জাপানের ওপর দিয়ে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ উ. কোরিয়ার



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জাপানের ওপর দিয়ে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে উত্তর কোরিয়া। সূত্র জানায়, এই মিসাইলটি ৩ হাজার কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে হোক্কাইডো দ্বীপের কাছে প্রশান্ত মহাসাগরে পতিত হয়।

মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

২০১৭ সালের পর এই প্রথম উত্তর কোরিয়া জাপানের ওপর দিয়ে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করল। এই ঘটনার পর জাপান জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের একটি বৈঠক ডেকেছে।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা বলেন, উত্তর কোরিয়ার এমন পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা করেছেন। তিনি এই উৎক্ষেপণকে হিংসাত্মক আচরণ বলে বর্ণনা করেছেন।

তার দেশ এমন বিপজ্জনক কাজ ‘কখনও সহ্য’ করবে না। তিনি বলেন, যদি উত্তর কোরিয়া এমন করতেই থাকে তবে তাদের ভবিষ্যৎ ভালো নয়।

জাতিসংঘ উত্তর কোরিয়াকে ব্যালিস্টিক ও পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষা থেকে নিষিদ্ধ করেছে।

ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে শীতকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে পুতিন: ন্যাটো



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে শীতকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে রাশিয়া বলে অভিযোগ করেছেন যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর মহাসচিব জেন্স স্টলটেনবার্গ।

রোমানিয়ার রাজধানী বুখারেস্টে সোমবার (২৮ নভেম্বর) সদস্যদেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের এক বৈঠকে এ কথা বলেন তিনি। খবর রয়টার্স।

সাম্প্রতিক সময়ে ইউক্রেনের জ্বালানি অবকাঠামোতে হামলা জোরদার করেছে রাশিয়া। এর মাধ্যমে রাশিয়া আসন্ন শীত মৌসুমে সাধারণ ইউক্রেনীয়দের জীবনকে অনিশ্চয়তার মধ্যে ফেলে দিতে চাইছে বলে অভিযোগ করেছে কিয়েভ।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জ়েলেনস্কির আশঙ্কা শীতের মৌসুমে নতুন করে বিধ্বংসী হামলা চালাতে পারে রাশিয়া। এই পরিস্থিতিতে তিনি দেশবাসীর উদ্দেশে এক বক্তৃতায় বলেন, বিদ্যুতের সরবরাহ কম থাকায় আমাদের সকলকে কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।

গত কয়েক মাসে ইউক্রেন সেনাদের আক্রমণে দক্ষিণের খেরসন, মাইকোলিভ এবং উত্তর-পূর্বে খারকিভসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে পিছু হটতে শুরু করেছে রুশ বাহিনী। পেন্টাগন প্রকাশিত একটি রিপোর্টে দাবি, যুদ্ধের প্রথম ৮ মাসে প্রায় আশি হাজার রুশ সেনা নিহত হয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বাহিনী আর কত দিন যুদ্ধ চালিয়ে যেতে পারবে তা নিয়ে সংশয় রয়েছে সামরিক পর্যবেক্ষকদের অনেকেরই।

এমন পরিস্থিতিতে ইউক্রেনের পশ্চিমা মিত্ররা বলছে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন শীতকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করতে চাইছেন। পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, হিমশীতল আবহাওয়ায় নতুন একটি শরণার্থী সংকট তৈরি হোক, তেমনটিই দেখতে চাইছেন পুতিন। এর মধ্য দিয়ে ইউরোপজুড়ে মূল্যস্ফীতির সময়ে মহাদেশটির ঐক্য ও ইউক্রেনের প্রতি তাদের সমর্থনকে পুনরায় যাচাই করা যাবে।

বুখারেস্টে জোটের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের দুদিনের বৈঠকের আগে ন্যাটো মহাসচিব বলেন, ইউক্রেনের বিদ্যুৎ গ্রিড, গ্যাসের স্থাপনা এবং মানুষের মৌলিক সেবার অবকাঠামোতে হামলা অব্যাহত রাখতে পারে রাশিয়া।

