মানিকগঞ্জে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে যুবকের যাবজ্জীবন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মানিকগঞ্জ
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

মানিকগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে দশম শ্রেণী পড়ুয়া ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় সাদ্দাম মিয়া নামে এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আলী হোসাইন এই রায় দেন। এ সময় একই মামলার দুই আসামিকে বেকসুর খালাস দেন বিচারক।

যাবজ্জীবনপ্রাপ্ত সাদ্দাম মিয়া মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার গোবর নার্চি গ্রামের মো. আহম্মেদ আলীর ছেলে। খালাস পাওয়া আসামিরা হলেন-সাভারের আশুলিয়ার বাসিন্দা হরিরাম সরকারের ছেলে সম্ভু সরকার এবং ধামরাই এলাকার আমির পালের ছেলে তপু পাল।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০১২ সালের ৮ নভেম্বর আসামি সাদ্দাম মিয়া বিয়ের প্রলোভনে জেলার সাটুরিয়া উপজেলার গোলড়া গ্রামের ছানোয়ার হোসেনের মেয়ে স্কুলছাত্রী তুহিন সুলতানা আক্তার মিমকে নিজ বাড়িতে ধর্ষণ ও পরে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

এর পর তার গায়ের স্বর্ণালংকারসহ ঘরে থাকা নগদ ৭৫ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। এই স্বর্ণালংকার খালাস পাওয়া আসামি সম্ভু সরকার এবং তপু পালের কাছে বিক্রি করা হয়।

এ ঘটনায় মিমের বাবা ছানোয়ার হোসেন বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। পরের বছরই মামলার অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। মামলায় ১৮ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের পিপি কেএম নুরুল হুদা রুবেল। আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন নজরুল ইসলাম বাদশা।