দুই বছর হেঁটে আফ্রিকা থেকে বায়তুল মোকাদ্দাসে এক যুবক



ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
দুই বছর পায়ে হেঁটে আফ্রিকা থেকে বায়তুল মোকাদ্দাসে পৌঁছেছেন এই যুবক, ছবি: সংগৃহীত

দুই বছর পায়ে হেঁটে আফ্রিকা থেকে বায়তুল মোকাদ্দাসে পৌঁছেছেন এই যুবক, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দক্ষিণ আফ্রিকার এক যুবক পায়ে হেঁটে ফিলিস্তিনের জেরুজালেম নগরীতে অবস্থিত বায়তুল মোকাদ্দাসে পৌঁছেছেন। তার নাম শহীদ বিন ইউসুফ স্টাকালা।

দীর্ঘ দুই বছর দু’মাস পায়ে হেঁটে সম্প্রতি তিনি জেরুজালেম এসে পৌঁছান।

বায়তুল মোকাদ্দাস পৌঁছে শহীদ বিন ইউসুফ বলেন, মুসমানদের প্রথম কেবলা ও তৃতীয় পবিত্রতম মসজিদে নামাজ পড়তে ২০১৮ সালে কেপটাউন থেকে হাঁটা শুরু করি। অবশেষে এ বছরের নভেম্বরে জেরুজালেম এসে পৌঁছাই। আমি অনেক খুশি।

এক ভিডিওতে তিনি বলেন, ‘আল্লাহতায়ালার প্রতি অসংখ্য শোকরিয়া। আমি ধন্য আল আকসায় নামাজ পড়ার সুযোগ পেয়ে।’

তিনি বলেন, ‘এটা আমার জন্য ভীষণ সম্মানের। আল আকসায় সকাল থেকে রাত অবধি আমাকে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায়ের সুযোগ দেওয়া হয়েছে।’

শহীদ বিন ইউসুফ ২০১৮ সালের ১৫ আগস্ট দক্ষিণ আফ্রিকার রাজধানী কেপটাউন থেকে যাত্রা শুরু করেন। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে জিম্বাবুয়ে, জাম্বিয়া, তানজানিয়া, কেনিয়া, ইথিওপিয়া, সুদান এবং মিসর হয়ে গাজা প্রবেশ করেন তিনি।

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকা থেকে তাকে ইসরাইলে প্রবেশ করকে নিষেধ করা হয়েছিল, তাই তিনি মিসর ফিরে যান। পরে আবার মিসর থেকে জর্ডান হয়ে ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর হয়ে জেরুজালেম এসে পৌঁছান।

মাঝে অবশ্য করোনা ভাইরাসের কারণে মার্চ মাসে জর্ডান থেকে দক্ষিণ আফ্রিকা ফিরে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারিজনিত কারণে সীমান্ত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আর ফিরে যাওয়া হয়নি।

শহীদ বিন ইউসুফের আশা, জেরুজালেম থেকে মদিনা যাবেন। পরে হজ পালন শেষে নিজ দেশে ফিরবেন।

তিনি ‘মাই স্পিরিটেড স্ট্রাগল’ নামে একটি বই লিখেছেন। যেখানে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে জেরুজালেমে তার যাত্রাপথের বিবরণ দিয়েছেন।