জম্মুতে বন্দুকযুদ্ধে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যসহ নিহত ৩



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতের জম্মুতে বন্ধুকযুদ্ধে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর এক সদস্যসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এঘটনায় আহত হয়েছেন আরও চারজন।

শুক্রবার (২২ এপ্রিল) সকালে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে বলে জানায় ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

খবরে বলা হয়, জম্মু শহরের সুঞ্জওয়ান ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনী ভোরে অভিযান শুরু করার পর এনকাউন্টার শুরু হয়। পুলিশ জানিয়েছে, সন্ত্রাসীরা শহরে হামলার পরিকল্পনা করছে বলে তাদের কাছে তথ্য ছিল। সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্স (সিআইএসএফ) অবশ্য বলেছে, সন্ত্রাসীরা তার কর্মীদের বহনকারী একটি বাসকে লক্ষ্য করে গুলি চালালে একজন সহকারী সাব ইন্সপেক্টর নিহত হয়।

জম্মু ও কাশ্মীরের পুলিশ প্রধান দিলবাগ সিং এনডিটিভিকে বলেন, সুঞ্জওয়ানে এনকাউন্টারে দুই সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। সুঞ্জওয়ানে লুকিয়ে থাকা সন্ত্রাসীরা একটি বড় হামলার পরিকল্পনা করছিল। লক্ষ্য ছিল নিরাপত্তা বাহিনীকে সর্বোচ্চ ক্ষয়ক্ষতি করা।

দ্য সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্স (সিআইএসএফ) বলছে, সন্ত্রাসীরা তাদের বাহিনীর সদস্যদের বহন করা একটি বাসে হামলা চালায়। এতে একজন অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইনস্পেক্টর নিহত হন। যে বাসটি হামলার শিকার হয়েছে তাতে ১৫ জন আরোহী ছিলেন। হামলার পর পাল্টা হামলায় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

এর আগে ২০১৮ সালেও জঙ্গিরা সুঞ্জওয়ান ক্যান্টনমেন্ট হামলা চালিয়েছিল। সেই হামলায় বেশ কিছু সেনা নিহত হন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার পর আগামী রোববার (২৪ এপ্রিল) প্রধানমন্ত্রী মোদির প্রথম কাশ্মীর সফর। এই সফরে মোদির পাল্লি গ্রামে পঞ্চায়েত সদস্যদের নিয়ে এক বড় জনসভায় বক্তৃতা দেওয়ারও কথা রয়েছে। কিন্তু তার সফরের আগে কড়া নিরাপত্তার ঘেরাটোপ থাকা সত্ত্বেও হামলা চালাল জঙ্গিরা।

ইউক্রেনের শস্য বহনকারী রুশ জাহাজ আটক করল তুরস্ক



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউক্রেনের শস্য বহনকারী একটি রুশ কার্গো জাহাজ আটক করেছে তুরস্কের কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

স্থানীয় সময় রোববার (০৩ জুলাই) তুরস্কে নিযুক্ত ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত ভাসিল বদনার এ তথ্য জানিয়েছেন। খবর বিবিসি ও রয়টার্সের।

ভাসিল বদনার বলেন, রাশিয়ার ওই জাহাজটির নাম ‘ঝিবেক ঝোলি’। সেটি ইউক্রেনের বেরদিয়ানস্ক বন্দর ছেড়ে এসেছিল। কৃষ্ণসাগরে তুরস্কের কারাসু বন্দরে পৌঁছালে জাহাজটি আটক করা হয়।

এই মুহূর্তে জাহাজটি কারাসু বন্দরের বাইরে সমুদ্র উপকূল থেকে ১ কিলোমিটার দূরে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঘটনাস্থলে থাকা রয়টার্সের প্রতিবেদকরা। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জাহাজটিকে সেখান থেকে সরানো হয়নি।

জাহাজে থাকা খাদ্যশস্য কোথা থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে তা জানা যায়নি। তবে ইউক্রেনে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে থাকা অঞ্চলগুলো থেকে শস্য চুরির অভিযোগ রয়েছে রাশিয়ার বিরুদ্ধে। এসব অভিযোগ অবশ্য নাকচ করে এসেছে মস্কো।

;

ইউক্রেনকে আরও সামরিক সহায়তার প্রতিশ্রুতি অস্ট্রেলিয়ার

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনকে আরও সামরিক সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্টনি আলবানিজ।

স্থানীয় সময় রোববার (০৩ জুলাই) ইউক্রেনের কিয়েভ সফরে গিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কিকে এই প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। খবর বিবিসির।

কোনো পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই রোববার কিয়েভ সফরে যান অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্টনি আলবানিজ। তিনি এর আগে বিধ্বস্ত শহর বুচা এবং ইরপিন ভ্রমণ করেছিলেন।

