সোনালী ব্যাংক ডাকাতির ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার সময়ের ব্যাপার মাত্র: খুলনার ডিআইজি



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চুয়াডাঙ্গা
পুলিশের খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি। ছবি: বার্তা২৪.কম

পুলিশের খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি। ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease
চুয়াডাঙ্গায় ব্যাংক ডাকাতির ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার এখন সময়ের ব্যাপার বলে মন্তব্য করেছেন পুলিশের খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি ড. খ: মহিদ উদ্দিন বিপিএম (বার)।
 
বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) দুুুপুরে বিট পুলিশিং কমিটির সমাবেশ শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে তিনি এ মন্তব্য করেন। 
 
ডিআইজি বলেন, ব্যাংক ডাকাতির ঘটনায় গত ৫ দিন ধরে পুলিশের বেশ কয়েকটি টিম দিনরাত কাজ করেছেন। তদন্তে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আমাদের হাতে এসেছে। দুই একদিনের মধ্যেই এর সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে। 
 
এ সময় মাদকের বিরুদ্ধেও কঠোর বার্তা দেন খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি ড. খ: মহিদ উদ্দিন। তিনি বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান জিরো টলারেন্স। মাদকের সাথে পুলিশ সদস্যদের সম্পৃক্ততা পেলে সাধারণ আসামির মত তাদের সাথেও একই আচরণ করা হবে। একই সাথে জড়িতদের ফৌজদারী মামলাসহ বিভাগীয় ব্যবস্থাও নেওয়া হবে। ইতিমধ্যে আমরা খুলনা বিভাগে বেশ কিছু দৃষ্টান্ত আমরা স্থাপন করেছি। 
 
বিট পুলিশিং সভা। ছবি: বার্তা২৪.কম
উপস্থিত পুলিশ সদস্যদের প্রতি তিনি বলেন, রাষ্ট্রের মুনিব জনগণ। জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস। আমার আপনার বেতনের টাকা হয় এদের টাকায়। এদেরকে সন্মান করবেন। পুলিশ জনগণের শেষ আশ্রয়স্থল নয়, প্রথম ভরসাস্থল হতে চাই। আপনাদেরকে সেভাবেই কাজ করতে হবে। 
 
এর আগে সকালে খুলনা থেকে ডিআইজি সড়ক পথে চুয়াডাঙ্গায় আসেন। বেলা ১২টায় তিনি ডাকাতি হওয়া সোনালী ব্যাংক উথলী শাখা পরিদর্শন করেন। পরে পুলিশ লাইন্সে জেলা পুলিশ সদস্যদের সাথে মতবিনিময় করেন ড. খ: মহিদ উদ্দিন। 
 
দুুপুরে জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে বিট পুলিশিং কমিটির আয়োজনে সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত যোগ দেন তিনি। জেলা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ শামসুল আবেদিন খোকন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশাদুল হক বিশ্বাস ও অতি: পুলিশ সুপার আবু তারেক।