হিজাব নিষিদ্ধ ধর্মীয় স্বাধীনতার লঙ্ঘন: যুক্তরাষ্ট্র



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কর্ণাটকে নারী শিক্ষার্থীদের হিজাব ইস্যুতে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। হিজাব পরা নিষিদ্ধের বিষয়টিকে ধর্মীয় স্বাধীনতা লঙ্ঘন অ্যাখা দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক দূত রশিদ হুসাইন।

শুক্রবার (১১ ফেব্রুয়ারি) এক টুইট বার্তায় রশিদ হুসাইন বলেন, হিজাব নিষেধাজ্ঞা নারীদের কলঙ্কিত করবে। কারণ ধর্মীয় স্বাধীনতার মধ্যে একজনের ধর্মীয় পোশাক বেছে নেওয়ার ক্ষমতা অন্তর্ভুক্ত। কর্ণাটকে ধর্মীয় পোশাকের অনুমতি নির্ধারণ করা উচিত নয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব নিষিদ্ধ, ধর্মীয় স্বাধীনতা লঙ্ঘন করে।

শনিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাদের অভ্যন্তরীণ ইস্যুতে নাক না গলাতে নিষেধ করেছে।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি টুইটবার্তায় বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পোশাকের বিষয়টি আদালতের পর্যবেক্ষণে রয়েছে। তবে অভ্যন্তরীণ বিষয়ে এ ধরনের মন্তব্যকে না করার অনুরোধ করা হয়েছে। যারা ভারত সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা রাখেন, তারাই যথাযথ বাস্তবতা উপলব্ধি করতে পারবেন।

সম্প্রতি কর্ণাটক রাজ্যের উদুপি জেলায় এক সরকারি কলেজ কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের ইউনিফর্ম-সংক্রান্ত কিছু বিধিনিয়ম জারি করে। তাতে বলা হয়, হিজাব পরে ক্লাস করা যাবে না। কারণ, তা বৈষম্য সৃষ্টিকারী। কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী, ছাত্রীরা ‘স্কার্ফ’ পরতে পারবে। এর প্রতিবাদে মুসলমান ছাত্রীরা প্রতিবাদ জানায়।

হিজাবের বিরুদ্ধাচরণ করতে হিন্দু শিক্ষার্থীদের একাংশকে গেরুয়া চাদর ও ওড়না পরতে দেখা যায়। দুই ধর্মের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বচসাও শুরু হয় কোথাও কোথাও। মুসলমান ছাত্রীদের সমর্থনে কোথাও কোথাও দলিত হিন্দুরাও নীল চাদর পরে পাশে দাঁড়ান। এ নিয়ে কয়েক দিন যাবৎ রাজ্যে উত্তেজনা ও বিতর্ক চলছে। মুসলমান ছাত্রীদের প্রশ্ন, কেন তাদের শিক্ষা থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে।

ছুরিকাহত সালমান রুশদি হারাতে পারেন চোখ!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ছুরিকাঘাতে আহত ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক সালমান রুশদিকে ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছে, তিনি কথাও বলতে পারছেন না। এমনকি তিনি একটি চোখ হারাতে পারেন বলে জানিয়েছে তার এজেন্ট অ্যান্ড্রু ওয়াইলি।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) নিউইয়র্কের শিটোকোয়া ইনস্টিটিউটে এক অনুষ্ঠানমঞ্চে কথা বলার সময় রুশদির ঘাড়ে এক হামলাকারী ছুরিকাঘাত করেন। পরে হেলিকপ্টারে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। খবর বিবিসির।

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, মঞ্চে কারো সঙ্গে পরিচয় করানো হচ্ছিল লেখককে। সেই সময় আচমকা তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন ওই ব্যক্তি।

সালমান রুশদির এজেন্ট অ্যান্ড্রু ওয়াইলি বলেন, খবর ভালো না। সালমান সম্ভবত একটি চোখ হারাবেন। তার বাহুর স্নায়ু বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে এবং তার লিভার ছুরিকাঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সালমান রুশদির ওপর হামলার পর বিশ্বজুড়ে লেখক এবং রাজনীতিবিদরা মত প্রকাশের স্বাধীনতার ওপর আক্রমণ বলে তীব্র নিন্দা করেন।

নিউইয়র্ক পুলিশ বলেছে, সন্দেহভাজন হামলাকারী একজন পুরুষ। তিনি মঞ্চে উঠে রুশদি ও তার সাক্ষাৎকার গ্রহণকারীর ওপর হামলা চালান। রুশদির ঘাড়ে ছুরি দিয়ে বেশ কয়েকটি আঘাত করা হয়েছে। পরে হামলাকারীকে ধরে নিজেদের হেফাজতে নেয় পুলিশ।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত বুকার পুরস্কারজয়ী ৭৫ বছর বয়সী লেখক রুশদি ১৯৮১ সালে তার লেখা বই ‘মিডনাইটস চিলড্রেন’ দিয়ে খ্যাতি অর্জন করেন। কিন্তু ১৯৮৮ সালে তার চতুর্থ বই ‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’-এর জন্য তাকে ৯ বছর লুকিয়ে থাকতে হয়েছিল।

‘স্যাটানিক ভার্সেস’ উপন্যাসে ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করা হয়েছে বলে মনে করেন মুসলিমরা। এই বইটি লেখার পর থেকেই বুকার পুরস্কারজয়ী সালমান রুশদিকে অসংখ্যবার হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। বইটি ১৯৮৮ সালে ইরানে নিষিদ্ধ হয়। এর এক বছর পর ইরানের প্রয়াত নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনি রুশদিকে হত্যার ফতোয়া দেন। তার মাথার মূল্য ৩০ লাখ ডলার নির্ধারণ করে দেওয়া হয়।

