দুধে সোনা! তাই স্বর্ণঋণ নিতে গরু নিয়ে হাজির

কলকাতা ডেস্ক, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সম্প্রতি ভারতে গো-দিবসে, পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার এক সভায় বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ দাবি করেছিলেন, 'দেশি গরুর কুঁজে স্বর্ণনাড়ি আছে। যাতে সূর্যের আলো পড়লে স্বর্ণ তৈরি হয়। তাই গরুর দুধ হলুদ।'

সেই কথা বিশ্বাস করেই চুঁচুড়ার জেলার গ্রাম উন্নয়নের অফিসে হাজির হন সুশান্ত মণ্ডল নামে এক ব্যক্তি। কারণ তিনি বিচার চান। কিন্তু কোনো কিছু বোঝার আগেই অফিসের প্রধান কর্মকর্তা মনোজ সিংকে বাইরে টেনে নিয়ে সুশান্ত বলেন, 'দেখুন চেহারাটা একবার, খাঁটি দেশি গরু। কত স্বর্ণ পাওয়া যাবে ভাবুন!' 

সুশান্তের এমন কথা শোনার পর মনোজ সিং এতোটাই হতভম্ব হয়ে যায় যে, তিনি কী করবেন বুঝে উঠতে পারেন না। কিন্তু ততোক্ষণে জড়ো হয়ে যায় আশপাশের মানুষ। ঘটনা শুনে হাসির ফোয়ারা ওঠে।

প্রায় ২০টির মতো গরু রয়েছে সুশান্ত মণ্ডলের। সেই গরুর দুধ বিক্রি করেই সংসার চালান তিনি। গত সোমবার তিনি টিভিতে দেখেন রাজ্যের এক সাংসদ তথা বিজেপির রাজ্য সভাপতি গরুর কুঁজে স্বর্ণ আছে বলে জানিয়েছেন। আর তাতেই সুশান্ত ধরে নেন গরু মানেই তো তাহলে স্বর্ণ।

যেমন ভাবা তেমন কাজ। একটি গরু ও বাছুর নিয়ে চলে যান অঞ্চলের স্বর্ণঋণ সংস্থার অফিসে। সেখানে গরু বন্ধক রেখে অর্থের দাবি করেন। বলেন, 'গরুটা রাখেন। আমি রোজ দুধ দুইয়ে যাবো। আর তাতে দুধ বাদ দিয়ে যে স্বর্ণ বের হবে তাই রেখে আমাকে স্বর্ণঋণ দিন।'

এমন অদ্ভুত দাবি শুনে স্বর্ণঋণ সংস্থার কর্মীরা কী উত্তর দেবেন ভেবে পান না। তারা এক প্রকার জোর করে সংস্থার অফিস থেকে বের করে দেয় সুশান্তকে। এরই বিচার চেয়ে গ্রাম উন্নয়নের অফিসে যায় সুশান্ত মণ্ডল।   

এ বিষয়ে মনোজ সিং বলেন, 'তাকে তো বুঝিয়ে গরুসহ ফেরত পাঠালাম। কিন্তু তারপর থেকে ফোনে গরুর বদলে স্বর্ণের দাবিতে অতিষ্ঠ হয়ে যাচ্ছি। কেন যে নেতারা বক্তব্য রাখার সময় সাবধান হন না কে জানে!'

তবে সুশান্ত মণ্ডলের সারল্য অবশ্য এখনও অটুট। তার মতে, 'অত বড় লোক মিথ্যে বলবে। আমি তো খালি হাতে ঋণ চাইনি। গরুর বদলে চেয়েছিলাম। কিন্তু, তারা দিল না। তাই প্রধানকে অভিযোগ করি।'

বিষয়টি নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিস্তর বাদানুবাদ শুরু হয়েছে। ঘটনায় জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ সুবীর মুখোপাধ্যায় বলেন, 'আহা একজন অন্তত দিলীপ ঘোষের কথা বিশ্বাস করেছেন, এটাই বা কম কী!' 

আপনার মতামত লিখুন :