মাঙ্কিপক্সের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণযোগ্য



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনাভাইরাস মহামারি থেকে পরিত্রাণের আগে আশঙ্কা জাগিয়ে তোলার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে আরেকটি ভাইরাস। নাম তার মাঙ্কিপক্স। যুক্তরাজ্যসহ ১১টি দেশে ৮০ জনের দেহে তা ছড়িয়েছে, যে সংক্রমণের কথা তাদের ভাবনায়ও আসেনি।

এই ভাইরাসের বিচরণ মধ্য আর পশ্চিম আফ্রিকায়। গ্রীষ্মমণ্ডলীয় বৃষ্টি বনে (রেইন ফরেস্ট) থাকে সেসব প্রাণী, যাদের সঙ্গে আছে সেই ভাইরাস। তবে আফ্রিকার বাইরেও আছে এর বিস্তার। মানুষের সঙ্গে চলে আসে অন্য বসতিতে।

আফ্রিকার বাইরে এই ভাইরাসে সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৬টি দেশে। এসব দেশের রোগীর সংখ্যা একশ’র বেশি।

তবে আফ্রিকার বাইরে যেসব দেশে এখনো মাঙ্কিপক্সে সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়নি সেই সব দেশের পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

এ প্রসঙ্গে ডব্লিউএইচওর বিশেষজ্ঞ মারিয়া ভ্যান কারখভ এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বর্তমান যে পরিস্থিতি তা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব।

তিনি বলেন, ‘মানুষ থেকে মানুষে যাতে এই ভাইরাস না ছড়ায়, এটা আমরা চাই। যেসব দেশে এই ভাইরাস এখনো ছড়ায়নি সেসব দেশে আমরা এমন পদক্ষেপ নিতে পারি।’

মাঙ্কিপক্সের উপসর্গের মধ্যে আছে জ্বর, তীব্র মাথা ধরা, পেশি শুল, ব্যাক পেইন, শরীরে বল–শক্তি কম, গ্লান্ড ফোলা, ত্বকে ফুসকুড়ি (র‍্যাশ)। জ্বর হওয়ার ১ থেকে ৩ দিন পর ফুসকুড়ি, চ্যাপ্টা ক্ষত, ভেতরে হলুদ তরল পরে শুকায়, মামড়ি হয় আর খসে পড়ে। মুখে, হাতের তেলো আর পায়ের নিচে হয় ফুসকুড়ি। চোখে বা যৌনাঙ্গেও হতে পারে।

উপসর্গ থাকে ২ থেকে ৪ সপ্তাহ। এর পরে চলে যায় এমনিতেই, চিকিৎসা লাগে না। এর গুরুতর পরিণতি বিরল। শিশু, যাদের দেহ প্রতিরোধ দুর্বল, তাদের হতে পারে কখনো জটিল। ত্বক সংক্রমণ, নিউমোনিয়া, হতবুদ্ধি, চোখের অসুখ, দৃষ্টি সমস্যা।

যাদের মাঙ্কিপক্স, তাদের ঘনিষ্ঠ সংস্পর্শে হতে পারে অন্যের। ফুসকুড়ি, দেহ তরল, ত্বক ক্ষত থেকে তরল, পুঁজ, রক্ত মামড়ি খুব সংক্রামক। সংক্রমিত ব্যক্তির পোশাক–পরিচ্ছদ, তোয়ালে—এসব সংক্রামক। মুখের আলসার ক্ষত, ঘা হতে পারে সংক্রামক।

পাকিস্তানে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে নিহত ১৯



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে একটি যাত্রী বাস খাদে পড়ে কমপক্ষে ১৯ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১১ জন।

রোববার (৩ জুলাই) সকালে বেলুচিস্তানের জোব জেলায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য ডনের।

খবরে বলা হয়, ৩০ জনেরও বেশি যাত্রী নিয়ে বাসটি ইসলামাবাদ থেকে কোয়েটার দিকে যাচ্ছিল। দুর্ঘটনাস্থলে যাত্রীদের সহায়তা করতে দেখা গেছে উদ্ধারকর্মীদের। এদের অনেকের অবস্থা গুরুতর।

