লকডাউন শিথিল হতেই ভারতে বাড়ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কলকাতা
করোনা রোগীকে  হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে, ছবি: বার্তা২৪.কম

করোনা রোগীকে হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে, ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

পশ্চিমবঙ্গে দিন দিন করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে ৩৬৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন করোনাভাইরাসে। মারা গেছেন ১০ জন। সব মিলিয়ে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ছয় হাজার ৮৭৬। আর মৃত্যু হয়েছে মোট ৩৫৫ জনের। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৮৮ জন। ফলে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা বেড়ে হলো দুই হাজার ৭৬৮।

একই পরিস্থিতি গোটা ভারতেই। করোনাভাইরাসের প্রকোপ কমার কোনো লক্ষণ এখনো নেই। যদিও সংখ্যার বিচারে কোভিড-১৯ মৃত্যুর হার কমেছে। কিন্তু সংক্রমণের হার বেড়েই চলেছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন নয় হাজার ৮৫১ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় দুই লাখ ২৭ হাজার। তবে এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন এক লাখ নয় হাজার মানুষ। আর মৃত্যু হয়েছে ছয় হাজার ৩৪৮ জনের।

এদিকে, ভারতে চলছে পঞ্চম দফার লকডাউন। লকডাউন শিথিল হতেই বাড়ছে সংক্রমণ। অপরদিকে, আগামী ৮ জুন থেকে খুলছে শপিং মল, রেস্তোরাঁ, হোটেল, সব অফিস ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান।

বিশেজ্ঞরা বলছেন, লকাডাউন শিথিল হওয়ার কারণে আগামীতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়বে। বেঙ্গালুরুর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব মেন্টাল হেলথ অ্যান্ড নিউরো সায়েন্সের (নিমহ্যান্স) প্রধান ডা. ভি রবি জানিয়েছেন, জুনের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে ভারতে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হবে। এর প্রভাবে এতোটাই মহামারি আকার ধারণ করবে যে চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে দেশটির অর্ধেক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে পড়বেন। এমনকি আক্রান্তদের মধ্যে ৯০ শতাংশ জানতেই পারবেন না যে তিনি করোনায় আক্রান্ত।

ভারতে সংক্রমণ নিয়ে চীনের একটি তথ্য উদ্বেগ বাড়িয়েছে। বিশ্বের ১৮০টি দেশের করোনা পরিস্থিতির পূর্বাভাস দিতে চীনের লানঝৌউ বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করেছে ‘গ্লোবাল কোভিড-১৯ প্রেডিক্ট সিস্টেম’। সেখানেই পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে, ভারতে সংক্রমণ প্রতিদিন গড়ে ১৫ হাজারে পৌঁছাতে পারে। ফলে আগামীতে করোনা ভারতকে আরও গ্রাস করবে, তা নিসন্দেহে বলা যায়।

আপনার মতামত লিখুন :