‘ডিজিটাল না হলে করোনাকালে বাংলাদেশ পৃথিবী থেকে আলাদা হয়ে যেত’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

  • Font increase
  • Font Decrease

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, বাংলাদেশকে ডিজিটালে পরিণত করেছে আওয়ামী লীগ সরকার। ডিজিটাল না হলে করোনার সময়ে বাংলাদেশ পৃথিবী থেকে আলাদা হয়ে যেত। বর্তমানে সব কার্যক্রম ডিজিটাল পদ্ধতিতে হচ্ছে। সবার হাতে হাতে মোবাইল, ইন্টারনেট। কৃষকের ঘরে ল্যাপটপ। শিক্ষা কর্মসূচি, পাঠদান, চাকরির নিয়োগ সব অনলাইনে হচ্ছে।

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে বোচাগঞ্জের ৮৪টি পূজামণ্ডপে সরকারি অর্থ বিতরণকালে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ করোনাকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছে। প্রধানমন্ত্রী প্রতিনিয়ত এই বয়সেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাংলার মানুষকে উদ্বুদ্ধ করে যাচ্ছেন। বাংলার মানুষকে সাহস যুগিয়ে যাচ্ছেন। এ রকম একটি সংকটের মধ্যেও একটি জনবহুল দেশের প্রধানমন্ত্রীকে এক মুহূর্তের জন্য বিচলিত হতে দেখিনি। সমগ্র বাংলাদেশ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়ে পরিস্থিতি মোকাবিলা করেছে। করোনার সময়েও আঞ্চলিক অন্যান্য দেশের চেয়ে আমাদের অর্থনীতি ঊর্ধ্বমুখী। এটা আওয়ামী লীগ বা প্রশাসনের কথা না। এটা আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থার কথা।

করোনার এ সময়ে জনসমাগম এড়ানোর নির্দেশনা দিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ রকম অবস্থায় উৎসব করাটা খুবই বেমানান। হাজার হাজার মানুষ, লাখ লাখ মানুষ মারা গেছে আমাদের দেশে ও পৃথিবীতে। হাজার হাজার মানুষ এখনো আক্রান্ত আছে। আমাদের মনের উৎসব আছে। কারণ আমাদের এখানে শান্তি আছে। নিরাপত্তা আছে। মনের যে উৎসব এটাই প্রকৃত উৎসব।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মানুষের সক্ষমতা বেড়েছে। একসময় কৃষকরা সার পায় নাই, বিদ্যুৎ পায় নাই। এখন সব কিছু হাতের নাগালে। কারণ শেখ হাসিনার ব্যবস্থাপনা। মানুষ শান্তিতে আছে। বাংলাদেশ সঠিক পথে আছে। বাংলাদেশের রাজনীতিতে কোনো অস্থিরতা নাই। কিছু মানুষের, কিছু গোষ্ঠীর থাকতে পারে। সামগ্রিক অস্থিরতা নাই। বাংলাদেশের অর্থনীতির কোনো অস্থিরতা নাই। রাজনীতি এবং অর্থনীতি সমানভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশ ভালো আছে সঠিক পথে আছে।

এর আগে প্রতিমন্ত্রী উপজেলার ৮৪টি পূজামণ্ডপে নগদ অর্থ, কাপড় ও করোনা সামগ্রী বিতরণ করেন।