নিউজিল্যান্ডে আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতে ৫জন নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
অগ্নুৎপাত হচ্ছে নিউজিল্যান্ডে, ছবি: সংগৃহীত

অগ্নুৎপাত হচ্ছে নিউজিল্যান্ডে, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নিউজিল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলীয় হোয়াইট দ্বীপের পূর্ব উপকূলে একটি আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৫জন নিহত ও অসংখ্য পর্যটক আহত হয়েছেন। এছাড়া অনেক পর্যটক দ্বীপটিতে আটকা পড়েছেন।

দেশটির পুলিশের বরাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা বিবিসি।

দেশটির পুলিশের দেওয়া তথ্য মতে, সোমবার (৯ ডিসেম্বর) স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ১১মিনিটে অগ্নুৎপাত শুরু হয়। এ পর্যন্ত পাঁচজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। এছাড়া ২৩জন পর্যটককে উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। আর অগ্নুৎপাতের ফলে উদ্ধার কাজ করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ।

হোয়াইট দ্বীপে নিউজিল্যান্ডের অন্যতম সক্রিয় আগ্নেয়গিরি রয়েছে। তা সত্ত্বেও, ভ্রমণ পিপাসুরা সেখানে ভিড় জমায়।

অগ্নুৎপাতের আগে সেখানে যাওয়া পর্যটক মাইকেল শ্যাড বিবিসিকে বলেন, ‘আমরা বোটে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে একটি বিকট শব্দ শুনতে পাই। আরেকজন আমাকে এ অবস্থা দেখায়। এ সময় একটি ঘন ছাই এবং ধোঁয়া দেখা যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিস্ফোরণের মাত্র ত্রিশ মিনিট আগেও তিনি আগ্নেয়গিরির গর্তে ছিলেন।’

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন বলেন, ‘হোয়াইট দ্বীপে দেশি ও বিদেশি অনেক পর্যটক আটকা পড়েছেন। আমি আপনাদের আশ্বস্ত করছি পুলিশ যতটুকু সম্ভব ততটুকু করবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘পুলিশ উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে। কিন্তু ধোঁয়া ও ছাই পড়ে থাকায় উদ্ধার কাজ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।’

নিউজিল্যান্ডের উপ-সহকারী পুলিশ কমিশনার জন টিমস বলেন, ‘এ পর্যায়ে পুলিশ ও উদ্ধারকর্মীদের পক্ষে হোয়াইট দ্বীপে যাওয়া খুব বিপজ্জনক।’

এর আগে পুলিশ প্রাথমিকভাবে জানায়, দ্বীপটির কাছাকাছি জায়গায় ১০০ জন লোক ছিল। পরে ৫০ জনকে উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে আনা হয়েছে।

চলতি মাসের তিন ডিসেম্বর ভূতাত্ত্বিক ঝুঁকি নিরীক্ষণ ওয়েবসাইট জিওনেট হুঁশিয়ারি করে জানায়, যেকোনো সময় বিস্ফোরণের মাধ্যমে অগ্নুৎপাত ঘটতে পারে।

হোয়াইট দ্বীপে অগ্নুৎপাতের ঘটনা নতুন নয়। এর আগে ২০১৬ সালেও হোয়াইট দ্বীপে অগ্নুৎপাতের ফলে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। তবে তখন কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

আপনার মতামত লিখুন :

এ সম্পর্কিত আরও খবর