শেরানীর সহকারী কমিশনার মেহতাব শাহ সংবাদমাধ্যম ডনকে বলেন, ধনা সরের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তিনি বলেন, দ্রুতগতির বাসটি খাদে পড়ে গেলে ১৯ যাত্রী নিহত ও ১১ জন আহত হয়েছে।

জোবের বেসামরিক হাসপাতালের চিকিৎসক নুরুল হক বলেন, যাদের হাসপাতালে আনা হয়েছে তাদের অবস্থা সংকটাপন্ন। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

বেলুচিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী মীর আবদুল কুদুস এই ঘটনায় নিহতদের জন্য শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি নিহতদের পরিবারের প্রতি আন্তরিক সমবেদনাও জানিয়েছেন।

তিনি আহতদের চিকিৎসা নিশ্চিত করতে ঢোবের সিভিল হাসপাতালে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করার নির্দেশ দেন।

এদিকে ভয়াবহ দুর্ঘটনার খবর পেয়েই গভীর শোক প্রকাশ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। আহতদের সব ধরনের চিকিৎসা সহায়তায় কর্তৃপক্ষকে তাৎক্ষণিক নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

;

শিরিন হত্যায় ব্যবহৃত বুলেট যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেবে ফিলিস্তিন



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

অধিকৃত পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি অভিযানের সময় ফিলিস্তিনি-আমেরিকান সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহকে হত্যায় ব্যবহৃত বুলেট যু্ক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেবে ফিলিস্তিন।

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের জেনারেল প্রসিকিউটর আকরাম আল-খাতিব শনিবার (২ জুলাই) বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, আমরা পরীক্ষার জন্য বুলেটটি যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তর করতে রাজি হয়েছি।

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ, অনেক মানবাধিকার গোষ্ঠী ও সংবাদমাধ্যমগুলো প্রাথমিকভাবে তদন্ত করে দেখেছে আল জাজিরার সাংবাদিক আবু আকলেহ ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর হাতে নিহত হয়েছেন।

জাতিসংঘের মানবাধিকার কার্যালয় গত মাসে বলেছিল, সংগ্রহ করা তথ্যে দেখা গেছে যে ১১ মে আবু আকলেহকে যে বুলেটটি হত্যা করা হয়েছিল সেটি ইসরায়েলি বাহিনীর ছোড়া।

বেশ কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, জেরুজালেমে জন্ম নেওয়া শিরিনকে হত্যা করেছে ইসরায়েলি বাহিনী। ব্যালিস্টিক এবং ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের মতে, সবুজ টিপযুক্ত বুলেটটি মূলত বর্ম ছিদ্র করার জন্য ডিজাইন করা এবং ‘এম৪ রাইফেলে ব্যবহৃত হয়েছিল। বুলেটটি তার মাথা থেকে বের করা হয়েছিল।

গত ১১ মে দখলকৃত পশ্চিম তীরের জেনিন শহরে অভিযান চালায় ইসরায়েলি সেনারা। সংবাদ সংগ্রহের জন্য ঘটনাস্থলে ছিলেন ৫১ বছর বয়সী শিরিন আবু আকলেহ। প্রত্যক্ষদর্শী ও ঘটনাস্থলে থাকা অন্য সাংবাদিকেরা জানান, ইসরায়েলের এক সেনা মাথায় গুলি করলে শিরিন প্রাণ হারান।

;

নাইজেরিয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় ৩০ সেনা নিহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের অতর্কিত হামলায় নাইজেরিয়ায় কমপক্ষে ৩০ সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন। দেশটির নাইজার প্রদেশের শিরোরো এলাকায় একটি খনিতে বন্দুকধারীরা এ হামলা চালায়।

সূত্রের বরাত দিয়ে রোববার (৩ জুলাই) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বুধবার নাইজেরিয়ার নাইজার প্রদেশের শিরোরো এলাকার ওই খনিতে হামলার পর অপহরণের শিকার শ্রমিকদের খোঁজে সেখানে সেনা মোতায়েন করা হয়েছিল। নিখোঁজদের মধ্যে চারজন চীনা নাগরিকও ছিলেন। পরে সেখানেই সেনাসদস্যদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

উত্তর-পশ্চিম নাইজারের রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা কমিশনার ইমানুয়েল উমর বলেছেন, আজতা আবোকি গ্রামের ওই খনিতে হামলার ঘটনায় অজ্ঞাত সংখ্যক লোক নিহত হয়েছেন।

