মৌরিতানিয়ার সাগরকূলে নৌকাডুবি, ৫৮জনের মুত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
নৌকায় গাম্বিয়ানদের ইউরোপে প্রবেশ, ছবি: সংগৃহীত

নৌকায় গাম্বিয়ানদের ইউরোপে প্রবেশ, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আফ্রিকার দেশ মৌরিতানিয়ার কাছে আটলান্টিক সাগরে অভিবাসীবাহী একটি নৌকাডুবির ঘটনায় ৫৮জন প্রাণ হারিয়েছেন। নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থা আইওএম। বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

আইওএম জানায়, নৌকাটির জ্বালানি তেল ফুরিয়ে যাওয়ায় সেটি মৌরিতানিয়ার উপকূলে ভিড়ার জন্য এগোচ্ছিলো। কূলে আসার আগেই ১৫০জন যাত্রী নিয়ে নৌকাটি ডুবে যায়।

এদের মধ্যে ৮৩ জন সাঁতার কেটে কূলে আসতে সক্ষম হয়। তাদেরকে মৌরিতানিয়ার স্থানীয় প্রশাসন তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় সহায়তা দেয়। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানায় আইওএম।

আইওএম-এর কর্মকর্তা জানায়, সমুদ্র পাড়ি দেওয়ার অনুপযুক্ত নৌকাটিতে ধারণ ক্ষমতার চেয়ে বেশি যাত্রী ছিলো।

বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিদের বরাত দিয়ে আইওএম জানায়, নৌকাটি গত ২৭ নভেম্বর গাম্বিয়া থেকে ছেড়ে আসে। পশ্চিম আফ্রিকার এ দেশটি অর্থনৈতিক সংকট ও বেকারত্বের উচ্চহারের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে।

আইওএম-এর ওই কর্মকর্তা বলেন, 'এ ঘটনা টাকালোভী মানবপাচারকারীদের পাশবিকতা ও কুচক্রিতাই সামনে নিয়ে আসে। সমস্যাটা এখানেই। যারা ভালো জীবনের স্বপ্ন খুঁজছে, তাদের এভাবে প্রতারিত ও শোষণ করা হচ্ছে।'

চলতি দশকের শুরুর দিকে সাগরে অবৈধ অভিবাসীর আগমন ঠেকাতে স্পেন নজরদারি ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা কঠোর করার পর এ নৌকাডুবির ঘটনাকে অন্যতম ভয়াবহ হিসেবে উল্লেখ করা হচ্ছে।

অনুন্নত ও যুদ্ধবিধ্বস্ত আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের মানুষ অর্থনৈতিক স্বচ্ছলতা ও নিরাপদ জীবনের আশায় মৃত্যুকে নিজের হাতে সপে দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ সমুদ্রপথে ইউরোপ আসার পথ বেঁছে নেয়। অনেকে মানবপাচারকারীদের খপ্পরে পড়ে হারিয়ে ফেলে সবকিছু। আবার কখনও নৌকাডুবিসহ বিভিন্ন ঘটনায় প্রাণ হারান অসংখ্য মানুষ।

আইওএম-এর মতে, ২০১৪ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে ৩৫ হাজারেরও বেশি গাম্বিয়ান ইউরোপে প্রবেশ করেছে।

আপনার মতামত লিখুন :