স্বপ্ন ছুঁয়েছে’ পদ্মার এপার-ওপার

ইন্দোনেশিয়ার নতুন রাজধানী নুসানতারা



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রপতি জোকো উইডোডো ও পূর্ব কালিমান্তানের গভর্নর ইসরান নূর একটি এলাকা পরিদর্শনের সময়

ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রপতি জোকো উইডোডো ও পূর্ব কালিমান্তানের গভর্নর ইসরান নূর একটি এলাকা পরিদর্শনের সময়

  • Font increase
  • Font Decrease

জাকার্তার পরিবর্তে নতুন রাজধানী পাচ্ছে ইন্দোনেশিয়া। বর্নিও দ্বীপপুঞ্জের পূর্ব কালিমানতানের`নুসানতারা’য় গড়ে তোলা হচ্ছে দেশের নতুন রাজধানী।

মঙ্গলবার ইন্দোনেশিয়া সংসদে এ বিষয়ে অনুমোদনও দেওয়া হয়েছে। তবে জাকার্তা থেকে নুসানতারায় রাজধানী স্থানান্তরের কাজ বেশ সময় সাপেক্ষ। নতুন করে পরিকাঠোমো গড়ে তোলার কাজ শুরু হচ্ছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।
জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে গত কয়েক বছর ধরে রাজধানী জাকার্তার বিভিন্ন এলাকা পানির নিচে তলিয়ে গিয়েছে। যে কোন মুহুর্তে ১ কোটি জনসংখ্যার শহরটিতে বড়সড় বিপর্যয় নেমে আসতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। জাকার্তার উপরে চাপ কমানোর জন্য বিকল্প রাজধানীর নিয়ে ভাবছিলেন ইন্দোনেশিয়ার শীর্ষ প্রশাসনিক আধিকারিকরা।

২০১৯ সালে দেশটির প্রেসিডেন্ট জোকো উইডিডো প্রথম ঘোষণা করেন, ‘জাকার্তা থেকে দেশের রাজধানী সরানো হবে। বর্নিও দ্বীপপুঞ্জের কোনও শহরে গড়ে তোলা হবে নতুন রাজধানী। কিন্তু করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে সেই পরিকল্পনা স্থগিত রাখা হয়।
দেশটির পরিকল্পনামন্ত্রী সুহারসো মোনোরফা জানিয়েছেন, নতুন স্টেট ক্যাপিটাল আইনে প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো ৩২ বিলিয়ন ডলারের এই মেগাপ্রজেক্ট অনুমোদন দিয়েছেন। অনুমোদন দেওয়া বাজেটে রাজধানীর উন্নয়ন পরিচালনা করা হবে।
দেশের নতুন রাজধানী হিসেবে প্রাথমিকভাবে ৮০টি জায়গাকে বাছাই করা হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত ভৌগলিক অবস্থান এবং যোগাযোগের সুবিধার বিষয়টি মাথায় রেখে ‘নুসানতারা’কে বেছে নেওয়া হয়েছে।

নরওয়েতে বন্দুক হামলায় নিহত ২, আহত ২১



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নরওয়ের রাজধানী অসলোতে বন্দুক হামলায় দুই জন নিহত এবং আরও ২১ জন আহত হয়েছেন।

স্থানীয় সময় শনিবার (২৫ জুন) শহরের বেশ কয়েকটি বারের সামনে গিয়ে গুলি চালায় ওই বন্দুকধারী। খবর বিবিসির।

৪২ বছর বয়সী সন্দেহভাজন বন্দুকধারীকে গ্রেফতার করেছে দেশটির পুলিশ।

টোর বারস্টাড নামে পুলিশের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, লন্ডন পাব থেকে কাছের একটি ক্লাব ও একটি সড়কে ওই হামলার ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় সময় শনিবার রাতে বন্দুক হামলার ওই ঘটনার কয়েক মিনিটের মাথায় সন্দেহভাজন হামলাকারীকে কাছাকাছি একটি সড়ক থেকে গ্রেফতার করা হয়।

