অপহরণের নাটক সাজিয়ে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টা, গ্রেফতার ২



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী নওগাঁ
অপহরণের নাটক সাজিয়ে বাবার কাছে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টা, গ্রেফতার ২

অপহরণের নাটক সাজিয়ে বাবার কাছে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টা, গ্রেফতার ২

  • Font increase
  • Font Decrease

নওগাঁর বদলগাছীতে অপহরণের নাটক সাজিয়ে বাবার কাছ থেকে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টা করায় ছেলে রাসেল রানাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৩ মে) দুপুর সাড়ে ১২টায় পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়া তার অফিস মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, বদলগাছী উপজেলার গোয়ালভিটা গ্রামের সিদ্দিক রহমানের বড় ছেলে রাসেল রানা (২৮)ও রনাহার গ্রামের ফয়সাল (২২)।

পুলিশ সুপার বলেন, বদলগাছী উপজেলার গোয়ালভিটা গ্রামের সিদ্দিক রহমানের বড় ছেলে রাসেল রানা গত ৯ মে সকাল ১০টায় ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলনের জন্য বাড়ি থেকে বেরিয়ে আর ফিরেনি। ১১ মে পর্যন্ত কোনো খোঁজ না পেয়ে তার বাবা বদলগাছী থানায় একটি ডায়েরি করেন।

এরই মধ্যে রাসেল রানা তার ছোট ভাইকে ফোন করে জানায় বিকাশের মাধ্যমে দুই লাখ টাকা না পাঠালে তাকে মেরে ফেলা হবে। এভাবে টাকা চেয়ে বার বার ফোন করতে থাকে রাসেল। পরে সিদ্দিক রহমান বদলগাছী থানায় একটি অভিযোগ দেন।

অভিযোগের সূত্র ধরে বদলগাছী এবং পার্শবর্তী জয়পুরহাট জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় পুলিশ। বুধবার (১২মে) রাত ১টার দিকে রাসেলকে বদলগাছীর ঐতিহাসিক পাহাড়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পেছন থেকে উদ্ধার করা হয়। তাকে নিয়ে অভিযান পরিচালনা করে জয়পুরহাট জেলা সদর থেকে ঘটনার মূল হোতা ফয়সাল আহম্মেদ ফাহিমকে আটক করা হয়।ফয়সাল বদলগাছীর রনাহার গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে।

পুলিশ সুপার বলেন, আটকের পর তাদের জিজ্ঞাসাবাদে অপহরণ নাটকের তথ্য বেরিয়ে আসে। উপজেলার রামপুর গ্রামের নাজমুল হোসেনের বাড়ি থেকে রাসেল রানা, ফয়সাল আহম্মেদ ফাহিম ও সাখাওয়াত হোসেনসহ অজ্ঞাত আরও ২-৩ জন অপহণের নাটক সাজিয়ে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টা করে। ঘটনায় থানার মামলা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

রাসেলের পরিবার জানায়, সে মাদকাসক্ত এবং চিহ্নিত জুয়াড়ি। এসব কারণে সংসার বেশ ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়ে। ঋণ পরিশোধের তেমন উপায় না থাকায় রাসেল পাওনাদারদের কাছে অপদস্থ হতে থাকে। বন্ধুদের পরিকল্পনার অংশ হিসেবে স্বেচ্ছায় অন্তরালে গিয়ে অপহরণের নাটক সাজিয়ে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।