;

ট্রাম্পের ফ্লোরিডার বাড়ি থেকে ‘গোপন নথি’ জব্দ এফবিআইয়ের



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাসভবন ফ্লোরিডার মার–এ–লাগোতে ‘অভিযান’ চালিয়েছে ‘গোপন নথি’ জব্দ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই।

দ্য ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনের বরাতে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।

বিবিসির খবরে বলা হয়, নথিগুলোর একটি তালিকা করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে একজন বিচারক সাত পৃষ্ঠার নথি মুক্ত করেন। এর পর নথিগুলোর তালিকা প্রকাশ করা হয়।

তবে জব্দ করা ১১ সেট নথির বিষয়ে ট্রাম্প বলেছেন, তিনি কোনো অপরাধ করেননি। নথিগুলোতে গোপন কিছু নেই এবং নিরাপদ।

গত বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ তল্লাশি পরোয়ানার বিষয়বস্তু প্রকাশ করতে বিচারককে অনুরোধ জানান। ওই পরোয়ানার ভিত্তিতেই গত সোমবার (৮ আগস্ট) মার-এ-লাগোতে তল্লাশি চালায় এফবিআই।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাড়িতে আকস্মিক অভিযান চালিয়েছে এফবিআই। গত সোমবার (৮ আগস্ট) ফ্লোরিডায় তার বিলাসবহুল মার-এ-লাগো বাড়িতে এ অভিযান চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন এ রিপাবলিকান নেতা। ৯ আগস্ট একই অভিযোগ করে ট্রাম্প নিজেই তার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ট্রুথ সোশ্যালে প্রকাশ করেন। এরপরই তার সমর্থকরা মার-এ-লাগো নামের বিলাসবহুল বাড়ির সামনে জড়ো হতে থাকেন।

যুক্তরাষ্ট্রে সাবেক কোনো প্রেসিডেন্টের বাড়িতে এভাবে এফবিআই হানা দেওয়ার ঘটনা অভূতপূর্ব বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এই প্রথম কোনো সাবেক প্রেসিডেন্টের বাড়িতে ফৌজদারি তদন্তে তল্লাশি চালানো হয়।

 

;

নিউইয়র্কে লেখক সালমান রুশদির ওপর হামলা



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ লেখক সালমান রুশদি ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) পশ্চিম নিউইয়র্কে চাতুকুয়া ইনস্টিটিউটে এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দিচ্ছেলেন তিনি। খবর দ্য ওয়াশিংটন পোস্টের।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, চৌতাকুয়া ইনস্টিটিউশনের মঞ্চে থাকা রুশদির দিকে এক ব্যক্তি দৌড়ে গিয়ে তাকে ঘুষি ও ছুরিকাঘাত করে। এসময় লেখক মেঝেতে পড়ে যান।

ঘটনাস্থল থেকে হামলাকারীকে আটকে রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে।

দ্য স্যাটানিক ভার্সেস বইটি লেখার পর থেকেই বুকার পুরস্কারজয়ী সালমান রুশদিকে অসংখ্যবার হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। বইটি ১৯৮৮ সালে ইরানে নিষিদ্ধ হয়। এর এক বছর পর ইরানের প্রয়াত নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনি রুশদিকে হত্যার ফতোয়া দেন। তার মাথার মূল্য ৩০ লাখ ডলার নির্ধারণ করে দেওয়া হয়।

‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’ বইটিকে বহু মুসলিম ধর্ম অবমাননাকারী বলে মনে করে থাকে।

;

তালেবানের ধর্মীয় নেতা রহিমুল্লাহ হাক্কানি নিহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে আত্মঘাতী হামলায় তালেবানের অন্যতম ধর্মীয় নেতা শেখ রহিমুল্লাহ হক্কানি নিহত হয়েছেন। তালেবান প্রশাসনের মুখপাত্র বিলাল কারিমি এ খবর নিশ্চিত করেছেন। খবর আল জাজিরার।

তালেবান প্রশাসনের মুখপাত্র বিলাল কারিমি বলেন, খুব দুঃখের সঙ্গে জানানো হচ্ছে যে সম্মানিত আলেম [শেখ রহিমুল্লাহ হাক্কানি] শত্রুদের কাপুরুষোচিত হামলায় শহীদ হয়েছেন। কাবুলের একটি প্রার্থনা অনুষ্ঠানে হামলার শিকার হন তিনি।

আইএসআইএল (আইএসআইএস) সশস্ত্র গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেছে।

চারটি তালেবান সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, হামলাকারী এমন একজন যিনি আগে তার পা হারিয়েছিলেন । একটি প্লাস্টিকের কৃত্রিম পায়ে বিস্ফোরক লুকিয়ে রেখেছিলেন।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক জ্যেষ্ঠ তালেবান কর্মকর্তা বলেন, এই ব্যক্তিটি কে ছিল তা জানার চেষ্টা করছি। কে তাকে শেখ রহিমুল্লাহ হাক্কানির ব্যক্তিগত অফিসে ঢোকার সুযোগ করে দিয়েছে তা বের করার চেষ্টা করছি। এটা আফগানিস্তানের ইসলামিক এমিরেটের জন্য বড় ক্ষতি।

তালেবানের শীর্ষ নেতা হাক্কানি ওপর আগেও প্রাণঘাতী হয়েছে। ২০২০ সালে পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় শহর পেশোয়ারে আইএস বোমা হামলা চালিয়েছিল হাক্কানিকে লক্ষ্য করে। ওই হামলায় সাতজন নিহত হলেও, প্রাণে বেঁচে যান হাক্কানি।

;