স্টলটেনবার্গ বলেন, আমরা যখন শীতকালে প্রবেশ করছি, প্রেসিডেন্ট পুতিন তখন চেষ্টা করছেন যুদ্ধের অস্ত্র হিসেবে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে শীতকে ব্যবহার করতে।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরুর পর দশ মাস হতে চলল। সামনে তীব্র শীতের মৌসুম। এ সময় ইউক্রেনের মানুষ ভয়াবহ চাপের মধ্যে পড়ে যাবে। কারণ, একে তো শীত, সেই সঙ্গে যুদ্ধ; ফুরিয়ে আসবে জীবনধারণের রসদ।

;

বিশ্বকে তেহরানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের আহ্বান খামেনির ভাগনির



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বকে ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি ভাগনি ও অধিকার কর্মী ফরিদেহ মোরাদখানি। এক ভিডিওবার্তায় তিনি এ আহ্বান জানান।

মোরাদখানি ইরানে গ্রেফতার হওয়ার দুইদিন পর তার এই ভিডিওবার্তা অনলাইনে ছড়িয়ে পড়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইরানের শাসকগোষ্ঠীকে চাপে রাখতে বিশ্ববাসীকে তেহরানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার আহ্বান জানিয়েছেন আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির ভাগনি ফরিদেহ মোরাদখানি। গত শুক্রবার ফ্রান্সে থাকা তার ভাই মাহমুদ মোরাদখানি ওই ভিডিও শেয়ার করেন। শেয়ার করার পরপরই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে পড়ে।

ভিডিওতে মোরাদখানি বলেন, ধর্মীয় নীতি-নৈতিকতার প্রতি খামেনি সরকারের কোনো আনুগত্য নেই। ক্ষমতা ধরে রাখতে ও বলপ্রয়োগ করতে তারা যে কোনো উপায় বেছে নিচ্ছে। তিনি ইরানিদের ওপর সরকারের ‘সুস্পষ্ট নিপীড়নের’ নিন্দা করেছেন এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নিষ্ক্রিয়তার সমালোচনা করেছেন।

ভিডিওতে ফারিদেহ বলেছেন, এই শাসনব্যবস্থা কোনো ধর্মীয় নীতির প্রতি অনুগত নয় এবং বলপ্রয়োগ ছাড়া কোনো আইন বা নিয়ম তারা জানে না এবং যেকোনো উপায়ে তারা ক্ষমতা বজায় রাখতে চায়। তিনি অভিযোগ করেন, বিদ্রোহ দমনে সরকারে ক্র্যাকডাউনের প্রতিবাদে ইরানের সরকারের বিরুদ্ধে আরোপিত নিষেধাজ্ঞাগুলো ‘হাস্যকর’।

;

এনডিটিভির মালিকানা পেতে আরও একধাপ এগুলো আদানি গ্রুপ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতের জনপ্রিয় সম্প্রচার মাধ্যম নিউ দিল্লি টেলিভিশনের (এনডিটিভি) মালিকানা পেতে আরও একধাপ এগুলো আদানি গ্রুপ।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) এনডিটিভির প্রতিষ্ঠাতাদের দ্বারা সমর্থিত একটি সত্তা আদানি গ্রুপকে শেয়ার ইস্যু করেছে। এর ফলে ২৯.১৮ শতাংশ শেয়ারের ওপর নিয়ন্ত্রণ দেবে আদানি গ্রুপ।

এদিকে এনডিটিভির অতিরিক্ত ২৬ শতাংশ শেয়ার কিনতে ওপেন অফার ঘোষণা করেছে দেশটির শীর্ষ ধনী বিখ্যাত শিল্পপতি গৌতম আদানির সংস্থা আদানি গ্রুপ। এনডিটিভি জানিয়েছে, ওপেন অফার শুরু হবে ২২ নভেম্বর। শেষ হবে ৫ ডিসেম্বর।

