ওয়াসার পানি সুপেয় নয়

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
হাইকোর্ট | ছবি: বার্তা২৪.কম

হাইকোর্ট | ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ওয়াসার পানি সুপেয় নয় বলে মতামত দিয়েছে হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটি। বিশেষজ্ঞ কমিটির দাখিল করা নতুন এই প্রতিবেদনেও ওয়াসার পানিতে ক্ষতিকর ই-কোলাই ও ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

সোমবার (২ ডিসেম্বর) হাইকোর্টে আসা বিশেষজ্ঞ কমিটির প্রতিবেদনে এ মন্তব্য করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মোহাম্মদ সাঈদ উর রহমান স্বাক্ষরিত ৫ পৃষ্ঠার প্রতিবেদনে বিশেষজ্ঞ কমিটি জানায়, ওয়াসার পানি সুপেয় নয়।

বিশেষজ্ঞ কমিটির প্রতিবেদনে সুপেয় পানি নিশ্চিতে ৪ দফা সুপারিশ করা হয়েছে-

প্রথম দফায় বলা হয়েছে- পানিতে দূষণ বা জীবাণুর সংক্রমণ ঠেকাতে ঢাকা ওয়াসার পানি সরবরাহের লাইন মেরামত করা ও আধুনিকায়ন করা উচিত। এজন্য ঢাকা ওয়াসাকে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে।

দ্বিতীয় দফায়-ঢাকা শহরে সরবরাহকৃত পানির মান যাচাই ও মনিটরিং করার জন্য তৃতীয় কোনো পক্ষের মাধ্যমে ক্যাম্পেইন চালু করতে হবে। এছাড়া এ ক্যাম্পেইনের জন্য আর্থিক ও প্রযুক্তিগত সহায়তা নিশ্চিত করতে হবে। বছরজুড়ে এ ক্যাম্পেইন অব্যাহত থাকবে।

তৃতীয় দফায়-ভোক্তাদের মধ্যে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন চালাতে হবে যাতে তারা বাসা-বাড়িতে থাকা পানির ট্যাংকি ও হাউসগুলো পরিষ্কার রাখে।

শেষ দফায় রয়েছে- অবৈধ পানির সংযোগ বন্ধ করা।

বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলম সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চে এ প্রতিবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে।

গত জুলাইয়ে হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত আগের কমিটি আদালতে দাখিল করা প্রতিবেদনে ঢাকা ওয়াসার ১০টি মডস জোনের মধ্যে চারটি জোন এবং সায়েদাবাদ ও চাঁদনিঘাট এলাকা থেকে সংগৃহীত ৮টি নমুনাতে পানিতে দূষণ পেয়েছে বলে আদালতকে জানান। এসব এলাকার পানিতে ব্যাকটেরিয়া, উচ্চমাত্রার অ্যামোনিয়া পাওয়া গেছে। এছাড়াও কিছু কিছু নমুনাতে মলের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে বলেও উল্লেখ করা হয়েছিল।

এই প্রতিবেদনে আপত্তি জানায় ওয়াসা। এরপর আরেকটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করে দেয় হাইকোর্ট।

আপনার মতামত লিখুন :