অসলোর প্রাণকেন্দ্রে থাকা দ্য লন্ডন পাব নামের ওই ক্লাবটি সমকামীদের কাছে বেশ জনপ্রিয় নাইটক্লাব।

এ ঘটনাকে নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী জোনাস গাহর স্টোয় ভয়ানক ও মর্মান্তিক আক্রমণ বলে অভিহিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী এক ব্যক্তি বলেন, আমি একজন ব্যক্তিকে ব্যাগ নিয়ে আসতে দেখেছি এবং সে ব্যাগ থেকে বন্দুক বের করে গুলি করতে শুরু করে।

;

গর্ভপাত নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়কে ‘মর্মান্তিক ভুল’ বললেন বাইডেন



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গর্ভপাতের জন্য মার্কিন নারীদের সাংবিধানিক অধিকার বাতিলের রায়কে ‘মর্মান্তিক ভুল’ বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

গর্ভপাতকে বৈধতা দেওয়া প্রায় ৫০ বছরের পুরোনো আইনটি শুক্রবার (২৪ জুন) দেশটির সুপ্রিম কোর্ট বাতিল করে দেয়।

দেশবাসীর উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে বাইডেন বলেন, যেভাবে নারীদের সংবিধান প্রদত্ত অধিকারকে কেড়ে নেওয়া হল, তা অত্যন্ত দুঃখজনক। তিনি বলেন, এই রায়ে আমেরিকার লাখ লাখ নারীর জীবন নাটকীয়ভাবে পরিবর্তন করবে এবং দেশটিতে এ নিয়ে উত্তেজনা বাড়বে।

শুক্রবার এক রায়ে আমেরিকার শীর্ষ আদালত জানিয়েছে, গর্ভপাতের অধিকার সংবিধান দেবে না। তা দেওয়া হবে কি হবে না, তা স্থির করবে স্থানীয় প্রদেশের প্রশাসন। পাঁচ দশক আগে রো বনাম ওয়েড মামলার রায়কে বাতিল করে দিয়ে আদালত শুক্রবার এই রায় দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, ওই মামলায় আদালত জানিয়েছিল, গর্ভপাত আমেরিকার নারীদের সংবিধান প্রদত্ত অধিকার। বাইডেন বলেন, ‘আদালত আমেরিকাবাসীর সংবিধানপ্রদত্ত মৌলিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। শীর্ষ আদালতের এই রায়ের ফলে দেশ ১৫০ বছর পিছিয়ে গেল।

সুপ্রিম কোর্টে এই রায়ের একটি খসড়া প্রস্তাব প্রকাশ্যে আসার পরেই দেশে জুড়ে বিক্ষোভ শুরু হয়। প্রেসিডেন্ট বাইডেনও এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘সুপ্রিম কোর্ট এই ধরনের রায় দেওয়ায় শুধু গর্ভপাতের অধিকার নয়, সমকামীদের অধিকারও ক্ষুণ্ণ হবে।

;

যুক্তরাষ্ট্রে গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার বাতিলের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গর্ভপাতের জন্য মার্কিন নারীদের সাংবিধানিক অধিকার বাতিল করে দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। গর্ভপাতকে বৈধতা দেওয়া প্রায় ৫০ বছরের পুরোনো আইনটি শুক্রবার (২৪ জুন) বাতিল করা হয়।

এদিকে, গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার বাতিল করায় বিশ্বব্যাপী নিন্দার ঝড় উঠেছে। অনেকে বলছেন, এই আইনের ফলে আমেরিকার লাখ লাখ নারীর জীবনকে নাটকীয়ভাবে পরিবর্তন করবে এবং দেশটিতে এ নিয়ে উত্তেজনা বাড়বে। ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ চলছে।

গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নেওয়ার পর কিছু মার্কিন রাজ্যে ক্লিনিক বন্ধ হতে শুরু করেছে৷

শীর্ষ আদালত গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার বাতিল করে দিয়ে গর্ভপাতের অনুমোদন দেওয়া বা না দেওয়ার সিদ্ধান্তের ক্ষমতা প্রতিটি অঙ্গরাজ্যের ওপর ছেড়ে দিয়েছে।