শনিবার নাইজার প্রদেশের রাজধানী শিরোরো এবং মিন্নাতের দু’টি সেনা সূত্র জানিয়েছে, পরে নিরাপত্তা বাহিনী আক্রমণের জবাবে সেখানে গেলে, বন্দুকধারীরা তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং গুলিবর্ষণ করে। এছাড়া অ্যামবুশ হামলায় তিনটি ট্রাকে থাকা ৩০ জন সৈন্যকে হত্যা করে তারা।

শিরোরোর একজন স্থানীয় নেতা রয়টার্সকে বলেছেন, বন্দুকধারীরা গুলি চালানোর আগে মোটরবাইক ও একটি ট্রাকে খনিতে এসেছিলেন। এসময় খনি পাহারায় থাকা সাত পুলিশ সদস্য নিহত হন।

নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারি বলেছেন, বন্দুকধারীরা ছিল ‘স্যাডিস্ট’ যাদের খুঁজে বের করে শাস্তি দেওয়া হবে। শনিবার এক টুইটার পোস্টে তিনি বলেন, শিরোর ন্যায়বিচার দেখতে পাবে।

;

লিসিচানস্ক শহর রাশিয়া-ইউক্রেন উভয়ের নিয়ন্ত্রণ দাবি

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউক্রেনের পূর্ব লুহানস্কের লিসিচানস্ক শহর রাশিয়ান ও ইউক্রেনীয় উভয় বাহিনীই বলেছে যে তারা শহরটির নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

রোববার (০৩ জুলাই) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এই তথ্য জানিয়েছে।

ইউক্রেন বলেছে, লিসিচানস্ক শহরে তাদের বাহিনীর ওপর রুশ বাহিনী তীব্র গোলাবর্ষণ করছে তবে জোর দিয়ে বলছে যে শহরটি এখনও তাদের দখলে রয়েছে।

আর রাশিয়ান সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীরা বলছেন, তারা সফলভাবে শহরে প্রবেশ করেছে এবং শহরের কেন্দ্রে পৌঁছেছে।

এদিকে রাশিয়ান মিডিয়া বিচ্ছিন্নতাবাদী বা রাশিয়ান বাহিনীর লিসিচানস্ক শহরের রাস্তার মধ্য দিয়ে কুচকাওয়াজ করার ভিডিও প্রকাশ করেছে। শহরের ধ্বংসপ্রাপ্ত প্রশাসনিক কেন্দ্রে সোভিয়েত পতাকা উড়ার ভিডিওটিও টুইট করেছে তারা। তবে এর সত্যতা যাচাই করা যায়নি।

শহরটি দখল করলে রাশিয়ানরা ডনবাসের পূর্বাঞ্চলে আরও গভীরে প্রবেশ করতে পারবে। কিয়েভ দখলে ব্যর্থ হওয়ার পর আক্রমণের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে ডনবাস।

সম্প্রতি ডনবাসের আরেক কৌশলগত শহর সেভরোডনেস্ক দখল করে নেয় রাশিয়া। সম্প্রতি এই দুই শহর দখল নিতে ব্যাপক হামলা শুরু করে রুশ বাহিনী। ইউক্রেনীয় যোদ্ধারা তীব্র প্রতিরোধ গড়ে তুললেও ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ আরও জোরালো হয়।

লুহানস্ক অঞ্চলের গভর্নর সেরহি গাইদাই বলেছেন, রুশ বাহিনী চারদিক থেকে শহরটির দিকে এগিয়ে আসলে তাদের কোনও বাধা দেওয়া হয়নি।

মস্কোপন্থী লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিকের রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত রডিয়ন মিরোশনিক রাশিয়ান টেলিভিশনকে বলেছেন, লিসিচানস্ককে নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে কিন্তু এখনও মুক্ত করা হয়নি।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করেছে রাশিয়া। ভয়াবহ হামলায় ইউক্রেনের কয়েক হাজার বেসামরিক নাগরিক প্রাণ হারিয়েছে। তাদের অভিযানকে অবৈধ অ্যাখা দিয়ে মস্কোর ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আসছে পশ্চিমা দেশগুলো।

;