মামলা হস্তক্ষেপে আমার আইনগত অধিকার রয়েছে: ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বার, ছবি: সংগৃহীত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বার, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নিজের কাজকে অসম্ভব করে তোলার মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেলের অভিযোগ করার পর তা উড়িয়ে দিয়ে মামলা হস্তক্ষেপে নিজের আইনগত অধিকার রয়েছে জানিয়ে টুইট করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় শুক্রবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) এ টুইট করেন।

টুইটে ট্রাম্প বলেন, অ্যাটর্নি জেনারেল বার জানিয়েছেন, প্রেসিডেন্ট কখনও আমাকে ফৌজদারি মামলায় কিছু করতে বলেননি। তার মানে এই নয় যে আমি কোনো মামলায় হস্তক্ষেপ করতে পারব না। একজন প্রেসিডেন্ট হিসেবে যেকোনো সময় মামলায় হস্তক্ষেপ করার আমার আইনগত অধিকার রয়েছে। এছাড়া টুইট পোস্টে এখন পর্যন্ত কোনো মামলায় হস্তক্ষেপ করেননি বলে জানান ট্রাম্প।

বৃহস্পতিবার আমেরিকার শীর্ষ আইন কর্মকর্তা উইলিয়াম বার ফৌজদারি মামলা প্রসঙ্গে ট্রাম্পকে টুইট করা বন্ধ করতে বলেন। ট্রাম্পের প্রাক্তন উপদেষ্টা রজার স্টোনের মামলা সম্পর্কে টুইট করার পর উইলিয়াম বার এ কথা বলেন।

প্রসিকিউটররা স্টোনকে কঠোর সাজা দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন। কিন্তু ট্রাম্প টুইট করে বলেন, স্টোনের কাজ অন্যায় ছিল না।

২০১৬ সালের মার্কিন জাতীয় নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের বিষয়ে তদন্তে বাঁধা দেওয়ার অভিযোগে গত বছরের নভেম্বরে রজার স্টোনকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। প্রসিকিউটররা জানান এই মামলায় স্টোনের সাত থেকে নয় বছরের সাজা হতে পারে। এরপরেই আবার স্টোনের সাজা কমানোর কথা বলেন বিচারকগণ। কিন্তু সমালোচনার মুখে এ পদক্ষেপ থেকে পিছ পা হটেন বিচারকগণ। এমনকি চারজন প্রসিকিউটর মামলা থেকে সরে দাঁড়ান।

১৯৭০ সালে মার্কিন সাবেক প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সন ওয়াটার গেট কেলেঙ্কারীর পর থেকে মার্কিন বিচার বিভাগ রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ ছাড়ায় পরিচালিত হচ্ছে।

বিচার বিভাগে হস্তক্ষেপ ট্রাম্পের জন্য নতুন নয়। এর আগে এফবিআই'র সাবেক দুই পরিচালকের তদন্তে হস্তক্ষেপ করেন ট্রাম্প।

আরও পড়ুন: 'ট্রাম্পের টুইট আমাদের কাজকে অসম্ভব করে তুলছে'

আপনার মতামত লিখুন :