মিসিসিপি অঙ্গরাজ্যে গর্ভধারণের ১৫ সপ্তাহের পর গর্ভপাত নিষিদ্ধ করাকে চ্যালেঞ্জ করে আনা এক মামলার রায়ে সুপ্রিম কোর্ট রাজ্য সরকারের পক্ষে রায় দিলে গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার কার্যত রহিত হয়ে যায়।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এই রায়কে একটি দুঃখজনক ত্রুটি বলে বর্ণনা করেছেন।

রায়ে বলা হয়, গর্ভপাতের অধিকার সংবিধানের আওতায় থাকতে পারে না ... এবং গর্ভপাত নিয়ন্ত্রণের অধিকার অবশ্যই মানুষের এবং নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের হাতে ন্যস্ত করা উচিৎ।

মার্কিন সুপ্রিম কোর্টে এখন রক্ষণশীল বিচারকরাই সংখ্যাগরিষ্ঠ। গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার রহিত করার পক্ষে মতামত দেন ছয়জন বিচারক, বিপক্ষে দেন তিনজন।

ধারণা করা হচ্ছে এই রায়ের পর অর্ধেকের বেশি অঙ্গরাজ্যে গর্ভপাত নিষিদ্ধ হবে অথবা এর ওপর নানারকম বিধিনিষেধ আরোপ করা হতে পারে।

ইতোমধ্যেই ১৩টি অঙ্গরাজ্য এমন আইন পাশ করেছে যে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর সাথে সাথেই গর্ভপাত নিষিদ্ধ হবে।

এক জরিপে বলা হচ্ছে, সুপ্রিম কোর্টের রায়ে যুক্তরাষ্ট্রে সন্তানধারণে সক্ষম তিন কোটি ৬০ লাখ নারী গর্ভপাতের সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে।

নার্স অ্যাশলি হান্ট বিবিসিকে বলেন, আমরা খারাপ খবরের জন্য যতই প্রস্তুতি নিই না কেন, শেষ পর্যন্ত যখন এটি আঘাত হানে, তখন এটি কঠিন আঘাত করে। এই রোগীদেরকে ফোন করে তাদের বলা যে রো বনাম ওয়েডকে উল্টে ফেলা হয়েছে তা হৃদয়বিদারক।

মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার সুপ্রিম কোর্টের রায়কে নির্মম আখ্যা দিয়ে বলেছেন, ‘আমেরিকার নারীরা আজ তাদের মায়েদের চেয়ে কম স্বাধীনতা ভোগ করছে।

;

ইসরায়েলি সেনাদের গুলিতে নিহত হন সাংবাদিক শিরিন: জাতিসংঘ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর গুলিতে আল-জাজিরার সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহ নিহত হন বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

শুক্রবার (২৪ জুন) জেনেভায় জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার অফিসের মুখপাত্র রাভিনা শামদাসানি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, জাতিসংঘের সংগ্রহ করা তথ্যে দেখা গেছে ১১ মে আল-জাজিরার সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহকে যে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল সেটি ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে ছিল।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের সংগৃহীত তথ্য মতে আবু আকলেহকে হত্যা এবং তার সহকর্মী আলী সামৌদিকে আহত করা গুলি ইসরায়েলি নিরাপত্তা বাহিনীর কাছ থেকে এসেছে। যা সশস্ত্র ফিলিস্তিনিদের নির্বিচারে গুলি চালানোর কারণে নয়।

গত ১১ মে দখলকৃত পশ্চিম তীরের জেনিন শহরে অভিযান চালায় ইসরায়েলি সেনারা। সংবাদ সংগ্রহের জন্য ঘটনাস্থলে ছিলেন ৫১ বছর বয়সী শিরিন আবু আকলেহ। প্রত্যক্ষদর্শী ও ঘটনাস্থলে থাকা অন্য সাংবাদিকেরা জানান, ইসরায়েলের এক সেনা মাথায় গুলি করলে শিরিন প্রাণ হারান।

;