজার ৮৩৩ জন। শুক্রবার এই সংখ্যাটি ছিল ২ লাখ ৬৪ হাজারের বেশি। অর্থাৎ একদিনেই ভারতে সংক্রমণ বেড়েছে ১ দশমিক ৮৮ শতাংশ। দেশটিতে মোট সংক্রমণের হার ১৬ দশমিক ৬৬ শতাংশ।

সাপ্তাহিক সংক্রমণের হারও বেড়ে ১১ দশমিক ৮৩ শতাংশ। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪০২ জন। এই নিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার এই দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৮৫ হাজার ৭৫২ জনে।

ভারতে বর্তমানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১৪ লাখ ১৭ হাজার ৮২০ জন। ২২১ দিনের মধ্যে এটিই সর্বোচ্চ সংখ্যা। গত কয়েক সপ্তাহ আগেও দেশটিতে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা মোট আক্রান্তের ১ শতাংশেরও কম ছিল। বর্তমানে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ দশমিক ৮৫ শতাংশে। এছাড়া সুস্থতার হারও কমে ৯৪ দশমিক ৮৩ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্যগুলোর মহারাষ্ট্র অন্যতম। শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) রাজ্যটিতে ৪৩ হাজার ২১১ জনের করোনা শনাক্ত হয় এবং ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

সিরিয়ায় আইএসের হাতে বন্দী শত শত শিশু



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে একটি কারাগারে সশস্ত্র গোষ্ঠী আইএসের হাতে বন্দী রয়েছে শত শত শিশু। তাদের ভাগ্য নিয়ে আশঙ্কা বাড়ছে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, হাসাকার ঘোয়ারান নামে ওই কারাগারে প্রায় ৮৫০ শিশু রয়েছে, যেখানে গত বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) আইএস যোদ্ধারা হামলা শুরু করে।

জেলে বন্দি থাকা যোদ্ধাদের মুক্ত করতে আইএস আক্রমণ শুরু করার পর থেকে কারাগারটিতে কমপক্ষে ১৩৬ জন নিহত হওয়ার খবর দিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো। কুর্দি কর্তৃপক্ষ পরিচালিত কারাগারে হাজার হাজার আইএস সন্দেহভাজন বন্দি রয়েছে।

মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনী দ্বারা সমর্থিত কুর্দি নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস (এসডিএফ) জোট বেশ কয়েক বছর আগে সিরিয়ার বড় অংশ দখল করার পরে আইএস গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে তীব্র লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। ২০১৯ সালের মার্চ মাসে আইএস-কে আঞ্চলিকভাবে পরাস্ত করার ঘোষণা দেওয়া হয়।

তবে আইএস সেলগুলি এখনও সক্রিয় এবং নিরাপত্তা বাহিনী ও বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে মারাত্মক হামলা চালিয়ে আসছে সশস্ত্র সংগঠনটি। ১০০ জনেরও বেশি আইএস যোদ্ধা কারাগারটিতে হামলা চালায়। পাশাপাশি মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের বিমান হামলায় ভয়ানক লড়াই শুরু হয়।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) যুক্তরাজ্যভিত্তিক পর্যবেক্ষণ গোষ্ঠী সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস (এসওএইচআর জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার থেকে কারাগারে সংঘর্ষে ৮৪ আইএস যোদ্ধা, সাত বেসামরিক এবং নিরাপত্তা বাহিনীর ৪৫ জন কুর্দি সদস্য এবং কারারক্ষী নিহত হয়েছে।

জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ বলেছে, যুদ্ধের মধ্যে কারাগারে আটক প্রায় ৮৫০ শিশুর জন্য তারা উদ্বিগ্ন। শিশুদের নিরাপত্তা চরম বিঘ্নিত হচ্ছে। শিশুদের মধ্যে রয়েছে ১২ বছরের কম বয়সী অনেক শিশু। যুদ্ধে জোরপূর্বক শিশুদের ব্যবহার করারও অভিযোগ করেছে ইউনিসেফ।

কুর্দি-নেতৃত্বাধীন এসডিএফ বাহিনী বলছে, আইএস যোদ্ধারা একটি ছাত্রাবাসে লুকিয়ে ছিল। শতাধিক শিশু যাদের আইএসের সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে আটক করা হয়েছিল। তাদের ‘মানব ঢাল’ হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। সন্ত্রাসীরা যদি বাচ্চাদের আঘাত করে তবে পাল্টা হামলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে এসডিএফ।

এসডিএফ বলেছে, তাদের বাহিনী কারাগারের আশেপাশের এলাকা বন্ধ করে দিয়েছে, যার ফলে আইএস যোদ্ধারা আর পালাতে পারবে না। আইএসের শিশুরা একটি বিপর্যয়কর অবস্থার মধ্যে পড়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, কারাগারে আটক শিশুদের আত্মীয়রা বলছেন, যথাযথ প্রমাণ ছাড়াই এবং এসডিএফে জোরপূর্বক যোগদান প্রতিরোধ করার জন্য তাদের আটক করা হয়েছে।

;

শর্ত সাপেক্ষে উচ্চ আদালতে যাওয়ার অনুমতি পেলেন অ্যাসাঞ্জ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে প্রত্যর্পণ মামলার জন্য সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার অনুমতি দিয়ে রায় দিয়েছে যুক্তরাজ্যের হাইকোর্ট।

তবে ব্রিটেনের আদালত অ্যাসাঞ্জকে আপিলের অনুমতি দিলেও জুড়ে দিয়েছেন শর্ত। সরাসরি উচ্চ আদালতে আবেদন করতে পারবেন না তিনি।

