বৈশ্বিক নীতি সমন্বয়ের আহ্বান চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

অর্থনীতিতে করোনাভাইরাসের প্রভাব কাটিয়ে উঠতে বৈশ্বিক নীতি সমন্বয় করার আহ্বান জানিয়েছে চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

রোববার (২২ মার্চ) ব্যাংকটির প্রেস কনফারেন্সের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স এসব তথ্য জানায়। প্রেস কনফারেন্সে এক কর্মকর্তা বলেন, বেইজিং সম্প্রতি যে পদক্ষেপগুলো নিয়েছে সেগুলো ইতোমধ্যে অনেককে আকৃষ্ট করেছে এবং আরো কিছু করার সক্ষমতা এর রয়েছে।

এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পিপলস ব্যাংক অব চায়না (পিবিওসি) -র ডেপুটি গভর্নর চেন ইয়ুলু বলেন,  ব্যাংকের গভর্নর ই গ্যাং মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকের চেয়ারম্যান জেরোমে পওয়েল, ইন্টারন্যাশনাল মনেটারি ফান্ড এবং অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে আলোচনা করেছে।  

চেন আরো বলেন, বৈশ্বিক মহামারি দ্রুত বাড়ছে। তাই বৃহৎ নীতি যেমন- জনস্বাস্থ্য, বাণিজ্য, রাজস্ব ও আর্থিক নীতির আন্তর্জাতিক সমন্বয় জোরদার করার ব্যাপারে সবদেশের এগিয়ে আসা উচিত। এই জটিল পরিস্থিতিতে আমরা আন্তর্জাতিক সমন্বয়ের ক্ষেত্রে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করব।

‘বর্তমানে চীনের আর্থিক বাজার ব্যবস্থা প্রত্যাশা অনুযায়ী তুলনামূলক স্থিতিশীল আছে এবং বৃহৎ নীতি ও সরঞ্জাম যথেষ্ট পরিমাণে মজুত আছে’।

করোনাভাইরাসের প্রকোপ থেকে অর্থনীতিকে বাঁচাতে পিবিওসি ইতোমধ্যে কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, সুদের হার কমানো ও নির্দিষ্ট কিছু ফার্মকে সহজ শর্তে ঋণদান।

ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনে দ্রব্যমূল্যের ওপর ঊর্ধ্বগামী চাপ অব্যাহত থাকায় আসন্ন তিন মাসে সহজেই মুদ্রাস্ফীতি দেখা দিতে পারে।

চীনা ব্যাংকিং ও ইন্স্যুরেন্স রেগুলেটরি কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান ঝৌ লিয়াং বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, অস্থিতিশীল আর্থিক ঝুঁকি মোকাবিলায় চীন প্রস্তুত আছে ও দুর্বল ঋণ নিয়ে কাজ করা সম্পদ ব্যবস্থাপনা কোম্পানিগুলোর পুনর্গঠনের পরিকল্পনা করছে।

ফেব্রুয়ারির শেষে চীনের অ-সম্পাদনযোগ্য ঋণের অনুপাত ২ দশমিক ৮ শতাংশ বেড়ে গেছে এবং গত তিন বছরে চীনের ব্যাংকিং খাত মোট ৫.৮ ট্রিলিয়ন ইউয়ান (৮১৭.৪৮ বিলিয়ন ডলার) দুর্বল ঋণ নিষ্পত্তি করেছে।

আপনার মতামত লিখুন :