রাশিয়ার নিষেধাজ্ঞা, গ্যাস সংকটে বিপাকে ইউরোপ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
রাশিয়ার নিষেধাজ্ঞার কবলে গ্যাস সংকটে বিপাকে ইউরোপ

রাশিয়ার নিষেধাজ্ঞার কবলে গ্যাস সংকটে বিপাকে ইউরোপ

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউরোপে গ্যাস সরবরাহে রাশিয়ার নিষেধাজ্ঞা এবং ইউক্রেনের ভেতর দিয়ে যাওয়া রুশ গ্যাসলাইনগুলো বন্ধ করে দেওয়ায় তীব্র গ্যাস-সংকটে পড়েছে ইউরোপ। তাদের ওপর গ্যাস সরবরাহের বিকল্প ব্যবস্থা দ্রুত ঠিক করার চাপও বাড়ছে।

শুক্রবার (১৩ মে) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউরোপে গ্যাস সরবরাহে রাশিয়ার নিষেধাজ্ঞা এবং ইউক্রেনের ভেতর দিয়ে যাওয়া রুশ গ্যাসলাইনগুলো বন্ধ করে দেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে তীব্র গ্যাস-সংকটে পড়েছে ইউরোপের দেশগুলো। ফলে গ্যাসের বিকল্প সরবরাহ নিশ্চিত করার চাপ বৃদ্ধির পাশাপাশি ইউরোপজুড়ে বেড়ে গেছে গ্যাসের দাম।

ইউক্রেন পরিস্থিতি নিয়ে সৃষ্ট দ্বন্দ্বে মস্কো ইতোমধ্যে বুলগেরিয়া ও পোল্যান্ডে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে। এ ছাড়া ইউরোপের অন্য দেশগুলোও সামনে শীত মৌসুমের আগে নিজেদের ক্রমবর্ধমান গ্যাসের মজুদ পূরণের জন্য কার্যত হন্যে হয়ে দৌড়াচ্ছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, রাশিয়া গত বুধবার রাতে গ্যাজপ্রমের ইউরোপীয় সহযোগী সংস্থাগুলোর ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে, যার মধ্যে গ্যাজপ্রম জার্মানিয়াও রয়েছে। মূলত জ্বালানি সরবরাহ সুরক্ষিত রাখার জন্য জার্মানি গত মাসে ট্রাস্টিশিপের অধীনে এটি চালু করেছিল। এ ছাড়া ইউরোপে রুশ গ্যাস বহনকারী ইয়ামাল-ইউরোপ পাইপলাইনের পোলিশ অংশের মালিকের ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মস্কো।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, এসব কোম্পানির সঙ্গে কোনো সম্পর্ক থাকতে পারে না বা তারা রাশিয়ার গ্যাস সরবরাহের কাজে অংশ নিতে পারে না।

নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসা এসব কোম্পানির নাম রাশিয়ার সরকারের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠান মূলত সেসব দেশের যারা ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর কারণে রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। আরও ভালোভাবে বললে, এসব দেশের বেশিরভাগই ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য।

ইউরোপে রাশিয়ার জ্বালানির শীর্ষ গ্রাহক জার্মানি। দেশটি বলছে, গ্যাজপ্রম জার্মানিয়ার কিছু সহযোগী সংস্থা নিষেধাজ্ঞার কারণে গ্যাস পাচ্ছে না।

ফিনল্যান্ডের ২ কূটনীতিককে বহিষ্কার করল রাশিয়া

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ফিনল্যান্ডের দুই জন কূটনীতিককে বহিষ্কার করেছে মস্কো। মঙ্গলবার (১৭ মে) রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, রুশ দুই কূটনীতিক বহিষ্কারের পাল্টা পদক্ষেপে ফিনল্যান্ডের কূটনীতিকদের বহিষ্কার করল মস্কো।

এক বিবৃতিতে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, এটি ফিনল্যান্ডের বিরুদ্ধে একটি প্রতিবাদ।

এর আগে নিরপেক্ষতার নীতি বদলে ফেলে ফিনল্যান্ড ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করে। এ বিষয়ে যুক্তরাজ্যসহ ন্যাটোর অনেক সদস্যদেশ সবুজ সংকেত দিয়েছে। তবে ইউরোপের এই দেশ ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার উদ্যোগে আপত্তি জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান।

এদিকে, জোটের অন্যতম সদস্য তুরস্ক কিছু শর্ত জুড়ে দেওয়ায় ফিনল্যান্ডের সদস্যপদ নিয়ে জটিলতা দেখা দিয়েছে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান বলেছেন, সবার আগে যে কথা বলতে চাই তা হলো—যারা তুরস্কের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে তাদেরকে ইতিবাচক কিছু বলবো না। কারণ, তাদেরকে ইতিবাচক কিছু বললে ন্যাটো আর সামরিক জোট থাকবে না।

;

পি কে হালদার আরও ১০ দিনের রিমান্ডে



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশ থেকে কয়েক হাজার কোটি টাকা পাচার করার অভিযোগ নিয়ে বছর কয়েক ধরে পালিয়ে থাকা এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদারকে (পি কে হালদার) আরও ১০ দিনের রিমান্ডে দিয়েছেন কলকাতার আদালত।

মঙ্গলবার (১৭ মে) তিন দিনের রিমান্ড শেষে ব্যাঙ্কশাল সিবিআই স্পেশাল কোর্টে হাজির করে ভারতের এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। এসময় ইডি পিকে হালদারের ১৪ দিনের রিমান্ড আবেদন করে। পরে আদালত ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে, আজ সকালে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে ইডি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয় পি কে হালদারকে। এ সময় সাংবাদিকরা তার সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করলেও তিনি কোনো উত্তর দেননি। ভারতে কোন রাজনৈতিক ব্যক্তির সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে কি না সে বিষয়েও কোনো উত্তর দেননি পি কে হালদার।