সুপ্রিম কোর্ট বিষয়টি প্রথমে খতিয়ে দেখবেন অভিযুক্তকে নিম্ন আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে উচ্চ আদালতে পিটিশন ফাইলের ব্যাপারে সম্মতি দেওয়া যায় কি না।

তাই আপাতত সুপ্রিম কোর্টের রায়ের দিকে তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে উইকিলিক্সের প্রতিষ্ঠাতাকে।

কিছুটা প্রতিবন্ধকতা থাকলেও অ্যাসাঞ্জের বান্ধবী স্টিলা মরিস হাইকোর্টের রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিদের তিনি বলেন, ‘এই রায়ের জন্য আমাদের অপেক্ষা করতে হয়েছিল। আদালত এই রায় দেওয়ায় আমরা খুশি। আইনি লড়াইয়ের প্রথম ধাপে আমরা জয়ী হলাম।

স্টিলা জানিয়েছেন, অ্যাসাঞ্জ শারীরিকভাবে আগের থেকে অনেকটাই দূর্বল। গত তিন বছর ধরে সে জেলে বন্দী। অবিলম্বে তাকে মুক্তি না দিলে শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হবে।

গত কয়েক মাস ধরে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে নিয়ে উত্তাল আন্তর্জাতিক মহল। তার বিরুদ্ধে মার্কিন সেনার গোপন নথি ফাঁসের অভিযোগ রয়েছে। ওই কাণ্ডের পর জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ ব্রিটেনে আশ্রয় নেন। আমেরিকা সে দেশ থেকে তাকে ফেরত চেয়ে সরব। মামলা গড়ায় আদালতে। প্রথমে নিম্ন আদালত অভিযুক্তকে আমেরিকার হাতে তুলে দেওয়ার পক্ষে রায় দিলেও নিম্ন আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টে মামলা হয়। গত কয়েক মাস ধরে চলছিল শুনানি।

সূত্র- আল-জাজিরা

;

জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুকধারীর হামলা, হামলাকারী নিহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে এক বন্দুকধারীর হামলায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এসময় পুলিশের গুলিতে মারা গেছেন ওই বন্দুকধারী।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) এ ঘটনা ঘটে বলে সিএনএন-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

দেশটির পুলিশের এক মুখপাত্র সিএনএনকে বলেছেন, জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলাকারী নিহত হয়েছেন। তবে, তিনি বলতে পারেনি বন্দুকধারীর হামলায় কতজন আহত হয়েছেন।

জার্মানির ম্যানহেইম পুলিশ এক টুইট বার্তায় জানিয়েছে, ঘটনাস্থলে পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ ও জরুরি পরিষেবা রয়েছে।

হাইডেলবার্গ ফ্রাঙ্কফুর্টের দক্ষিণে অবস্থিত এবং এই শহরে প্রায় ১ লাখ ৬০ হাজার লোক বসবাস করে। হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়টি জার্মানির সবচেয়ে পুরনো বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি।

;

যুক্তরাষ্ট্রের পর এবার ইউক্রেন থেকে কর্মী সরিয়ে নিচ্ছে যুক্তরাজ্য



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আসন্ন রুশ আক্রমণের আশঙ্কা অব্যাহত থাকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পর এবার ইউক্রেনের দূতাবাস থেকে কর্মীদের প্রত্যাহার শুরু করেছে যুক্তরাজ্য। কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দপ্তর সোমবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে যে, রাশিয়ার ক্রমবর্ধমান হুমকি ও অস্থিরতার ওপর ভিত্তি করে ইউক্রেনে ব্রিটেনের দূতাবাসের গুরুত্বপূর্ণ কর্মীদের সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

এর আগে সোমবার মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর ইউক্রেনের মার্কিন দূতাবাসের সমস্ত আমেরিকান কর্মীদের পরিবারকে দেশ ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দেন। সেইসাথে সেই দেশের নাগরিকদের সফর না করার উপদেশ দিয়েছে কিয়েভের মার্কিন দূতাবাস।

বিগত কয়েকমাস ধরেই পূর্ব ইউরোপে ন্যাটো জোটের প্রভাব বিস্তার নিয়ে আপত্তি জানিয়ে আসছে রাশিয়া। সম্প্রতি, আমেরিকার নেতৃত্বাধীন সামরিক গোষ্ঠীতে কিয়ভের যোগ দেওয়ার কথা শোনা যাওয়ার পর থেকেই ইউক্রেন সীমান্তে দ্রুত সেনা মোতায়ন করেছে মস্কো। স্যাটেলাইট থেকে পাওয়া ছবি থেকে পাওয়া যাচ্ছে আসন্ন যুদ্ধের ইঙ্গিত!

এই পরিস্থিতিতে কিয়ভের পাশে দাঁড়িয়েছে ব্রিটেন ও কানাডা। রুশ বাহিনীকে ঠেকাতে এরই মধ্যে ইউক্রেন হাতে অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক মিসাইল তুলে দিয়েছে ব্রিটেন। শুধু তাই নয়, ইউক্রেন সেনাকে সাহায্য করতে বিশেষ কমান্ডো বাহিনী পাঠিয়েছে কানাডা।

এর আগে ন্যাটো গোষ্ঠীতে ইউক্রনেকে অর্ন্তভুক্ত না করার দাবি জানিয়েছে রাশিয়া। না হলে সামরিক পদক্ষপে নেওয়া হবে বলে হুমকি দিয়েছে মস্কো। এই পরিস্থিতিতে ইউক্রেনে পৌঁছেছে ৩০ জনের ব্রিটিশ কমান্ডো বাহিনী।

এই সাথে প্রায় ২ হাজার ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী হাতিয়ার ও পাঠিয়েছে লন্ডন, এবং ভবিষ্যতে আরও হাতিয়ার পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা সচিব বেন ওয়ালেস।

;