বগুড়ায় হত্যা মামলার আসামির রহস্যজনক মৃত্যু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,বার্তা২৪.কম,বগুড়া
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বগুড়ায় আকমল হোসেন (৩২) নামের এক হত্যা মামলার আসামির রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পরিবারের দাবি তাকে অপহরণ করে নন্দীগ্রামে নিয়ে গিয়ে হত্যা করা হয়েছে। অপরদিকে পুলিশ বলছে তার মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ থাকায় মরদেহ ময়না তদন্ত করা হবে।

নিহত আকমল হোসেন বগুড়া সদরের এরুলিয়া ইউনিয়নের বানদীঘি পুর্বপাড়া গ্রামের মৃত মকবুল সরদারের ছেলে। তিনি ২০১৭ সালে বানদীঘি গ্রামের ওহেদ আলী হত্যা মামলার ৪ নং আসামি। মামলার পর থেকে তিনি গ্রাম ছেড়ে বগুড়া শহরের ঠনঠনিয়া এলাকায় বসবাস করতেন।

বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাতে নন্দীগ্রাম থানার হাটকড়ই বাজার এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে,বৃহস্পতিবার দুপুরে আকমল হোসেন বগুড়া জজ কোর্টে ওহেদ আলী হত্যা মামলায় হাজিরা দেন।এরপর বাসায় না ফিরে তিনি নিখোঁজ হন। পরিবারের লোকজর বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও কোন সন্ধান পাননি। সন্ধ্যার দিকে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ হলেও তিনি কোথায় আছেন তা বলেননি।রাত ১০ টার দিকে নন্দীগ্রাম থানা পুলিশ হাটকড়ই বাজার এলাকা থেকে আকমল হোসেনের মরদেহ উদ্ধার করে। 

নিহতের চাচাতো ভাই আপেল মাহমুদ বার্তা ২৪.কমকে বলেন,নন্দীগ্রামের হাট কড়ই বাজারে তার ভাই এর যাওয়ার কোন কারণ নাই। তিনি বলেন ওহেদ হত্যা মামলার বাদী পক্ষের লোকজন তার ভাইকে অপহরণ করে সেখানে নিয়ে গিয়ে হত্যা করেছে। মরদেহের দুই পাঁজর এবং ঘাড়ে জখমের চিহ্ন রয়েছে।

নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শওকত কবীর বার্তা ২৪.কমকে বলেন আকমল হোসেনের মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন উঠায় মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।