ভারতে এক দশকে ১৫ হাজার বাংলাদেশিকে নাগরিকত্ব



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ভারতের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রায়/ ছবি: সংগৃহীত

ভারতের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রায়/ ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গত এক দশকে ২১ হাজার বিদেশিকে নাগরিকত্ব দিয়েছে ভারত। যার মধ্যে প্রায় ১৫ হাজারই বাংলাদেশি। নাগরিকত্ব সংশোধন আইন নিয়ে ভারত যখন উত্তাল, সে সময়ই নাগরিকত্ব দেওয়া নিয়ে এসব তথ্য প্রকাশ করলো দেশটির সরকার।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এবং চলতি মোদি সরকারের সময়ই তাদের নাগরিকত্ব দেওয়া হয়।

মঙ্গলবার (৪ ফেব্রুয়ারি) দেশটির লোকসভায় এক প্রশ্নোত্তরে এই তথ্য জানানো হয় বলে উল্লেখ করেছে ইন্দো এশিয়ান নিউজ সার্ভিস।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে জানতে চাওয়া হয় নাগরিকত্ব পাওয়ার পরিসংখ্যান। এছাড়াও মুসলিমদের নাগরিকত্ব পাওয়ার বিষয়টিও জানতে চাওয়া হয়।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রায় বলেন, গত দশ বছরে ২১ হাজার ৪০৮ জন বিদেশিকে ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে।

বছর অনুযায়ী পরিসংখ্যান উল্লেখ করে তিনি জানান, ২০১০ সালে ২৩২ জন বিদেশি ভারতের নাগরিকত্ব পেয়েছেন। ২০১১ সালে ৪৩৫ জন, ২০১২ সালে ৫৫৩ জন, ২০১৩ সালে ৫৬৩ জন, ২০১৪ সালে ৬১৭ জন এবং ২০১৫ সালে ১৫ হাজার ৪৭ জন। এরপর থেকেই ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রদানের হার আরও বেড়েছে। ২০১৬ সালে ১ হাজার ১০৬ জন, ২০১৭ সালে ৮১৭ জন, ২০১৮ সালে ৬২৮ জন এবং ২০১৯ সালে ৯৮৭ জনকে ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রদান করা হয়।

ভারত-বাংলাদেশ ল্যান্ড বাউন্ডারি অ্যাক্ট ২০১৫ এর অধীনে বাংলাদেশের ৫৩টি ছিটমহল ভারতে রয়েছে। এছাড়াও ভারতের নাগরিগত্ব আইন ১৯৫৫ এর অধীনে গত ১০ বছরে ১৪ হাজার ৮৬৪ জন বাংলাদেশিকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে।

বিদেশি মুসলিমদের নাগরিকত্ব দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, নাগরিকত্ব আইন ১৯৫৫ এর অধীনে সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে। সেখানে ধর্ম প্রাধান্য পায়নি। চলতি নাগরিকত্ব আইনে কোনো পরিবর্তন আসবে না।

প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, যেসব বাংলাদেশি অবৈধভাবে বাস করতেন, তাদের ফেরত পাঠাতে হবে। ২০১৬ সালে ৩০৮ জন, ২০১৭ সালে ৫১ জন এবং ২০১৮ সালে ৪৪৫ জন অবৈধ অভিবাসীকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।