বিবিসির খবরে বলা হয়, ১০০ মিলিয়ন অস্ট্রেলিয়ান ডলার মূল্যের এই সহায়তা প্যাকেজটিতে ড্রোন এবং ৩৪টি অতিরিক্ত সাঁজোয়া যান অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী আরও ১৬ রাশিয়ান মন্ত্রী ও অলিগার্চের ওপর নিষেধাজ্ঞা এবং রাশিয়ান সোনা আমদানি বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, তিনি এই সফরে ইউক্রেনের ধ্বংস ও আঘাত নিজ চোখে দেখেছেন।

কিয়েভের প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসে এক সংবাদ সম্মেলনে আলবানিজ বলেন, তার দেশ ইউক্রেনকে যুদ্ধে জয় পেতে যতদিন সময় লাগবে ততদিন সমর্থন করবে।

যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের মতো অস্ট্রেলিয়াও ইউক্রেনে তার দূতাবাস পুনরায় খোলার কথা বিবেচনা করছে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করেছে রাশিয়া। ভয়াবহ হামলায় ইউক্রেনের কয়েক হাজার বেসামরিক নাগরিক প্রাণ হারিয়েছে। তাদের অভিযানকে অবৈধ অ্যাখা দিয়ে মস্কোর ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আসছে পশ্চিমা দেশগুলো।

;

ডেনমার্কে শপিং মলে বন্দুকধারীর হামলা, নিহত ৩



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনেহেগেনের সবচেয়ে বড় শপিং মলে বন্দুকধারীর হামলায় তিন জন নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছেন আরও বেশ কয়েকজন।

ডেনমার্ক পুলিশ জানিয়েছে রোববার (০৩ জুলাই) রাজধানীর ভিসিনিটি অব ফিল্ড’স শপিং সেন্টারে এই গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় ২২ বছর বয়সী এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

দেশটির পুলিশ প্রধান সোয়েরেন থমাসেন বলেছেন, হামলার উদ্দেশ্য এখনও অস্পষ্ট নয়।

ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রী মেটে ফ্রেডেরিকসেন বলেছেন, ডেনমার্ক নিষ্ঠুর হামলার শিকার হয়েছে।

যারা প্রিয়জনকে হারিয়েছে তাদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, এই কঠিন সময়ে সবাইকে একসঙ্গে দাঁড়াতে এবং একে অপরকে সমর্থন করতে হবে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, মানুষ শপিং মলের অভ্যন্তরে ছোটাছুটি করছে আর ভারী অস্ত্র নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত রয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা ঘটনাস্থলের বিশৃঙ্খল অবস্থার বর্ণনা দিয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শী এমিলি জেপেসেন বলেন, জানা যায়নি কী ঘটেছে। হঠাৎ করে শুধু চারপাশে বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়’। আরেক প্রত্যক্ষদর্শী মাহদি আল-ওয়াজনি বলেন, হামলাকারী একটি ‘হান্টিং রাইফেল’ বহন করছিল।

শপিং মলে হামলার সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করার সময় তার কাছ থেকে একটি রাইফেল ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ। সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে পুলিশ জাতিগত ডেন বলে বর্ণনা করেছেন।

;

পাকিস্তানে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে নিহত ১৯



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে একটি যাত্রী বাস খাদে পড়ে কমপক্ষে ১৯ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১১ জন।

রোববার (৩ জুলাই) সকালে বেলুচিস্তানের জোব জেলায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য ডনের।

খবরে বলা হয়, ৩০ জনেরও বেশি যাত্রী নিয়ে বাসটি ইসলামাবাদ থেকে কোয়েটার দিকে যাচ্ছিল। দুর্ঘটনাস্থলে যাত্রীদের সহায়তা করতে দেখা গেছে উদ্ধারকর্মীদের। এদের অনেকের অবস্থা গুরুতর।

শেরানীর সহকারী কমিশনার মেহতাব শাহ সংবাদমাধ্যম ডনকে বলেন, ধনা সরের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তিনি বলেন, দ্রুতগতির বাসটি খাদে পড়ে গেলে ১৯ যাত্রী নিহত ও ১১ জন আহত হয়েছে।

জোবের বেসামরিক হাসপাতালের চিকিৎসক নুরুল হক বলেন, যাদের হাসপাতালে আনা হয়েছে তাদের অবস্থা সংকটাপন্ন। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

বেলুচিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী মীর আবদুল কুদুস এই ঘটনায় নিহতদের জন্য শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি নিহতদের পরিবারের প্রতি আন্তরিক সমবেদনাও জানিয়েছেন।

তিনি আহতদের চিকিৎসা নিশ্চিত করতে ঢোবের সিভিল হাসপাতালে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করার নির্দেশ দেন।

এদিকে ভয়াবহ দুর্ঘটনার খবর পেয়েই গভীর শোক প্রকাশ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। আহতদের সব ধরনের চিকিৎসা সহায়তায় কর্তৃপক্ষকে তাৎক্ষণিক নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

;