বগুড়া প্রাণ-আরএফএলের অফিসে তালা দিয়ে কর্মীদের কর্মবিরতী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বগুড়া
বগুড়া প্রাণ-আরএফএলের অফিস।

বগুড়া প্রাণ-আরএফএলের অফিস।

  • Font increase
  • Font Decrease

বকেয়া বেতন-ভাতা ও কমিশনসহ ১৪ দফা দাবিতে প্রাণ-আরএফএলের ৬ শতাধিক কর্মী বগুড়া সেলস অফিসে তালা দিয়ে কর্মবিরতী শুরু করেছেন।

বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বগুড়া শহরের কৈগাড়ি এলাকায় প্রাণ-আরএফএলের সেলস অফিসে তালা লাগিয়ে দিয়ে এই বিক্ষোভ শুরু করেন কর্মীরা।

জানা গেছে, বগুড়া সেলস অফিস থেকে ৩৪টি গ্রুপের অধীনে ৬৮০ জন কর্মীর মাধ্যমে বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, জয়পুরহাট ও নওগাঁ জেলায় প্রাণ-আরএফএলের পণ্য বাজারজাত করা হয়। বিক্রয় প্রতিনিধিদের দাবি তাদের কেউ ৩ মাস, কেউবা ২ মাস বেতন-ভাতা পান না। সকলের টিএডিএ বন্ধ রয়েছে ৩ মাস ধরে। এমনকি নিয়মিত কমিশন দেয়া হয় না। এ কারণে বুধবার সকাল থেকে চার জেলায় কর্মরত বিক্রয় প্রতিনিধিরা কাজ বন্ধ করে দেন। এরপর বগুড়ায় কর্মরত কর্মীরা তাদের সেলস অফিসের সামনে সমবেত হয়ে ১৪ দফা দাবি পেশ করেন এবং অফিসে তালা ঝুলিয়ে দেন।

বগুড়া প্রাণ-আরএফএলের সেলস অফিসের অধীনে ৩৪টি গ্রুপের অ্যাডমিন আব্দুর আউয়াল জানান, তাদের ১৪টি দাবির মধ্যে বকেয়া বেতন পরিশোধ, টিএডিএ সর্বনিম্ন ৬ হাজার টাকা এবং মূল বেতন সর্বনিম্ন ১২ হাজার টাকা করতে হবে। এছাড়াও প্রতি বছর বেতন বৃদ্ধি, কমিশন পলিসি পরিবর্তন, স্বেচ্ছায় চাকরি ছেড়ে দিলে শতভাগ প্রাপ্য পরিশোধ এবং আন্দোলনরত কর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়ার দাবি অন্যতম।

প্রাণ-আরএফএল প্রধান কার্যালয়ের সেলস অ্যাডমিন মাহবুবর রহমান বার্তা২৪.কমকে জানান, কর্মীদের আন্দোলনের বিষয়ে তার জানা নেই। তবে বকেয়া বেতনের মধ্যে এক মাসের বেতন আজকে (বুধবার) প্রধান কার্যালয় থেকে ছাড় করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :