আলাদাভাবে আনারস থাকুক খাদ্যাভ্যাসে

ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইফস্টাইল
আনারস

আনারস

  • Font increase
  • Font Decrease

সবসময়ই উপকারী ও প্রাকৃতিক খাদ্য উপাদানে অভ্যস্ত হওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। ফ্রেশ ফল ও সবজি ব্যতীত বাইরের অস্বাস্থ্যকর খাবার কোনভাবেই স্বাস্থ্য উপকারিতা আনবে না। উপকারী খাদ্য উপাদানের মাঝে একটি হল পরিচিত ফল আনারস। শিশু থেকে বৃদ্ধ সবার জন্যে আলাদাভাবে স্বাস্থ্য উপকারিতা বহন করার জন্য এই ফলটিকে আলাদা গুরুত্ব দেওয়া যেতেই পারে।

ভিটামিন-সি, এ, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম ও ফলেট সমৃদ্ধ এই ফলটির উপকারের কিছু ধরণ সম্পর্কে জেনে নিন।

ওজন কমাতে সহায়ক

বেশ কিছু গবেষণার তথ্যানুসারে আনারসে আছে অ্যান্টি-ওবেসিটিমূলক উপাদান, যা বাড়তি ওজনকে কমাতে কাজ কাজ করে। হাই-ফ্যাট ডায়েটে থাকা ইঁদুরদের আনারসের রস দেওয়ার পর দেখা গেছে তাদের শরীরের ওজন ও লিভারের ফ্যাটের মাত্রা কমে গেছে। বিশেষজ্ঞদের মতে আনারস পেটের চর্বি কমাতে তুলনামূলক উপকারী।

খাদ্য পরিপাকে সাহায্য করে

আনারসে থাকা বিভিন্ন উপকারী উপাদানের মাঝে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদানটি হলো ব্রোমেলেইন (Bromelain)।  এই এনজাইমটি খাদ্যকে ভালোভাবে পরিপাক হতে সাহায্য করে। পরীক্ষার ফল থেকে জানা যায়, আমাদের গ্রহণকৃত খাদ্য উপাদানে থাকা প্রোটিনকে ভাঙতে কাজ করে এই এনজাইমটি।

আনারস

বাড়ায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

ব্রোমেলেইন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে খুব ভালো কাজ করে এবং শরীরের আঘাত ও ক্ষত দ্রুত ভালো করতে কাজ করে। শিশুদের নিয়মিত আনারস খাওয়ানোর অভ্যাস গড়ে তুললে, মাইক্রোবিয়াল ইনফেকশনের সমস্যা দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা কমে যাবে। এছাড়া রক্তের শ্বেত রক্তকণিকার মাত্রা বৃদ্ধি করতে অবদান রাখে আনারস। এছাড় গবেষণা জানাচ্ছে, সাইনাসাইটিসের সমস্যা কমাতে, অ্যাজমাজনিত সমস্যা ও অ্যালার্জির প্রভাব কমাতে আনারস উপকারী।

উপকারী হৃদযন্ত্রের জন্য

এখানেও আনারসে থাকা ব্রোমেলেইন উপকারী উপাদান হিসেবে কাজ করবে। এটা Thrombophlebitis বা ব্লাড ক্লটের সমস্যাটি কমায়। ফলে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে এবং হৃদযন্ত্রের উপর বাড়তি চাপ পড়ে না। এছাড়া কিছু ক্ষেত্রে ব্রোমেলেইন কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে হৃদরোগের সম্ভাবনাকেও কমিয়ে আনে।

কমায় ক্যানসারের ঝুঁকি

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছে, আনারসে থাকা ব্রোমেলেইন শুধু খাদ্য পরিপাকের জন্যেই নয়, শরীরে ক্যানসার প্রতিরোধেও কার্যকর। এই এনজাইমটি সরাসরি কোষ ও তার আশেপাশের পরিবেশের উপর প্রভাব তৈরি করে। তবে ব্রোমেলেইন সবচেয়ে বেশি ভালো কাজ করে কোলন ক্যানসার প্রতিরোধে। শুধু আনারস নয়, ব্রোমেলেইন রয়েছে এমন সকল খাবারই ক্যানসারের ঝুঁকি কমাতে ও ক্যানসার প্রতিরোধে কাজ করে।

আনারস

কমায় প্রদাহ

প্রাণীদের উপর পরীক্ষা করে দেখা গেছে, আনারসে থাকা ব্রোমেলেইন থেকে পাওয়া যাবে থেরাপিউটিক প্রভাব, যা প্রদাহকে কমাতে কাজ করে। বিশেষত ইনফ্ল্যামেটরি বাওয়েল সিনড্রোমের ক্ষেত্রে এটা খুব ভালো কাজ করে। আনারসে থাকা ব্রোমেলাইন প্রদাহ কমানোর জন্য শরীরে সাইটোকিনস (Cytokines) ও কেমোকিনস (Chemokines) তৈরি করে। এই উপাদানগুলো অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি ধর্ম বহন করে এবং প্রদাহকে কমিয়ে আনে।

আপনার মতামত লিখুন :