গত শনিবার (১৪ মে) উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার অশোকনগর থেকে পি কে হালদারের সঙ্গে তার দুই ভাইসহ গ্রেফতার হয় আরও ৫ জন।

বাংলাদেশের এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং অর্থপাচার মামলার পলাতক আসামি পি কে হালদারের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের চারটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা পাচারের অভিযোগে অন্তত ৩৪টি মামলা রয়েছে।

;

পেট্রোলের মজুদও শেষ, চলবে আর ১ দিন: শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহ

শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহ

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশবাসীকে সতর্ক করেছেন শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে। তিনি বলেছেন, সামনে কয়েকটি মাস হবে সব নাগরিকের জীবনে সবচেয়ে জটিল। এ সময়ে কিছু ত্যাগ স্বীকারে দেশবাসীকে প্রস্তুত থাকতে হবে।

দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, অর্থনৈতিক সংকটে টালমাটাল শ্রীলঙ্কার পেট্রোলের মজুদও শেষ দিনে নেমে এসেছে।

সোমবার (১৬ মে)  জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে তিনি এসব কথা বলেছেন।

রনিল বিক্রমাসিংহে বলেন, প্রকৃত সত্য লুকানোর এবং জনগণের কাছে মিথ্যা বলার কোনো ইচ্ছা তার নেই। যদিও এসব সত্য কথা সুখকর নয় এবং ভয়ার্ত, তবু এটাই হচ্ছে সত্যিকার পরিস্থিতি।

জরুরি আমদানির জন্য শ্রীলঙ্কার জরুরিভিত্তিতে ৭৫ মিলিয়ন ডলার বৈদেশিক মুদ্রা প্রয়োজন বলে উল্লেখ করে রনিল বলেন, এই মুহূর্তে আমাদের কাছে শুধু ১ দিনের পেট্রোল আছে। আগামী কয়েক মাস আমাদের জীবনের সবচেয়ে কঠিন সময় হবে। আমাদের ত্যাগ স্বীকার এবং এই সময়ের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার জন্য নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে।

ভারতীয় ক্রেডিট লাইন ব্যবহার করে দেশে আনা ২টি পেট্রোল এবং ২টি ডিজেলের চালান আগামী কয়েক দিন স্বস্তি দিতে পারে বলে উল্লেখ করেন তিনি। তবে, শ্রীলঙ্কা ১৪টি প্রয়োজনীয় ওষুধের ঘাটতিরও মুখোমুখি হচ্ছে বলে জানান রনিল।

জ্বালানি সংকটের কারণে আজ শ্রীলঙ্কার বাণিজ্যিক রাজধানী কলম্বোতে গ্যাস স্টেশনগুলোতে অটোরিকশার দীর্ঘ সারি দেখা গেছে। দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করেও ফিরে যেতে হচ্ছে অনেককে।

মোহাম্মদ আলী নামের এক চালক  রয়টার্সকে বলেন, 'আমি ৬ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি। পেট্রোল পেতে আমাদের প্রায় ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়।'

রনিল বিক্রমাসিংহে বলেন, আমরা যে সময় অতিবাহিত করেছি তার চেয়েও কঠিন সময় অল্প সময়ের মধ্যে আমাদের সামনে আসবে। আমরা বিবেচ্য চ্যালেঞ্জ এবং প্রতিকূলতার মোকাবিলা করবো। সামনের মাসগুলোতে আমাদের বিদেশি বন্ধুরা সহায়তা করবে। এরই মধ্যে তারা সমর্থন দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তাই সামনের মাসগুলোতে আমরা ধৈর্য্য ধারণ করবো। তাহলেই আমরা পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে পারবো। তা করতে আমাদেরকে নতুন পথ অবলম্বন করতে হবে।

;

ক্যালিফোর্নিয়ায় চার্চে বন্দুকধারীর হামলায় বহু হতাহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় একটি চার্চে বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত অন্তত একজন নিহত এবং পাঁচজন আহত হয়েছেন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, রোববার (১৫ মে) ক্যালিফোর্নিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে লেগুনা উডস শহরের জেনেভা প্রেসবিটেরিয়ান চার্চ লক্ষ্য করে গুলি চালায় বন্দুকধারী। এতে বেশ কয়েকজন হতাহত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

স্থানীয় কর্মকর্তারা জানান, কয়েকজনকে গুলি করা হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক এবং একটি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনার মাত্র একদিন আগেই যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক রাজ্যের বাফেলো শহরের একটি সুপার মার্কেটে বন্দুকধারীর হামলায় ১০ নিহত হয়েছেন।

অরেঞ্জ কাউন্টি শেরিফের বিভাগ টুইটারে জানিয়েছে, লস অ্যাঞ্জেলেসের প্রায় ৮০ কিলোমিটার (৫০ মাইল) দক্ষিণ-পূর্বে লেগুনা উডস শহরে অবস্থিত জেনেভা প্রেসবিটারিয়ান চার্চে দুপুর দেড়টার দিকে এঘটনা ঘটে।

শেরিফের মুখপাত্র ক্যারি ব্রাউন বলেছেন, প্রায় ৩০ জন লোক সহিংসতা প্রত্যক্ষ করেছেন। গির্জার অভ্যন্তরে বেশিরভাগই তাইওয়ানি বংশোদ্ভূত নাগরিকরা ছিলেন।

ক্যালিফোর্নিয়ার কর্তৃপক্ষ চার্চে হামলার সম্ভাব্য উদ্দেশ্য সম্পর্কে কোনো বিবৃতি দেয়নি।

;