গৌরীপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা, গ্রেফতার ৪



উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ)
মাসুদুর রহমান শুভ্র

মাসুদুর রহমান শুভ্র

  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড (বিআরডিবি) গৌরীপুর শাখার চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান শুভ্রকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ চার জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ ও জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে রোববার (১৮ অক্টোবর) পৌর শহরে দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সহ সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

এর আগে শনিবার রাতে পৌর শহরের মধ্যবাজার এলাকায় পান মহালে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শুভ্রসহ তিনজনকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে সন্ত্রাসীরা। পরে ওই দিন রাতেই শুভ্রকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর সে মারা যায়।

শুভ্র হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে রোববার (১৮ অক্টোবর) পার্শ্ববর্তী তারাকান্দা উপজেলা থেকে গৌরীপুর উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও মইলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এছাড়াও উপজেলার মইলাকান্দা ইউনিয়নের কাউরাট এলাকা থেকে জাহাঙ্গীর আলম, রাসেলসহ তার আরও তিন সহযোগীকে গ্রেফতার করা হয়। তবে এ ঘটনায় রোববার বিকাল পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে মাসুদুর রহমান শুভ্রর বাড়ি গৌরীপুর পৌর শহরের কালীপুর এলাকায়। তিনি আসন্ন গৌরীপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হিসাবে প্রচারণায় ছিলেন। শনিবার রাতে শুভ্র পৌর শহরে তার ব্যক্তিগত কার্যালয় থেকে বের হয়ে সহযোগীদের নিয়ে মধ্যবাজার পান মহল এলাকায় এসে আব্দুর রহিমের চায়ের দোকানে বসে চা খেতে বসেন। এসময় একদল সন্ত্রাসী ঘটনাস্থলে এসে তাদের ওপর হামলা চালায়। আত্মরক্ষার্থে শুভ্র দৌড়ে সুমিত্রা ফার্মেসির সামনে আসতেই সন্ত্রাসীরা তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। সন্ত্রাসীদের হামলায় শুভ্রর দুই সহযোগী আল-আমিন ও জাহাঙ্গীর নামে দুই যুবক আহত হয়। পুলিশ ও স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত তিন জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। পরে ওই দিন রাতেই শুভ্র চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

রোববার ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আহমার উজ্জামান ও গৌরীপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাখের হোসেন সিদ্দিকী হত্যাকাণ্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উপস্থিত আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদেরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির বিষয়ে আশ্বস্ত করেন।

গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. বোরহান বলেন, হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াদসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরিবার শুভ্রর দাফন প্রক্রিয়ায় ব্যস্ত থাকায় বিকাল পর্যন্ত মামলা হয়নি। তবে পুলিশ এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করছে। আমাদের অভিযান চলছে জড়িত সকলকে দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।