জেম ফাইনান্সিয়াল জানিয়েছে তারা এই শেয়ার কেনার বিষয়টি পরিচালনা করবে। ৪ রুপি ফেসভ্যালুসহ ১ দশমিক ৬৪ কোটি শেয়ারের প্রতিটির মূল্য দাঁড়াবে ২৯৪ রুপি। ভারতীয় স্টক এক্সচেঞ্জ (বিএসই) জানিয়েছে, ২০২২ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পাবলিক শেয়ারহোল্ডারদের দখলে ছিল এনডিটিভি কোম্পানির শেয়ারের ৩৮.৫৫ শতাংশ । এখন আদানি গ্রুপের ওপেন অফারটি সফল হলে, এনডিটিভিতে আদানি গ্রুপের মোট শেয়ারের পরিমাণ দাঁড়াবে ৫৫ শতাংশ।

এর আগে এ বছরের ২৩ আগস্ট আদানি গ্রুপের মালাকাধীন বিশ্বপ্রধান কমার্শিয়াল প্রাইভেট লিমিটেড ঘোষণা দেয়, আরআরপিআর (রাধিকা রায় এবং প্রণয় রায়) কোম্পানিকে দেয়া ৪শ' কোটি রুপি ঋণ ২৯ শতাংশ শেয়ারে পরিণত হবে। এতে এনডিটিভির ২৯ শতাংশ শেয়ারের মালিক হয়ে যায় তারা। পরে আরও ২৬ শতাংশ শেয়ার প্রাপ্তির জন্যে এ বছরের ১৭ অক্টোবর ওপেন অফারের ঘোষণা দেয় সংস্থাটি। পরে ঘোষণা স্থগিত করে তারা।

;

‘লকডাউন চাই না, মুক্তি চাই’, চীনে বিক্ষোভ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কড়া কোভিড নীতির বিরুদ্ধে চীনে ক্রমেই ছড়িয়ে পড়ছে ক্ষোভের আঁচ। দিনের পর দিন ঘরবন্দী হয়ে থাকার সরকারি নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে রোববারও বেইজিং এবং সাংহাইয়ের রাস্তায় নামেন কয়েক’শ মানুষ। রাজপথে বিক্ষোভ দেখালেন শিঙ্গুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। এসময় তারা স্লোগান দেন, ‘লকডাউন চাই না, মুক্তি চাই।’

সম্প্রতি চীনে যে হারে সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে, তাতে বেইজিং -সহ ঘনবসতির শহরগুলো আবার লকডাউনের হওয়ার মুখে। বেইজিংয়ে ইতিমধ্যেই শপিং মল, পার্ক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সাধারণ মানুষকে বলা হচ্ছে, যতটা সম্ভব বাড়িতে থাকতে। সাধারণ মানুষের অভিযোগ, প্রতিশ্রুতি সত্ত্বেও সরকার এখনও করোনা-শূন্য নীতি (জ়িরো কোভিড পলিসি) থেকে সরে আসেনি। অর্থাৎ, দেশে করোনা সংক্রমণ শূন্য না হওয়ার পর্যন্ত কড়াকড়ি বন্ধ থাকবে। যার প্রভাব পড়বে সাধারণ মানুষের রোজগারে, ব্যবসা-বাণিজ্যে।

শুধু তা-ই নয়, মানুষের ক্ষোভ আরও জোরালো হয়েছে এই কোভিড পরিস্থিতির মধ্যেই জিনঝিয়াং প্রদেশে একটি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায়। ওই প্রদেশের রাজধানী উরুমকিউই-এর একটি বহুতল আবাসনে গত বৃহস্পতিবার আগুন লাগে। তাতে প্রাণ হারান সেখানকার দশ জন বাসিন্দা। আবাসনের বাসিন্দাদের একাংশের অভিযোগ, বাড়িতে ‘তালাবন্দি’ থাকার জন্যই অনেক বাসিন্দা আবাসন ছেড়ে বেরোতে পারেননি। আগুন লেগে যাওয়ার পরেও অনেকে ঘরের মধ্যেই আটকে পড়েন বলে দাবি বাসিন্দাদের একাংশের। যদিও স্থানীয় প্রশাসন এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

;