যুক্তরাজ্যে ৩৯ মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় গ্রেফতার ৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাজ্যে একটি কন্টেইনারবাহী লরি থেকে ৩৯ মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় এক নারীসহ তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) এদের গ্রেফতার করা হয় বলে জানায় যুক্তরাজ্য পুলিশ।

পুলিশ জানায়, যুক্তরাজ্যের ওয়ারিংটন থেকে দুইজনকে এবং নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড থেকে একজনকে গ্রেফতার করা হয়। এদের বিরুদ্ধে মানবপাচারের অভিযোগ আনা হয়েছে।

এর আগে বুধবার (২৩ অক্টোবর) উত্তর-পূর্ব লন্ডনের এসেক্সে দাঁড়িয়ে থাকা একটি লরির কন্টেইনার থেকে মরদেহগুলো উদ্ধার করা হয়।

মরদেহের মধ্যে ৩১ জন পুরুষ ও আট জন নারী। তাঁরা সকলেই চীনা নাগরিক বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হলেও সকলের পরিচয় নিশ্চিত করা যায়নি। আটক ট্রাকটি বুলগেরিয়া থেকে এসেছিল। এর সঙ্গে মানবপাচার চক্রের যোগ রয়েছে বলেই ধারণা তদন্তকারীদের। ২০১৭-এ বুলগেরিয়ায় ট্রাকের রেজিস্ট্রেশন করা থাকলেও এটি নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডেই ব্যবহার হত। ২৩ অক্টোবর রাত ১টার কিছু পরে ব্রিটেনের পারফ্লিট বন্দর থেকে ট্রাকটি বেরোয়। রাত ১টা ৪০ নাগাদ ওয়াটারগ্লেড এলাকা থেকে মরদেহগুলো উদ্ধার হওয়ার খবর পৌঁছায় পুলিশের কাছে। গ্রেফতার হয় চালক মো রবিনসন। সে নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের বাসিন্দা বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাকে জেরার পর নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের বেশ কয়েকটি বাড়িতে অভিযান চালায় তদন্তকারী পুলিশ। সেগুলির একটিতে রবিনসনের বাবা-মা থাকতেন।

একটি ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, মরদেহের মধ্যে তিন জন ভিয়েতনামের নাগরিক হতে পারেন। তাদের পরিবারের এক সদস্য জানান, মঙ্গলবার রাতে মোবাইলে একটি মেসেজ আসে যেখানে লেখা, ‘আমার দম বন্ধ হয়ে আসছে।’ তারপর থেকে আর তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। ফাম ট্রা নামে ওই নারীকে ব্রিটেনে পাঠানোর জন্য পাচারকারীদের হাতে তাঁরা ৩০ হাজার ডলার দিয়েছিলেন বলে জানান তার এক আত্মীয়।

আরও পড়ুন:

যুক্তরাজ্যে উদ্ধার ৩৯ মরদেহের সবাই চীনের নাগরিক

 যুক্তরাজ্যে কন্টেইনার লরি থেকে ৩৯ মরদেহ উদ্ধার

 

আপনার মতামত লিখুন :